সরকারি হলো শতবর্ষী রামু খিজারী আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়

ramu k,m high school (1) copy

নিজস্ব প্রতিনিধি:

অবশেষে সরকারীকরণ হলো ১৯১৪ সালে প্রতিষ্ঠিত রামু খিজারী আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়। প্রতিষ্ঠার শত বছরেও ঐতিহ্যের ধারক এ বিদ্যালয়টি সরকারীকরণ না হওয়ায় চরম হতাশায় ছিলেন রামুবাসী। সাম্প্রতিক সময়ে রামু-কক্সবাজার আসনের সংসদ সদস্য সাইমুম সরওয়ার কমল এ বিদ্যালয়টিকে সরকারীকরণের জন্য জোর প্রচেষ্টা শুরু করেন। এরই প্রেক্ষিতে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বিদ্যালয়টিকে সরকারীকরণের ঘোষণা দেবেন এমন আশায় বুক বেঁধেছিলেন বিদ্যালয় পরিচালনা পর্ষদ, শিক্ষক, শিক্ষার্থী, অভিভাবকসহ পুরো রামুবাসী।

সম্প্রতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশের ৭৯টি বিদ্যালয়কে জাতীয়করণের জন্য প্রাথমিক অনুমোদন দেন। শিক্ষা মন্ত্রনালয় গত ১৩ জুলাই কক্সবাজার জেলা থেকে একমাত্র রামু খিজারী আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়সহ ৭৯টি বিদ্যালয়ের নাম শিক্ষা অধিদপ্তরে পাঠিয়ে দেয়। সরকারীকরণের জন্য নির্ধারিত এসব মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে সকল প্রকার নতুন নিয়োগে নিষেধাজ্ঞাজারী করা হয়েছে। শিক্ষা অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক সাখায়েত হোসেন স্বাক্ষরিত চিঠিতে এ তথ্য জানা গেছে।

তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায় রামু-কক্সবাজার আসনের সংসদ সদস ও রামু খিজারী আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয় পরিচালনা পর্ষদের সভাপতি সাইমুম সরওয়ার কমল বিদ্যালয়টি সরকারীকরণ করায় মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়ে বলেন, আওয়ামী লীগ সরকার শিক্ষাকে সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিয়েছে। যার প্রেক্ষিতে এক সপ্তাহের মধ্যে রামু উপজেলায় রামু কলেজ সহ এ দু‘টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান সরকারীকরণ করা হলো। দুটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান সরকারীকরণের ঘোষণা রামুবাসীর জন্য মাইলফলক হয়ে থাকবে।

শ্রেষ্ঠ দানবীর উ. খিজারী দালাল মায়ানমার হতে এসে ১৯১৪ সালে রামু খিজারী আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা করেন। যা এখনো রাখাইন তথা বৌদ্ধ সম্প্রদায়ের অন্যতম প্রাচীন নিদর্শন। দক্ষিণ চট্টগ্রামের প্রথম প্রতিষ্ঠিত এ বিদ্যালয়টি খিজারী স্কুল নামেই পরিচিতি লাভ করেছে। শিক্ষা, সংস্কৃতি, ক্রীড়া ও দেশে-বিদেশে প্রশাসনের উচ্চ পদে এ বিদ্যারয়ের সাবেক শিক্ষার্থীরা স্ব-মহিমায় সমুজ্জ্বল। কিন্তু জেলা প্রথম বিদ্যালয়টি স্বাধীনতার পর থেকে বিভিন্ন সরকার সরকারীকরণের উদ্যোগ নিলেও স্বাধীনতার স্ব-পক্ষের ব্যক্তিবর্গ প্রতিষ্ঠান পরিচালনা করায় তা বাস্তবায়ন করেনি। ১৯৭১ সালে স্বাধীনতা সংগ্রাম চলাকালে এ বিদ্যালয়টি এ অঞ্চলের মুক্তিযোদ্ধাদের প্রশিক্ষণের অন্যতম আশ্রয়স্থল ছিলো।

জানা গেছে, এ বিদ্যালয়ের প্রাক্তন ছাত্র রামু কেন্দ্রীয় সীমা বিহারের অধ্যক্ষ প-িত সত্যপ্রিয় মহাথের। তিনিও প্রাচীন ও ঐতিহ্যবাহি এ প্রতিষ্ঠানটিকে সরকারীকরণের জন্য বঙ্গবন্ধু তনয়া জননেত্রী শেখ হাসিনার কাছে লিখিত সুপারিশ করেছেন।

রামু খিজারী আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক মফিজুল ইসলাম জানান, সরকারীকরণের ঘোষণায় পুরো বিদ্যালয়ে উৎসবমুখর পরিবেশ সৃষ্টি হয়েছে। এটা রামুবাসীর জন্য শ্রেষ্ঠ অর্জন হয়ে থাকবে। তিনি আরো জানান, প্রাচীন এ বিদ্যালয়টি জেলার শিক্ষা, সংস্কৃতি, ক্রীড়া ক্ষেত্রে ব্যাপক ভূমিকা রেখেছে। বর্তমান সরকার শিক্ষাকে সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিয়েছে। একারণেই প্রধানমন্ত্রী বিদ্যালয়টিকে সরকারীকরণের ঘোষণা দিয়েছেন।

Print Friendly, PDF & Email
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

2 × 4 =

আরও পড়ুন