সংকটের ৩ বছর: মিয়ানমারে ফেরত যেতে শূণ্যরেখার রোহিঙ্গাদের বিক্ষোভ

fec-image

মিয়ানমারে রোহিঙ্গা গণহত্যা বন্ধ এবং ৫ দফা দাবি পুরণ করে রোহিঙ্গাদের মিয়ানমারে ফেরত নেওয়ার দাবিতে বিক্ষোভ সমাবেশ করেছে নাইক্ষ্যংছড়ির উপজেলার তুমব্রু শূণ্যরেখার আশ্রিত রোহিঙ্গারা।

২৫ আগস্ট সকালে রোহিঙ্গা অনুপ্রবেশের ৩ বছর পূর্তি উপলক্ষে তারা এই বিক্ষোভ সমাবেশ করেন।

শূণ্যরেখার রোহিঙ্গা নেতা দিল মোহাম্মদ বলেন, মিয়ানমার সরকার সেনা চৌকিতে মামলা অজুহাত তুলে রোহিঙ্গা মুসলিমদের উপর বর্বর নির্যাতন চালায়। এসময় রোহিঙ্গা নারী ধর্ষনের শিকার হয়েছে, হত্যা করা হয়েছে যুবকদের, আগুনে নিক্ষেপ করা হয়েছে শিশুদের। ওই সময় পালিয়ে এসে বাংলাদেশ-মিয়ানমার সীমান্তের শূণ্যরেখায় আশ্রয় গ্রহণ করি।

পরবর্তীতে মিয়ানমার সরকার প্রথম দফায় শূণ্যরেখার রোহিঙ্গাদের ফিরিয়ে নেওয়ার জন্য কথা দিয়েও কথা রাখেনি।

২৫ আগস্ট রোহিঙ্গা সংকটের ৩ বছর পূর্ণ হলেও একজন রোহিঙ্গাকে মিয়ানমার সরকার ফেরত নেয়নি। ইতিপূর্বে ২ বার রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনের দিনক্ষণ ঠিক করেও মিয়ানমারের আন্তরিকতার অভাবের কারণে তা বাস্তবায়ন হয়নি।

তিনি বলেন, ৩ বছর পূর্তি উপলক্ষে শূণ্যরেখার রোহিঙ্গারা গণহত্যা বন্ধসহ ৫ দফা দাবি পুরণে বিক্ষোভ সমাবেশ করেছে। দাবি গুলো হচ্ছে নাগরিকত্ব দেয়া, নিরাপত্তার ব্যবস্থা করা, নিজেদের ভিটেবাড়ি ফিরিয়ে দেয়া, ক্ষতিপূরণ দেয়া এবং রোহিঙ্গাদের হত্যা ও নির্যাতনকারীদের আন্তর্জাতিক অদালতে বিচার নিশ্চিত করা।

এছাড়াও মসজিদে দোয়া মাহফিল এবং খতমে কোরআনের আয়োজনসহ নিজ দেশে মর্যাদার সাথে ফিরে যাওয়ার  ব্যাপারে বিশেষ মোনাজাত করা হয়।

উল্লেখ্য, ২০১৭ সালের ২৪ আগস্টের পর থেকে তুমব্রু কোনারপাড়া জিরো লাইনে অবস্থান নেয় প্রায় ৫ হাজারের অধিক রোহিঙ্গা। পরবর্তী সহস্রাধিক রোহিঙ্গা উখিয়ার বিভিন্ন ক্যাম্পে ঢুকে পড়লেও গত ৩ বছর ধরে শূণ্যরেখার খালের কিনারে বসবাস করে আসছে প্রায় ৪ হাজার রোহিঙ্গা।

Print Friendly, PDF & Email
ঘটনাপ্রবাহ: বিক্ষোভ, রোহিঙ্গাদের, শূণ্যরেখার
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

three × three =

আরও পড়ুন