সাঙ্গু সংরক্ষিত বন থেকে চোরাই পথে যাচ্ছে কাঠ: সেনাভিযানে অর্ধকোটি টাকার কাঠ জব্দ

fec-image

বান্দরবানের থানচি এলাকায় সংরক্ষিত বন উজাড় হচ্ছে দীর্ঘদিন ধরে। থানচি উপজেলা থেকে কাঠ পরিবহণের পারমিট বন্ধ থাকায় এবার ভিন্ন পথে কাঠ পাচার শুরু করছে বনদস্যুরা। বর্তমানে বান্দরবান সড়কের পরিবর্তে থানচি-আালীকদম সড়কপথে এসব কাঠ পাচার করা হচ্ছে।

এমন অভিযোগের প্রেক্ষিতে আলীকদম-থানচি সড়কের ২৬ কিলোমিটার এলাকার উন্ডিপাড়া থেকে ২৬৮ পিস অবৈধ কাঠ জব্দ করেছে সেনাবাহিনী। যার আনুমানিক বাজার মুল্য প্রায় অর্ধকোটি টাকা। বৃহস্পতিবার (২৯ এপ্রিল) সকালে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে আলীকদম সেনা জোনের অভিযানে এসব কাঠ জব্দ করা হয়।

আলীকদম সেনা জোনের জেসিও (ওয়ারেন্ট অফিসার) ইকরাম জানান, আলীকদম-থানচি সড়কের ২৬ কিলোমিটারের উন্ডিপাড়া এলাকায় কাঠ চোরের দল গর্জনসহ বিভিন্ন প্রজাতির গাছ কেটে পাচারের উদ্দেশ্যে সাইজ করে রাখে। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে সেনা সদস্যরা বৃহস্পতিবার অভিযান করে বিভিন্ন সাইজের ২৬৮ পিস কাঠ জব্দ করেন। জব্দকৃত কাঠগুলো লামা বন বিভাগের তৈন রেঞ্জকে হন্তান্তর করা হয়েছে।

উল্লেখ্য, সম্প্রতি সময়ে বান্দরবানের থানচির রিজার্ভ ফরেস্ট থেকে অবৈধভাবে কাঠ কাটার কারণে থানচি-বান্দরবান সড়ক পথে কাঠের পারমিট বন্ধ রয়েছে। তবে বন বিভাগের সঙ্গে গোপন আতাত করে বনদস্যুরা বিভিন্ন চোরাই পথে কাঠ পাচার অব্যাহত রেখেছে।

লামা বন বিভাগের তৈন রেঞ্জ কর্মকর্তা জহির উদ্দিন মো. মিনার চৌধুরী জানান, জব্দকৃত কাঠে পরিমাণ প্রায় দুই হাজার ঘনফুট হতে পারে। কাঠ জব্দের স্থানটি থানচি উপজেলার ৩৬২নং থানচি মৌজায়। কাঠগুলি নিলামের মাধ্যমে বিক্রিলব্ধ অর্থ সরকারি কোষাগারে জমা করা হবে।

উল্লেখ্য, সাঙ্গু ১৮৮০ সালে সংরক্ষিত বন হিসেবে ঘোষিত হয়। এই সংরক্ষিত বনে রয়েছে ৩৬ প্রজাতির স্তন্যপায়ী প্রাণী, ৪৮ প্রজাতির সরীসৃপ, ১৯ প্রজাতির উভচর এবং ১১ প্রজাতির বিরল পাখি।

Print Friendly, PDF & Email
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

one × 2 =

আরও পড়ুন