রোহিঙ্গাদের কারণে আর বনাঞ্চল ক্ষতি নয়, হাতির বিচরণ ক্ষেত্র সংরক্ষণের তাগিদ

fec-image

রোহিঙ্গাদের আশ্রয়ের কারণে ইতিমধ্যে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। এখাতে আর কোন ধরণের বনাঞ্চল ও সম্পদের ক্ষতি করা যাবে না। পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন জনিত যে ক্ষতি হয়েছে তা অনেক ক্ষেত্রে পূরণীয় নয়। বিশেষ করে হাতিসহ প্রাণী জীব বৈচিত্র্যে সম্পদ সংরক্ষণে এসব ক্ষতি রোধ মোকাবেলা করতে হবে।

বৃহস্পতিবার (১৭ অক্টোবর) দুপুরে পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি সাবের হোসেন চৌধুরী উখিয়ার কুতুপালং মেগা ক্যাম্পে পরিদর্শনে এসে এ সব কথা বলেন।

রোহিঙ্গাদের কারণে পরিবেশের যে সব ক্ষতি হয়েছে তা সরেজমিনে পরিদর্শন শেষে এক বৈঠকে তিনি ও কমিটির অপরাপর সদস্যগণ ছাড়াও উচ্চ পর্যায়ের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাগণ উপস্থিত ছিলেন।

কুতুপালং মেগা -১৭ নং ক্যাম্পে রিফিউজি রিলিফ কো-অর্ডিনেশন সেন্টারে এ বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। বৈঠকে স্থানীয় পরিবেশ, বন ও প্রশাসনের কর্মকর্তারা বলপূর্বক পালিয়ে এসে আশ্রয় নেয়া মিয়ানমার নাগরিক রোহিঙ্গাদের কারণে গত দুই বছরে সংঘঠিত ক্ষয়ক্ষতির বিবরণ তুলে ধরা হয়।

বৈঠকে রোহিঙ্গাদের আশ্রয় দানের কারণে ৬ হাজার একর রক্ষিত, সংরক্ষিত ও সামাজিক বনায়ন, বনজ সম্পদ সম্পূর্ণ ও ক্যাম্প সংলগ্ন আরো ১৮ শ একর বনাঞ্চল, বনজ সম্পদ ও প্রাণী জীব বৈচিত্র্যের ক্ষতির দিক বর্ণনা দেয়া হয়।

এ সবের কারণে বিপন্ন প্রায় এশিয়ান প্রজাতির হাতিসহ পরিবেশ বান্ধব অসংখ্য প্রাণী জীব বৈচিত্র্য বর্তমানে হুমকির মুখে পড়েছে, হাতির বিচরণ ক্ষেত্র সংকুচিত হয়ে খাদ্য, পানীয় জল সংকট দেখা দেয়া, রোহিঙ্গাদের কারণে স্থানীয় জনগোষ্ঠীর আর্থসামাজিক অবস্থার ক্রমাবনতি, বনাঞ্চল ধংস হওয়ায় স্থানীয় লোকজন জ্বালানি সংকটে পড়েছে, তাদের জন্য বিকল্প জ্বালানির ব্যবস্থা করণ, রোহিঙ্গাদের কারণে স্থানীয়ভাবে দিনের পর দিন ভূ-গর্ভস্থ পানি স্তর আশংকাজনক হারে নিচে নেমে যাচ্ছে, এতে সুপেয় নিরাপদ পানি সংকট তীব্র হচ্ছে, রোহিঙ্গাদের জন্য বিকল্প জ্বালানি ও পানির ব্যবস্থা করা জরুরি হয়ে পড়েছেসহ বিভিন্ন জরুরি সমস্যার কথা তুলে ধরা হয়েছে বলে উখিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ নিকারুজ্জামান চৌধুরী জানান।

সংসদীয় কমিটির সভাপতি সাবের হোসেন চৌধুরী এমপি, সদস্য দীপংকর তালুকদার এমপি, জাফর আলম এমপি, রেজাউল করিম এমপি, খোদেজা বেগম এমপিসহ কমিটির অনান্য সদস্যগণ ছাড়াও পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিব আবদুল্লাহ আল মোহসীন চৌধুরী, অতিরিক্ত সচিব মোঃ বিল্লাল হোসেন, অতিরিক্ত সচিব ড. এস এম মঞ্জুরুল হান্নান খান, প্রধান বন সংরক্ষক মোঃ শফিউল আলম চৌধুরী, পরিবেশ অধিদপ্তরের মহা পরিচালক ড. এ কে এম রফিক আহম্মদ, উপ প্রধান বন সংরক্ষক জহির উদ্দিন আহমেদ, চট্টগ্রাম অঞ্চলের উপ প্রধান বন সংরক্ষক আবদুল আওয়াল তালুকদার, কক্সবাজার দক্ষিণ বন বিভাগের বিভাগীয় কর্মকর্তা হুমায়ুন কবির, উখিয়া ইউএনও মোঃ নিকারুজ্জামান চৌধুরীসহ সংশ্লিষ্ট বিভাগীয় উচ্চ পদস্থ সরকারি কর্মকর্তাগণ এ সময় উপস্থিত ছিলেন। শুক্রবার সকালে পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন বিষয়ক সংসদীয় স্থায়ী কমিটির ৮ম বৈঠক কক্সবাজারে অনুষ্ঠিত হবে বলে জানা গেছে।

Print Friendly, PDF & Email
ঘটনাপ্রবাহ: রোহিঙ্গা, সাবের হোসেন চৌধুরী
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

5 × 1 =

আরও পড়ুন