সরকারী বিধিনিষেধ অমান্যকারীদের বিরুদ্ধে কঠোর হবে প্রশাসন -জেলা প্রশাসক

fec-image

করোনা সংক্রমনে মাটিরাঙ্গা উপজেলাকে সবচেয়ে বেশি ঝুকিপূর্ণ মন্তব্য করে প্রশাসন, রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ, জনপ্রতিনিধিসহ সুশীল সমাজের প্রতিনিধিদের করোনা সংক্রমন ঠেকাতে ভূমিকা রাখার আহ্বান জানিয়ে খাগড়াছড়ির জেলা প্রশাসক প্রতাপ চন্দ্র বিশ্বাস প্রশাসনকে সরকারী বিধিনিষেধ অমান্যকারীদের বিরুদ্ধে কঠোর হওয়ার নির্দেশ দেন। তিনি বলেন, মানুষের জীবন বাঁচানোই এখন আমাদের কাছে গুরুত্বপুর্ণ।

শনিবার (১১ জুলাই) বেলা ১১টার দিকে মাটিরাঙা উপজেলা প্রশাসন আয়োজিত প্রানঘাতী করোনা ভাইরাস (কোভিড-১৯) প্রতিরোধে বিশেষ মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে খাগড়াছড়ির জেলা প্রশাসক ও বিজ্ঞ জেলা ম্যাজিস্ট্রেট প্রতাপ চন্দ্র বিশ্বাস এসব কথা বলেন।

মাটিরাঙ্গা উপজেলা নির্বাহী অফিসার (অ.দা) মিজ ফারজানা আক্তার ববি’র সভাপতিত্বে মতবিনিময় সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন খাগড়াছড়ির পুলিশ সুপার মোহাম্মদ আব্দুল আজিজ, সিভিল সার্জন নুপুর কান্তি দাশ, মাটিরাঙ্গা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মো. রফিকুল ইসলাম।

মতবিনিময় সভায় মাটিরাঙ্গা থানার অফিসার ইনচার্জ মুহাম্মদ আলী, মাটিরাঙা উপজেলা স্বাস্থ্য ও প.প. কর্মকর্তা, মাটিরাঙ্গা উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এম.হুমায়ুন মোরশেদ খাঁন, মাটিরাংগা পৌরসভার মেয়র মো. শামছুল হক ও ভাইস- চেয়ারম্যান আনিসুজ্জামান ডালিম প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।

করোনায় আক্রান্ত ব্যক্তির বাড়ি লকডাউন না করার কারনে তার সাথে অনেকেই দেখা করছে। আবার করোনার উপস্বর্গ আছে এমন ব্যাক্তি যেখানে সেখানে ঘুরে বেড়াচ্ছে। করোনায় আক্রান্ত ব্যাক্তির চিকিৎসা আর সেবায় ৪/৫জন ব্যাক্তি জড়িত থাকে। এবং সাধারণ মানুষ সরকারের ১৪ দিনের লকডাউন মানছেনা এসব কারণেই করোনা ছড়িয়ে পড়ছে। এমন মন্তব্য করে মানুষকে ঘরে রাখতে করোনাকালে নিম্ন আয়ের মানুষকে ত্রাণের আওতায় নিয়ে আসতে হবে।

খাগড়াছড়ি জেলার পুলিশ সুপার মোহাম্মদ আব্দুল আজিজ করোনা পরিস্থিতিতে নিজেদের জীবনের ঝুঁকি নিয়ে পুলিশ নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে মন্তব্য করে বলেন, কোভিড-১৯ নিয়ন্ত্রণের বিষয়টি গুরুত্বসহকারে দেখতে হবে। মাটিরাঙ্গায় সংক্রমণের উর্ধ্বগতি পরিলক্ষিত হচ্ছে। সচেতনতাই পারে করোনা থেকে নিজেদের বাঁচাতে।

খাগড়াছড়ির সিভিল সার্জন ডা. নুপুর কান্তি দাশ বলেন, করোনা পজিটিভদের তাদের নিজ বাড়িতে আইসোলেশনে রাখা হবে। স্বাস্থ্যকর্মীরা বাড়িতে গিয়ে চিকিৎসা সেবা প্রদান করবেন। এছাড়াও গ্রাম পর্যায়ে কোভিড পজিটিভ রোগী যেনো বাহিরে না যেতে পারে সেজন্য সংশ্লিষ্ট আইনশৃঙ্খলা বাহিনী দায়িত্ব পালন করবেন।

সভাপতির বক্তব্য মাটিরাঙ্গা উপজেলা নির্বাহী অফিসার (অ.দা) মিজ ফারজানা আক্তার ববি কেউ কারো বিরুদ্ধে সমালোচনা না করে সকলকে একে অপরের সহযোদ্ধা হিসেবে কাজ করার আহ্বান জানিয়ে বলেন, মাটিরাঙা আমাদের, মাটিরাঙ্গাকে করোনার সংক্রমন থেকে নিরাপদ রাখার দায়িত্বও আমাদের।

Print Friendly, PDF & Email
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

nineteen − two =

আরও পড়ুন