সমুদ্র সৈকতের বালিয়াড়িতে ভ্রাম্যমাণ ওয়াশরুম

fec-image

কক্সবাজার সমুদ্র সৈকতের বালিয়াড়িতে বসানো হয়েছে ভ্রাম্যমাণ ওয়াশরুম। যেখান থেকে দুর্গন্ধ ছড়াচ্ছে মুক্ত আকাশে। এ নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন পর্যটক ও স্থানীয় বাসিন্দারা।

তবে এটি পরিক্ষামূলক অনুমোদন বলে জানিয়েছেন পর্যটন সেলে দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা।

জানা যায়, সৈকতের সৌন্দর্য্য রক্ষায় উচ্চ আদালতের রায় বাস্তবায়ন করতে না করতে এবার কক্সবাজার সমুদ্র সৈকতের সুগন্ধা, লাবনী এবং কলাতলী পয়েন্টে ভ্রাম্যমাণ ওয়াশরুম করা হয়েছে।

সোহেল নামের এক ব্যক্তি জেলা প্রশাসনের এলআর ফান্ডে নির্ধারিত পরিমাণ অর্থ দিয়ে এ ওয়াশরুম অনুমোদন নেন বলে জানা গেছে।

ঢাকা থেকে আসা পর্যটক আনোয়ার হোসেন জানান, পাবলিক টয়লেট অবশ্যই প্রয়োজনীয়। কিন্তু বালিয়াড়িতে স্থাপন নিন্দনীয় বিষয়।

সিলেট থেকে পরিবার পরিজন নিয়ে বেড়াতে আসেন ব্যবসায়ী মো আরিফ। সৈকতের বালিয়াড়িতে ওয়াশরুম দেখে তিনি বলেন, ‌টয়লেটের গন্ধে বসা তো দূরের হাঁটাও কষ্টকর। এটি অবিবেচক কর্ম।

স্থানীয় ব্যবসায়ীরা জানান, কিছু লোকের লোভনীয় অফার পেয়ে বিতর্কিত সিদ্ধান্ত নেয় প্রশাসন।

ওয়াশরুম অনুমোদন নেয়া মো. সোহেল জানান, জেলা প্রশাসনকে রাজস্ব দিয়ে অনুমোদন দিয়েছেন। বিস্তারিত জেলা প্রশাসন অবগত।

কক্সবাজার পর্যটন সেলের দায়িত্বপ্রাপ্ত নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রট মাসুম বিল্লাহ জানান, এটি অস্থায়ী ও পরীক্ষামূলক অনুমোদন ছিল। অভিযোগ আসার পর বন্ধ রাখা হয়েছে। এরপরও চালু থাকলে বন্ধ করে দেওয়া হবে।

Print Friendly, PDF & Email
ঘটনাপ্রবাহ: ওয়াশরুম, কক্সবাজার, সমুদ্র সৈকত
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

2 × 1 =

আরও পড়ুন