রোহিঙ্গা নিধন বন্ধে ৪ অন্তর্বর্তী আদেশ আইসিজে’র

fec-image

মিয়ানমারের রাখাইনে সংখ্যালঘু মুসলিম রোহিঙ্গা সম্প্রদায়ের বিরুদ্ধে নিধনযজ্ঞ চালানো হয়েছে। এ বিষয়ে পদক্ষেপ নিতে মিয়ানমার সরকারকে চারটি অন্তর্বর্তীকালীন নির্দেশ দিয়েছেন ইন্টারন্যাশনাল কোর্ট অব জাস্টিস (আইসিজে)। মিয়ানমারের বিরুদ্ধে এটাই প্রথম কোনো আন্তর্জাতিক আদালতের আদেশ। খবর দ্য নিউ ইয়র্ক টাইমসের।

বৃহস্পতিবার (২৩ জানুয়ারি) স্থানীয় সময় সকাল ১০টায় নেদারল্যান্ডস এর দ্য হেগে অবস্থিত আইসিজে কোর্টে রায় ঘোষণা শুরু হয়। রোহিঙ্গা ইস্যুতে পর্যবেক্ষণ পড়ে শোনান ১৭ বিচারকের সমন্বয়ে গঠিত বিচারিক দলের প্রধান ও আদালতের প্রেসিডেন্ট বিচারক আব্দুলকাওয়ী আহমেদ ইউসুফ।

রায়ে আদালত জাতিসংঘের ফ্যাক্ট ফাইন্ডিং মিশনে পাওয়া তথ্যগুলোর কথা উল্লেখ করেন। গাম্বিয়া সেসবের ওপর ভিত্তি করে মিয়ানমারের বিরুদ্ধে অভিযোগ তুলেছে বলে জানান আদালত।

আদালত চার অন্তর্বর্তী আদেশে বলেন, মিয়ানমার হত্যাযজ্ঞের সাক্ষ্যপ্রমাণ নষ্ট করতে পারবে না, মিয়ানমারকে জোনোসাইড কনভেনশন মেনে চলতে হবে, রোহিঙ্গাদের বিরুদ্ধে গণহত্যা তৎপরতা চালানো যাবে না এবং ৪ মাসের মধ্যে আদেশ বাস্তবায়নের অগ্রগতি জানাতে হবে।

এই বিচারে, আদালতের ভাইস প্রেসিডেন্ট ও একজন অ্যাডহক বিচারপতি বর্তমান আদেশের সঙ্গে ভিন্নমত পোষণ করেছেন।

এই আদেশ পালানের জন্য মিয়ানমারের ওপর বলপ্রয়োগের কোনো সুযোগ নেই আইসিজের। তবে জাতিসংঘে নিরাপত্তা পরিষদে মিয়ানমারের বিরুদ্ধে কোনো প্রস্তাব তোলা যেতে পারে। সেক্ষেত্রে চীন ও রাশিয়া ভেটো ক্ষমতা প্রয়োগ করে মিয়ানমারের পক্ষাবলম্বন করার সম্ভাবনা রয়েছে। এদিকে কানাডা ও নেদারল্যান্ডসে ও যুক্তরাজ্যে ইতোমধ্যে মিয়ানমারের বিরুদ্ধে এই আইনি প্রক্রিয়ার প্রতি সমর্থনের কথা জানিয়েছেন।

Print Friendly, PDF & Email
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

16 − eleven =

আরও পড়ুন