পাহাড়ের সালতামামি- ২০১৯ তৃতীয় পর্ব

সম্প্রীতির বান্দরবানে ২০১৯ সালে হিংসার কালো ছায়া

fec-image

বিদায়ী ২০১৯ সালের বিভিন্ন আলোচিত ঘটনার সাক্ষী বান্দরবান জেলা। সম্প্রীতির শহর নামে পরিচিত বান্দরবানের গেল বছরটির গত ছয় মাসে খুন পাল্টা খুনের ঘটনায় মানুষের মনে নাড়া দিয়েছে। তবে উন্নয়ন ক্ষেত্রে বৈপ্লবিক হাওয়া লেগেছে এই জেলায়। শত কোটি টাকার উন্নয়ন কর্মযজ্ঞ চলমান রয়েছে। দেশের শততম বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে উচ্চ শিক্ষায় আরও একধাপ এগিয়ে গেছে।

ঘটনাবহুল আরও একটি বছর ক্যালেন্ডার থেকে মুছে গেলো। বিদায়ী ২০১৯ সালের বিভিন্ন আলোচিত ঘটনার সাক্ষী বান্দরবান জেলা। সম্প্রীতির শহর নামে পরিচিত বান্দরবানের গেল বছরটির গত ছয় মাসে খুন পাল্টা খুনের ঘটনায় মানুষের মনে নাড়া দিয়েছে। তবে উন্নয়ন ক্ষেত্রে বৈপ্লবিক হাওয়া লেগেছে এই জেলায়। শত কোটি টাকার উন্নয়ন কর্মযজ্ঞ চলমান রয়েছে। দেশের শততম বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে উচ্চ শিক্ষায় আরও একধাপ এগিয়ে গেছে। সচেতনতার কারণে পাহাড় ধসে প্রাণহানির ঘটনাছিল অন্যান্য বছরের তুলনায় কম।

হত্যা-পাল্টা হত্যা
তিন পার্বত্য জেলার মধ্যে সম্প্রীতির জেলা হিসেবে পরিচিত বান্দরবান। রাঙ্গামাটি-খাগড়াছড়িতে যখন খুনোখুনি চলছিল তখনও শান্তির মডেল হিসেবে পরিচিত ছিল বান্দরবান জেলা। কিন্তু ২০১৯ সালের মে মাসে হঠাৎ অশান্ত হয়ে উঠে সম্প্রীতির এই জেলাটি। গত ছয় মাসে জেলায় অপহরণ ও খুন হয়েছে অন্তত ৭ আওয়ামী ও জেএসএস নেতাকর্মী।

৭ মে সদর উপজেলার রাজবিলা ইউনিয়নের দুর্গম তাইংখালী এলাকায় বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে বিনয় তঞ্চঙ্গ্যা নামে এক ব্যক্তিকে হত্যা করে দুর্বৃত্তরা। পরে ৯ নম্বর সইনক্ষ্যং পাড়ায় গিয়ে পুরাধন তঞ্চঙ্গ্যা (৪৫) নামের একজনকে অপহরণ করে নিয়ে যায়। তার খোঁজ এখনো মেলেনি। ১৯মে বান্দরবান-রাঙামাটি সীমান্তের বাঙ্গালহালিয়া এলাকায় আওয়ামী লীগ নেতা ক্যহ্লাচিং মার্মাকে গুলি করে হত্যা করে সন্ত্রাসীরা।

২০মে রাজবিলায় আওয়ামী লীগ নেতা ক্যচিং থোয়াই মারমা, ২৩ মে পৌর আওয়ামীলীগ নেতা চথোয়াই মং মারমা, ২৫জুন রোয়াংছড়ি উপজেলার থোয়াইংগ্য পাড়ায় অং সিংচিং মার্মা, ২২জুলাই রোয়াংছড়ি উপজেলার তারাছা ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ সভাপতি মংমং থোয়াই মার্মাকে শামুকঝিরি এলাকায় ব্রাশফায়ারে হত্যা করা হয়। ২৪জুলাই লামায় ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সম্পাদক আলমগীর সিকদারকে কুপিয়ে হত্যা করা হয়।

ক্ষমতাসীন দলের হরতাল
বান্দরবানে একের পর এক আওয়ামী লীগ নেতা হত্যা ও অপহরণের বিরুদ্ধে ২৬ মে অর্ধদিবস হরতাল পালন করে ক্ষমতাসীন দল। এই কর্মসূচিতে হত্যার ঘটনায় দায়ী করা হয়েছিল আঞ্চলিক রাজনৈতিক দল জেএসএসকে। বাংলাদেশের রাজনৈতিক সংস্কৃতিতে সরকারি দলের হরতাল আহ্বান বিরল হওয়ায় বিষয়টি জাতীয়ভাবে বেশ আলোচনায় এসেছিলো।

আলোচনায় মগ বাহিনী

জেএসএস নেতা কর্মীদের হত্যার ঘটনায় বছর জুড়ে আলোচনায় ছিল মগ লিবারেশন পার্টি নামে একটি সন্ত্রাসী বাহিনীর। তবে স্থানীয় সূত্রমতে, হত্যাকাণ্ড গুলো জেএসএসের অভ্যন্তরীণ দ্বন্দ্বের কারণে ঘটতে পারে। অন্যদিকে সরকারি দলের নেতাকর্মীদের হত্যার জন্য জেএসএসকে দায়ী করেছে তারা।

পরিবহন সিন্ডিকেট নিয়ে তুলকালাম
দীর্ঘদিনের পরিবহন সিন্ডিকেট ভেঙ্গে ২৭ অক্টোবর বান্দরবান-চট্টগ্রাম সড়কে চালু হয় বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন কর্পোরেশনের (বিআরটিসি) নতুন বাস সার্ভিস। এই পরিবহনটি চালু করতে গিয়ে বান্দরবানের সাধারণ মানুষের সাথে পরিবহন সিন্ডিকেটের মধ্যে বিরোধ তৈরি হয়। পরিবহন শ্রমিকরা ধর্মঘটের ডাক দিলে ও জনরোষ ও প্রশাসনের হস্তক্ষেপে শেষ পর্যন্ত পিছিয়ে যায় পরিবহন মালিক-শ্রমিক সংগঠনগুলো।

উন্নয়ন বৈপ্লবিক হাওয়া

বছর জুড়ে বান্দরবানে খুন পাল্টা খুন এবং সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড আলোচনায় থাকলেও উন্নয়নে বৈপ্লবিক হাওয়া লেগেছে বান্দরবানে। বিশেষ করে বান্দরবান-কেরানীহাট সড়ক চার লেইনের উন্নয়ন কাজ দ্রুতগতিতে এগিয়ে চলছে। এছাড়া সড়ক যোগাযোগ উন্নয়ন, স্কুল-কলেজ, মাদরাসা, মসজিদ-মন্দির, কিয়াং-প্যাগোডাসহ স্বাস্থ্যখাতে ব্যাপক উন্নয়ন হয়েছে।

এরমধ্যে গত ২৪এপ্রিল নাইক্ষ্যংছড়ি, ১নভেম্বর আলীকদম ও ৮ফেব্রুয়ারি থানচি উপজেলার ৩১ শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতালকে ৫০ শয্যায় উন্নীতকরণ কাজের ভিত্তিপ্রস্তর ও উদ্বোধন করা হয়।

বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় উদ্বোধন

দেশের শততম বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় হিসেবে যাত্রা শুরু করে বান্দরবান বিশ্ববিদ্যালয়। আগামীতে বান্দরবান শহরের প্রবেশ মুখ সুয়ালকে ১০০ একর জমিতে গড়ে উঠবে এই বিশ্ববিদ্যালয়ের স্থায়ী ক্যাম্পাস।

সীমান্তে মাইন আতঙ্ক

মিয়ানমার থেকে রোহিঙ্গা অনুপ্রবেশের পর বান্দরবান সীমান্তের ঘুমধুম-চাকঢালা ও আশারতলী সীমান্তে ব্যাপকহারে স্থল মাইন পুঁতে রাখে মিয়ানমার সীমান্তরক্ষী বাহিনী। বিভিন্ন সময়ে এসব মাইন বিষ্ফোরণে মানুষের মৃত্যু হয়েছে। ৩সেপ্টেম্বর জেলার নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার ঘুমধুম ইউনিয়নের তুমব্রু সীমান্তে মাইন বিষ্ফোরণে নিহত হয় রোহিঙ্গা নাগরিক মো. শাহাজাহান (৪৫)।

২৩ সেপ্টেম্বর একই ইউনিয়নের তুমব্রু থোয়াইঙ্গা ঝিরি এলাকায় মৃত্যু হয় আব্দুল মজিদ নামে এক রোহিঙ্গার। ২৯ নভেম্বর ঘুমধুমে মিয়ানমার সীমান্তে হামিদ হোসেন (৩০) নামের এক রোহিঙ্গা যুবক নিহত হন। এছাড়া আহত হয় হাবিব উল্লাহ ও জুয়েল হক।

Print Friendly, PDF & Email
ঘটনাপ্রবাহ: ২০১৯ সালের বান্দরবান, পাহাড়ের সালতামামি, সালতামামি. সালতামামি-২০১৯
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

ten − 4 =

আরও পড়ুন