লামায় ইউপি ভবনের স্থান নির্ধারণ নিয়ে চেয়ারম্যান ও এলাকাবাসীর মধ্যে বিরোধ

লামা প্রতিনিধি:

বান্দরবানের লামা ইউনিয়ন পরিষদ ভবনের স্থান নির্ধারণ নিয়ে চেয়ারম্যানের সাথে এলাকাবাসীর মতবিরোধ দেখা দিয়েছে। এই বিষয়ে ইউনিয়ন পরিষদের সদস্যগণ এলাকাবাসীর পক্ষ নিয়েছেন। তারা ইউপি চেয়ারম্যান মিন্টু কুমার সেন এর একক সিদ্ধান্তে মেরাখোলায় ইউপি ভবন স্থাপন না করে বৈল্লারচর বাজারে স্থাপনের জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের নিকট আবেদন জানিয়েছেন।

আবেদনে বলা হয়েছে, বর্তমান চেয়ারম্যান মিন্টুকুমার সেন এলাকাবাসীর সুবিধার কথা চিন্তা না করে তার খেয়াল-খুশীমত ইউপি ভবন নির্মানের উদ্যোগ নিয়েছেন। মেরাখোলা গ্রামটি তিন দিকে মাতামুহুরী নদী ও অন্যদিকটি পাহাড় দ্বারা যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন । গ্রামটি প্রতি বছর বর্ষাকালে বন্যা কবলিত হয়। তাছাড়া মাতামুহুরী নদী ভাঙ্গনে ইতিমধ্যে শত-শত পরিবার ভিটামাটি হারিয়ে সরকাবী আশ্রয়ণ প্রকল্পে ঠাঁই নিতে বাধ্য হয়েছে। তদুপরি চেয়াম্যানের নির্ধারিত জায়গাটির মালিক শহীদুল ইসলাম ভবন নির্মানের উপর নিষেধাজ্ঞা চেয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসারের নিকট অভিযোগ দিয়েছেন।

আবেদনকারীগণ ইউপির শতভাগ মানুষ যাতে ভবনের সেবা পায় তার জন্য বৈল্লারচর বাজার এলাকায় ইউপি ভবন স্থাপনের দাবি জানিয়েছেন। এব্যাপারে ইউপি চেয়ারম্যান মিন্টুকুমার সেন জানিয়েছেন, তার আগের চেয়ারম্যান আক্তার কামাল ক্ষমতায় থাকা অবস্থায় মেরাখোলায় ইউপি ভবন নির্মানের জায়গা নির্ধারণ করেছেন। সেই অনুসারে সরকারীভাবে উক্ত যায়গায় ইউপি ভবন নির্মানের প্রাথমিক প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে।

এই বিষয়ে সাবেক চেয়ারম্যান আক্তার কামাল ভিন্নমত পোষন করে বলেন, ইউপি কমপ্লেক্স ভবন নির্মানের জন্য আর/৭২ নং কবুলিয়তের ৫০ শতক জমি ক্রয় করা হয়েছিল। সেই জমিতে ভবন না করে চেয়ারম্যান অন্যজনের বিতর্কিত জমিতে কমপ্লেক্স ভবন স্থাপনের উদ্যোগ নেয়ায় বিরোধ দেখা দিয়েছে বলে তিনি জানান। এ ব্যাপারে স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তর (এলজিইডি) লামা উপজেলা প্রকৌশলী মোবারক হোসেন জানান, চেয়ারম্যান ও ইউপি সদস্য এবং এলাকাবাসীর মত বিরোধে ইউনিয়ন পরিষদ ভবন নির্মানের উপর কোন প্রভাব পড়বেনা।

Print Friendly, PDF & Email
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

10 − six =

আরও পড়ুন