লামা পৌরসভায় আ’লীগের জহিরুল ইসলাম বেসরকারীভাবে নির্বাচিত

fec-image

বান্দরবানের লামা পৌরসভা নির্বাচনে নৌকা প্রতীকের প্রার্থী জহিরুল ইসলাম বেসরকারিভাবে মেয়র নির্বাচিত হয়েছেন। স্থানীয়ভাবে নয়টি ভোট কেন্দ্রের ফলাফল পর্যালোচনায় তিনি এগিয়ে রয়েছেন।

শনিবার সন্ধ্যা সাড়ে সাতটায় উপজেলার নির্বাচন নিয়ন্ত্রণ কক্ষ থেকে রিটার্নিং অফিসার মোহাম্মদ রেজাউল করিম এই ফলাফল ঘোষণা করেন।

বিজয়ী জহিরুল ইসলাম (নৌকা) পেয়েছেন ৯ হাজার ৪০৫ ভোট। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপির প্রার্থী মো. শাহীন (ধানের শীষ) পেয়েছেন ১ হাজার ৬৫ভোট এবং লাঙ্গল প্রতীকের এটিএম শহীদুল ইসলাম পেয়েছেন ১১২ ভোট।

এর আগে সকাল ৮টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত পৌরসভা নির্বাচনের ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়। সুষ্ঠু নির্বাচনের জন্য প্রশাসনের পক্ষ থেকে পর্যাপ্ত নিরাপত্তা নেওয়া হয় বলে জানান সহকারী রির্টানিং কর্মকর্তা। তবে মেয়র পদের ধানের শীষের প্রার্থী বিভিন্ন অনিয়মের অভিযোগে বিকাল সাড়ে ৩টার দিকে ভোট বর্জনের ঘোষণা দেন।

প্রাপ্ত ফলাফল অনুযায়ী ১নং কেন্দ্রে নৌকা ৭৫২, ধানের শীষ ৮৩ ও লাঙ্গল ৭১২ভোট, ২নং কেন্দ্রে নৌকা ১১৪৭, ধানের শীষ ১১৩, লাঙ্গল ০৪ ভোট, ৩নং কেন্দ্রে নৌকা পেয়েছে ৭২৭, ধানের শীষ ১৪৭ ও লাঙ্গল প্রতিক পেয়েছে ১০ভোট। ৪নং কেন্দ্রে নৌকা ১২৮৪, ধানের শীষ ৬৬, লাঙ্গল ১৩ ভোট, ৫নং কেন্দ্রে নৌকা ১২৮৮, ধানের শীষ ৬৫ ও লাঙ্গল ১৮ভোট, ৬নং কেন্দ্রে নৌকা ৯৩৪, ধানের শীষ ১৪৮, লাঙ্গল ০২, ৭নং কেন্দ্রে নৌকা ১৪৯৫, ধানের শীষ ৭৫ ও লাঙ্গল ১২ ভোট, ৮নং কেন্দ্রে নৌকা ৮০৮, ধানের শীষ ২৩১ ও লাঙ্গল ১২ ভোট, ৯নং কেন্দ্রে নৌকা ৯৭০, ধানের শীষ ১৩৪, লাঙ্গল ১৭ভোট।

এদিকে সংরক্ষিত ৩টি ওয়ার্ডেও আওয়ামী লীগ মনোনীত তিন নারী কাউন্সিলর নির্বাচিত হয়েছেন। এরমধ্যে ১,২. ও ৩ নং ওয়ার্ডে সাকেরা বেগম, ৪, ৫ ও ৬ নং ওয়ার্ডে মরিয়ম বেগম এবং ৭, ৮ ও ৯ নং ওয়ার্ডে জাহানারা বেগম নির্বাচিত হয়েছেন। একইভাবে ১নং ওয়ার্ডে মো. বশির, ২- মো. হোসেন বাদশা, ৩-মো. সাফুদ্দিন, ৪- মোহাম্মদ রফিক, ৫- আলী আহমদ, ৬-মমতাজুল ইসলাম, ৭ মো. কামাল উদ্দিন, ৮- মো. ইউসুফ ও ৯ নং ওয়ার্ডে ঊশৈথোয়াই মারমা কাউন্সিলর নির্বাচিত হন।

সংরক্ষিত কাউন্সিলর (১, ২ ও ৩ নং ওয়ার্ড) ১নং আসনে সাকেরা বেগম (আনারস) ১৭৯২ ভোট পেয়ে বিজয়ী হন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী শ্যামলী বিশ্বাস (জবাফুল) পেয়েছেন ৯৫০ ভোট। (৪, ৫ ও ৬ নং ওয়ার্ড) ২নং আসনে মরিয়ম বেগম (জবাফুল) ১৮৪৯ ভোট পেয়ে বিজয়ী হন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী জোৎস্না বেগম (আনারস) পেয়েছে ১৮০২ ভোট। (৭, ৮ ও ৯ নং ওয়ার্ড) ৩নং আসনে জাহানারা বেগম (আনারস) ২৩৭০ ভোট পেয়ে বিজয়ী হন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী মাজেদা বেগম (চশমা) পেয়েছেন ১১২৬ ভোট।

তাছাড়া ১নং ওয়ার্ডে কাউন্সিলর পদে বশির আহম্মদ (টেবিল ল্যাম্প) ২৮৯ ভোট পেয়ে বিজয়ী হন। ৩নং ওয়ার্ডে কাউন্সিলর পদে মোঃ সাইফুদ্দিন (টেবিল ল্যাম্প) ৪৯৩ ভোট পেয়ে বিজয়ী হন। ৫নং ওয়ার্ডে কাউন্সিলার পদে আলী আহাম্মদ (উট পাখি) ৬৩৪ ভোট পেয়ে বিজয়ী হন। ৬নং ওয়ার্ডে কাউন্সিলর পদে মমতাজুল ইসলাম (ডালিম) ৫৮০ ভোট পেয়ে বিজয়ী হন। ৭নং ওয়ার্ডে কাউন্সিলর পদে কামাল উদ্দিন (টেবিল ল্যাম্প) ১২৩৪ ভোট পেয়ে বিজয়ী হন। ৮নং ওয়ার্ডে কাউন্সিলর পদে ইউছুপ আলী (ডালিম) ৫৬৯ ভোট পেয়ে বিজয়ী হন। ৯নং ওয়ার্ডে কাউন্সিলর পদে উশৈইথোয়াই মার্মা (উট পাখি) ৬৩৪ ভোট পেয়ে বিজয়ী হন। এদিকে ২নং ওয়ার্ডে কাউন্সিলর পদে মোহাম্মদ হোসেন বাদশা ও ৪নং ওয়ার্ডে মো. রফিক বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতা বিজয়ী হয়েছেন।

লামা পৌরসভা নির্বাচনের রিটার্নিং অফিসারের কার্যালয় সূত্র জানায়, লামা পৌর এলাকার মোট ভোটার সংখ্যা ১৩ হাজার ৩৮৯ জন। তার মধ্যে পুরুষ ৭ হাজার ৩ জন এবং মহিলা ভোটার ৬ হাজার ৩৮৬ জন। এবারের নির্বাচনে মেয়র পদে ৩ জন, সংরক্ষিত কাউন্সিলর পদে ৯ জন এবং সাধারণ কাউন্সিলর পদে ২৬ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেছেন।

Print Friendly, PDF & Email
ঘটনাপ্রবাহ: আ’লীগের, নির্বাচিত, পুনরায়
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

5 × 3 =

আরও পড়ুন