সময়ের দাবি কাচালং উপজেলা: জেলা পরিষদ সদস্য আব্দুর রহিম

fec-image

গুলশাখালী, বগাচতর, ভাসান্যাদম ও আমতলী ইউনিয়ন নিয়ে প্রস্তাবিত কাচালং উপজেলা গঠন এখন সময়ের দাবি বলে মন্তব্য করেছেন রাঙ্গামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদের সদস্য আব্দুর রহিম। তিনি আরো বলেন, আমরা এর বাস্তবায়নে সম্মিলিতভাবে যথাসাধ্য চেষ্টা করবো।

শুক্রবার (৮ জানুয়ারি) বিকালে লংগদু উপজেলার গুলশাখালী ইউনিয়নে কাচালং উপজেলা বাস্তবায়ন পরিষদের আয়োজনে গণসংবর্ধনা অনুষ্ঠানে একথা বলেন রাঙ্গামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদ সদস্য আব্দুর রহিম।

এ সময় তিনি আরো বলেন, নবগঠিত রাঙ্গামাটি জেলা পরিষদে আমাদের দায়িত্ব প্রাপ্তিকে লংগদুবাসী আন্তরিকভাবে গ্রহণ করেছে। আমরা দু’জনে মিলে এলাকার মানুষের জন্য কাজ করতে চাই। ইতোমধ্যে আমরা কিছু টিউবওয়েল পেয়েছি, যা আপনাদের মাঝে সরাসরি বিতরণ করবো। এসব বিষয় নিয়ে অতীতে জেলা পরিষদের অনেক বদনাম রয়েছে মন্তব্য করে তিনি বলেন, সে বদনাম ঘুচিয়ে সৎভাবে জনগণের জন্য কাজ করাই আমাদের লক্ষ্য।

সভায় অপর সংবর্ধিত জেলা পরিষদের মহিলা সদস্য আছমা বেগম কাচালং নদীর পূর্বপাড়ের সর্বস্তরের জনগণের পক্ষ থেকে গণসংবর্ধনা প্রদান করায় আয়োজকদের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন। পাশাপাশি প্রস্তাবিত কাচালং উপজেলা প্রসঙ্গে তিনি বলেন, আপনাদের দাবির বিষয়ে উপজেলার নেতৃবৃন্দকে নিয়ে আলোচনা করে সম্মিলিত উদ্যোগ নেওয়া যেতে পারে।

সভায় প্রস্তাবিত কাচালং উপজেলার দাবির প্রতি সংহতি জানিয়ে বক্তব্য প্রদান করেন সমাজ সেবক বিনয় প্রসাদ কার্বারী।

কাচালং উপজেলা বাস্তবায়ন পরিষদের আহবায়ক শহিদুল ইসলাম কামালের সভাপতিত্বে ও অ্যাডভোকেট কামাল হোসেন সুজনের সঞ্চালনায় গণসংবর্ধনা অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রাখেন গুলশাখালী ইউপি চেয়ারম্যান আবু নাছির, স্কুল শিক্ষক জাহাঙ্গীর আলম, স্কুল শিক্ষক কামরুল হাসান, যুবনেতা জাহাঙ্গীর আলম প্রমুখ।

সভায় বক্তারা বলেন, লংগদু উপজেলার পূর্বপাড়ে তিনটি ইউনিয়নের সার্বিক উন্নয়নের সার্থে বাঘাইছড়ির আমতলী ইউনিয়নকে যুক্ত করে কাচালং নদীর পূর্বপাড়ে একটি উপজেলা জরুরি প্রয়োজন। শিক্ষা, চিকিৎসা, যোগাযোগ ও বিদ্যুতের সুবিধা থেকে এ পাড়ের মানুষ বঞ্চিত। মানুষের মৌলিক অধিকার বাস্তবায়নে এবং উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে একটি উপজেলা গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে। স্থানীয় সাংসদ এবং সরকারের ঊর্ধ্বতন মহলকে বিষয়টি ভেবে দেখার আহবান জানান বক্তারা।

বক্তারা আরো বলেন, প্রথমবারের মতো এবারই লংগদুবাসী জেলা পরিষদে দু’জন সদস্য পেয়েছে। এটা আমাদের জন্য অত্যন্ত খুশির খবর। দু’জনে মিলে এলাকার সার্বিক উন্নয়নে ভূমিকা রাখবে বলে আমরা বিশ্বাস করি।

সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন, বগাচতর ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুর রশিদ, সমাজ সেবক ডা. আব্দুর রশিদ, আওয়ামীলীগ নেতা সুভাষ চন্দ্র দাশ, মহিলা ইউপি সদস্য ফাতেমা জিন্নাহ্ প্রমুখ।

বক্তব্য শেষে নবগঠিত রাঙামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদের সদস্য আব্দুর রহিম ও আছমা বেগমকে সম্মাননা স্মারক হিসেবে ক্রেস্ট প্রদান করেন কাচালং উপজেলা বাস্তবায়ন পরিষদের নেতৃবৃন্দ।

Print Friendly, PDF & Email
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

19 + eighteen =

আরও পড়ুন