সাইকেলের চাকা দিয়ে পাখির মতো উড়ে যারা

fec-image

মুহাম্মদ আসিফ মোস্তফা। উড়ন্ত-দূরন্ত খেলোয়াড়। সম্ভাবনাময়ী এক প্রতিভার নাম। যার বাই সাইকেলে চালনায় চমৎকার নৈপুণ্যতা। দুই চাকার একটি চাকা মাটি থেকে আলগা করে সাইকেল চালানোর দৃশ্যটা সত্যি অসাধারণ।

চলন্ত সাইকেলে পা ঝুলিয়ে এক চাকা, আবার পেছনের একটি চাকাই যেন আসিফের চলার জন্য যথেষ্ট। সাইকেলের চাকা দিয়ে পাখির মতো উড়ে চলতেও পারে আসিফ।

খেলাটির নাম ‘সাইকেল স্টান্ট।’

আন্তর্জাতিক মানের এই খেলা এখন দেখা মেলে সাগরপাড়ের সী-ওয়ার্ল্ড সড়কে। ‘সাইকেল স্টান্ট’ টিমে রয়েছে ৮ জন। তাদের প্লাটফর্মের নাম এমএসভিজেড কক্সবাজার ডিভিশন।

৮ জনের টিম লিডার মুহাম্মদ আসিফ মোস্তফা। সে কক্সবাজার পৌর প্রিপ্যারেটরী উচ্চ বিদ্যালয়ের দশম শেণির মানবিক বিভাগের ছাত্র। এবারের এসএসসি পরীক্ষার্থী। সে কক্সবাজার পৌরসভার দক্ষিণ বাহারছড়ার বেলাল উদ্দিনের ছেলে।

মুহাম্মদ আসিফ মোস্তফা ‘সাইকেল স্টান্ট’ খেলছে প্রায় তিন বছর। সার্ফিংয়েও সে পারদর্শী।

স্লিমবড়ির এই ছেলেটা অদূর ভবিষ্যতে ‘সাইকেল স্টান্ট’ খেলায় জাতীয় তালিকায় নাম লিখাবে। পরিচিতির গণ্ডি পেরুবে বিশ্বক্রিড়ায়।-এমনটি প্রত্যাশা ক্রিড়ামোদিদের।

আগামী ১৬ ডিসেম্বর ‘স্টান্ট শো’ করার পরিকল্পনা মুহাম্মদ আসিফ মোস্তফার। স্পন্সর পেলে তার টিমকে আরো অনেক দূর এগিয়ে যেত পারবে বলে জানিয়েছে।

আসিফের টিমের আরেক দূরন্তপনা খেলোয়াড় আইমান নিহাল। সাধারণত আমরা দেখি, সিটে বসে হাতে সাইকেল চালানোর দৃশ্য। কিন্তু নিহালের ভিন্ন স্টাইল। চাইকেলের সিট ও হাতলে পা রেখে উড়াল দিতে বেশ পোক্ত। চলন্ত সাইকেলে পা ঝুলিয়ে এক চাকায় চলা, অসাধারণ। সাইকেল নিয়ে তার বিভিন্ন ধরনের কসরত রীতিমতো অবাক করার মতো।

আইমান নিহাল শহরের উত্তর টেকপাড়ার নুরুল হাকিম শাকিলের ছেলে এবং কক্সবাজার কেজি এন্ড মডেল হাই স্কুলের ব্যবসায় শিক্ষা শাখার ৯ম শ্রেণির ছাত্র। মাত্র দেড় বছরে সে অনেক কৌশল আয়ত্বে এনেছে। আগামীতে জাতীয় মানের ‘স্টান্ট তারকা’ হওয়ার স্বপ্ন আইমানের।

প্রসঙ্গত, সাইকেল স্টান্ট মূলত সাইকেল নিয়ে বিভিন্ন ধরনের কসরত দেখানো। যারা স্টান্ট করে তাদের বলা হয় স্টান্টার। সাধারণত স্টান্টারদের সাইকেলের ওপর নিয়ন্ত্রণ সাধারণ সাইকেল আরোহীর থেকে বেশি থাকে। যারা এটি করতে পারে তারা নিঃসন্দেহে প্রশংসার দাবিদার।

এমএসভিজেড কক্সবাজার ডিভিশন প্রতিষ্ঠা করেন আরএস ফাহিম চৌধুরী। প্রাথমিক ৮ জনের টিমে রয়েছে- মুহাম্মদ আসিফ মোস্তফা, আইমান নিহাল, মুহাম্মদ জুহেল, সাগর, আল জাওয়াত, সাইফুল, সাবাব, সোহান। প্রতিদিন বিকাল ৪টা থেকে সন্ধ্যা প্রায় ৬টা পর্যন্ত খেলা চলে।

টিমের সার্বিক দেখভাল করে মুহাম্মদ আসিফ মোস্তফা ও আইমান নিহাল।

Print Friendly, PDF & Email
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

1 × 1 =

আরও পড়ুন