লামায় সরকারি গাছ আত্মসাতের অভিযোগে ১৯ জনের নামে গ্রেফতারি পরোয়ানা

fec-image

উপজেলার ফাঁসিয়াখালী ইউনিয়নের বগাইছড়িতে কৃষি বিভাগের সরকারি জায়গা থেকে জোরপূর্বক ২ লক্ষাধিক টাকার গাছ কর্তন করে পাচার ও সরকারি জায়গা আত্মসাৎ করার অভিযোগে ১৯ জনের নামে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করা হয়েছে।

লামা উপজেলার বিজ্ঞ সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আনিসুর রহমান কৃষি বিভাগের দায়েরকৃত ফৌজদারী অভিযোগ তাৎক্ষনিক জুডিসিয়াল তদন্ত করে বৃহস্পতিবার (১৭ অক্টোবর) দুপুরে এই গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেন। যাদের নামে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করা হয়েছে তারা হলো- মোঃ বাজেত মিয়া (৬০), মোঃ লোকমান (৪০), নুরুল হক (৬০), মোঃ আলাউদ্দিন (৩২), আব্দুল কাদের (৬০), মোঃ ইসমাইল (৩৫), মোঃ সুলতান (৩৫), মোঃ ইউছুপ (৪০), মোঃ সালাউদ্দিন (৩০), ইরাত মিয়া (৩২), বেলাল উদ্দিন (৩৮), আব্দুল মফিজ (৬১), মহিম উদ্দিন (৪০), আবদুছ ছাত্তার (৫০), আবু আহমদ (৩৫), মোঃ ইউনুছ (৫৫), নুরুল ইসলাম (৪০) ও মংথুইপ্রু মার্মা।

জানা গেছে, মামলার আইনজীবি মোঃ মামুন মিয়া ও বাদী উপ সহকারি কৃষি কর্মকর্তা মোঃ আব্বাছ উদ্দিন জানান, ফাঁসিয়াখালী বগাইছড়ি এলাকায় কৃষি বিভাগের সরকারি জায়গা জবর দখল করে আত্মসাৎকরার জন্য বাজেদ মিয়ার নেতৃত্বে আসামিরা পরস্পরের যোগসাজসে দীর্ঘদিন ধরে পাঁয়তারা করেআসছে। সম্প্রতি বিবাদীরা কৃষি বিভাগের জায়গায় রোপিত ২ লক্ষাধিক টাকা মূল্যের বিভিন্ন প্রজাতির গাছ প্রকাশ্যে কর্তন করে নিয়ে যায়। কৃষি বিভাগের মহাপরিচালকের অনুমোদনক্রমে উপ সহকারি কৃষি কর্মকর্তা মোঃ আব্বাছউদ্দিন বাদী হয়ে বৃহস্পতিবার বিজ্ঞ সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে ১৯ জনকে বিবাদী করে এই ফৌজদারী অভিযোগ দায়ের করেন।

Print Friendly, PDF & Email
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

5 × 1 =

আরও পড়ুন