মিয়ানমারকে সাবমেরিন হস্তান্তর স্থগিত করেছে ভারত

fec-image

করোনাভাইরাস সংক্রমণের কারণে মিয়ানমার নৌবাহিনীর কাছে একটি কিলো-ক্লাস ডিজেল-ইলেকট্রিক অ্যাটাক সাবমেরিন (এসএসকে) হস্তান্তর স্থগিত করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে ভারতীয় নৌবাহিনী।

সূত্র জানায়, রাশিয়ার তৈরি প্রজেক্ট ৮৭৭ (কিলো-ক্লাস) সাবমেরিন আইএনএস সিন্ধুবীর মিয়ানমার নৌবাহিনীকে হস্তান্তরের প্রস্তুতি নিচ্ছিল ভারত। এ লক্ষ্যে বিশাখাপট্টমের হিন্দুস্তান শিপইয়ার্ড লিমিটেডে সাবমেরিনটির প্রয়োজনীয় মেরামত কাজও করা হয়েছে।

এখানে সাবমেরিন প্রশিক্ষণ ঘাঁটিতে মিয়ানমারের সাবমেরিন বাহিনীকে প্রশিক্ষণ দেয়ার ব্যাপারে ভারত ও মিয়ানমারের মধ্যে চুক্তি হয়।

মিয়ানমারের কাছে সাবমেরিন হস্তান্তরের সঙ্গে মিয়ানমার নৌবাহিনীকে এর পরিচালনা ও রক্ষণাবেক্ষন সম্পর্কিত প্রশিক্ষণের বিষয়টিও জড়িত। তবে সাবমেরিনটি লিজ দেয়া হচ্ছে নাকি স্থায়ীভাবে বিক্রি করা হচ্ছে তা স্পষ্ট নয়।

ভারত ১৯৮৬ থেকে ২০০০ সালের মধ্যে যে দশটি কিলো-ক্লাস সাবমেরিন কমিশন করে তার একটি হলো সিন্ধুবীর। ২০১৩ সালে ডকইয়ার্ডের গোলাবারুদ গুদামে বিস্ফোরণ ঘটলে একটি কিলো-ক্লাস সাবমেরিন সিন্ধুরক্ষক ধ্বংস হয়।

মিয়ানমারকে একটি হস্তান্তর করার পর ভারতীয় নৌবাহিনীর হাতে এ ধরনের আর আটটি সাবমেরিন থাকবে।

এই অঞ্চলে চীনের প্রভাব মোকাবেলার জন্য মিয়ানমারের সঙ্গে নৌ সহযোগিতা বাড়াচ্ছে ভারত। দুই দেশের মধ্যে উচ্চ পর্যায়ের বেশ কিছু বিনিময় ও বৈঠকও হয়েছে।

গত বছর আগস্টে মিয়ানমারের সেনবাহিনী প্রধান সিনিয়র জেনারেল মিন অং লাইং ভারত সফর করেন।

দুই দেশের মধ্যে প্রতিরক্ষা সম্পর্ক জোরদার করা নিয়ে জেনারেল লাইংয়ের সঙ্গে আলোচনা হয়েছে বলে ভারতীয় প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় জানিয়েছে।

Print Friendly, PDF & Email
ঘটনাপ্রবাহ: নৌবাহিনী, ভারত, মিয়ানমার
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

3 × 5 =

আরও পড়ুন