লংগদু সেনাজোনের দূর্ঘটনা রোধে অবৈধ মোটরসাইকেল চিহ্নিতকরণ অভিযান

fec-image

মোটরসাইকেল দূর্ঘটনা রোধকল্পে রাঙামাটির লংগদুতে সেনাজোনের উদ্যোগে অবৈধ মোটরসাইকেল চিহ্নিতকরণ অভিযান পরিচালনা করা হয়।

শনিবার (৩ আগস্ট) লংগদু সেনাজোনের অভিযানে লাইসেন্সবিহিন চালকসহ যে সকল চালকরা হেলমেট পরিধান করেনা তাদের চিহ্নিত করা হয়।  গত কয়েকমাস পূর্বেও রাঙামাটি জেলার লংগদু উপজেলায় প্রতি সপ্তাহে একাধিক মোটরসাইকেল দূর্ঘটনা সংঘটিত হত। এখন লংগদু সেনাজোনের হস্তক্ষেপে দূর্ঘটনার সংখ্যা অনেকাংশে কমিয়ে আনা সম্ভব হয়েছে।

এ উপলক্ষ্যে লংগদু সেনাজোনের ক্যাপ্টেন ইশতিয়াক আহমেদ বলেন, “সাধারণ জনসাধারণ যেন কোন প্রকার দূর্ঘটনায় পতিত না হয় তাই লংগদুর সকল মোটরসাইকেল চালকদের জন্য হেলমেট এবং মোটরসাইকেলের জন্য সমিতির লোগো ও ট্যাগ নম্বর বাধ্যতামূলক করে দেয়া হয়। এর ফলে সকলের মধ্যে জনসচেতনতা সৃষ্টি হয়েছে, যা দূর্ঘটনার সংখ্যা কমিয়ে আনতে সহায়তা করে।”

এই অভিযানের ফলে লংগদু সেনাজোন ‘আটারকছড়া যোগদল মোটরযান সমিতি’ নামে একটি অবৈধ সমিতিকে চিহ্নিত করতে সক্ষম হয়। উক্ত অবৈধ সমিতির সভাপতি স্বপন চাকমা তাদের দোষ স্বীকার করে এবং তারা লংগদু মোটরসাইকেল মালিক সমবায় সমিতির অন্তর্ভুক্ত হবে বলে জানান।

এছাড়াও লংগদু মোটরসাইকেল মালিক সমবায় সমিতির সভাপতি মোঃ হানিফ মিয়া বলেন, “সেনাজোন কর্তৃক কার্যকরী পদক্ষেপের কারনেই আজ লংগদুর সাধারণ মানুষ আর রাস্তায় প্রান হারাচ্ছে না।”

লংগদুতে সড়ক পরিবহন পুরোপুরি গড়ে না উঠায় উপজেলা সদরে সাধারণ পরিবহনের মত জনসাধারণ মোটরসাইকেলে আসা যাওয়া করে থাকে।এই সুযোগে এলাকার বেকার ছেলেরা কোনরকম গাড়ি চালনা না শিখে ভাড়ায় মোটরসাইকেল চালিয়ে উপার্জন  করছেন।

আবার অনেকে সমিতিভূক্ত না হয়ে নিয়মনীতির তোয়াক্কা না করে মোটরসাইকেল চালানোর ফলে দূর্ঘটনার শিকার হচ্ছে জনসাধারণ। সেনাবাহিনীর অভিযানে দুর্ঘটনা অনেক কমেছে বলে এলকাসীরা সেনাজোনকে ধন্যবাদ জানিয়েছে।

Print Friendly, PDF & Email
ঘটনাপ্রবাহ: ক্যাপ্টেন ইশতিয়াক আহমেদ, লংগদুতে সেনাজোন
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

3 × five =

আরও পড়ুন