রামু-ফতেখারকুল-মরিচ্যা সড়ক সম্প্রসারণ ও কালভার্ট নির্মাণ কাজে অনিয়মের অভিযোগ

fec-image

কক্সবাজার সড়ক বিভাগের অধিনে রামু উপজেলার রামু-ফতেখারকুল-মরিচ্যা সড়কের সম্প্রসারণ ও উন্নয়ন কাজে কক্সবাজার সড়ক বিভাগের তদারকি না থাকায় ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান গুনগত মান রক্ষা করছেনা। রামু-ফতেখারকুল-মরিচ্যা সড়কে সড়ক প্রসস্তকরণ ও কালভার্ট নির্মাণের কাজ চলছে। রানা বিল্ডার্স এ কাজের ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান।

রামু উপজেলার কক্সবাজার চট্টগ্রাম মহাসড়কের বাইপাস সড়ক থেকে রামু চৌমুহনী হয়ে কক্সবাজার-টেকনাফ সড়কের মরিচ্যা চেকপোস্ট পর্যন্ত ১৪ কিলোমিটার সড়ক উন্নয়নের কাজ চলছে। সড়কের উন্নয়ন কাজের অংশ হিসেবে ওই সড়কের মরিচ্যা থেকে রামুর দিকে যাওয়ার পথে প্রথম কালভার্ট এর নির্মাণ কাজ ইতিমধ্যে প্রায় শেষ হয়েছে, শুধু উপরের স্লেব ঢালাইয়ের কাজটি এখনো করা হয়নি। কিন্তু উক্ত কালভার্টের এপ্রোচের উভয় পাশে মাটি ভরাটের কাজ চলছে। ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান ”রানা বিল্ডার্স” পুরাতন কালভার্টের ব্রিক এভার্টমেন্ট না ভেঙ্গে এপ্রোচে মাটি ভরাট করে কাজের আইটেম ফাঁকি দিয়ে দূর্নীতি করছে। যে কোন পুরাতন কালভার্ট নুতনভাবে কাজ করার পর পুরাতন কালভার্টের পুরাতন এভার্টমেন্ট ভেঙ্গে ফেলা জরুরী এবং তা ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের টেন্ডারে রয়েছে। ওই এভার্টমেন্ট না ভেঙ্গে সড়ক নির্মাণের কাজ সম্পন্ন করলে সড়ক স্মুথ হবেনা, উক্ত এপ্রোচে সব সময় যে কোন গাড়ি ধাক্কা দিবে। ফলে কক্সবাজার সড়ক বিভাগের অবহেলা ও ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের দুর্নীতির কারণে সাধারণ জনগন শত শত বছর দূর্ভোগ পোহাবে।

প্রাপ্ত তথ্যে জানা যায়, ইতিমধ্যে উক্ত কালভার্টের পুরাতন এভার্টমেন্ট ভেঙ্গে ফেলার অনুরোধ জানিয়ে জেলার একজন সিনিয়র সাংবাদিক কক্সবাজার সড়ক বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশল ও উপবিভাগীয় প্রকৌশলীর সাথে যোগাযোগ করছিলেন, কিন্তু তারা বিষয়টি আমলে নেয়নি।

রামু-ফতেখারকুল-মরিচ্যা সড়কে কক্সবাজার সড়ক বিভাগের অধিনে রানা বিল্ডার্স সড়ক ও কালভার্ট সহ বিভিন্ন আইটেমের কাজ চালিয়ে যাচ্ছে কিন্তু এতে সড়ক বিভাগের তদারকির নিয়ম থাকলেও সড়ক বিভাগের কোন স্তরের প্রতিনিধি কোন দিন কাজ তদারক করতে দেখা যায়নি। ফলে ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান পুকুর চুরির মত যেনতেনভাবে কাজ চালিয়ে যাচ্ছে কোন গুনগত মান রক্ষা করছেনা। সম্প্রসারণ কাজে বক্স কাটিং সঠিকভাবে হচ্ছে কিনা, উক্ত বক্সে বালির পরিমাণ সঠিকভাবে হচ্ছে কিনা, সাববেইচ মেকডামের খোয়া পরিমাণ অনুযায়ী ফিলিং হচ্ছে কিনা এগুলো দেখার কেউ নেই। সরকারের কোটি কোটি টাকার উন্নয়ন কাজ চলছে কিন্তু তদারকির করার কেউ নেই এভাবেই সরকারের হাজার হাজার কোটি টাকা অপচয় হচ্ছে।

সড়ক ও জনপথ (সওজ) বিভাগ কক্সবাজারের নির্বাহী প্রকৌশলী পিন্টু চাকমা বলেন, বিষয়টি আমাদের নজরে এসেছে। অবশ্যই কালভার্টের এভার্টমেন্ট ভেঙ্গে কাজ করা হবে। যদি তা না হয়, তাহলে অবশ্যই সংশ্লিষ্ট ঠিকাদারের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Print Friendly, PDF & Email
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

eleven − 5 =

আরও পড়ুন