১৭ কোটি মানুষের আস্থার প্রতীক প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা : কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা এমপি

fec-image

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ডাকে বাংলাদেশের স্বাধীনতা অর্জন হয়েছে উল্লেখ করে ভারত প্রত্যাগত শরণার্থী বিষয়ক টাস্কফোর্সের চেয়ারম্যান ও খাগড়াছড়ি জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা এমপি বলেছেন, আজ তার কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশের ১৭ কোটি মানুষের আস্থার প্রতীক। বাবার স্বপ্ন পুরনে শেখ হাসিনা যা বলেন তা করেন। শেখ হাসিনা সরকার যতদিন থাকবে, দেশের মানুষ ততদিন নিরাপদ থাকবে।

তিনি বলেন, উন্নয়নের গতি ধরে রাখতে আগামীতেও শেখ হাসিনার বিকল্প নেই। বাংলাদেশের উন্নয়নের স্বার্থে শেখ হাসিনাকে ক্ষমতায় রাখতে যুবলীগের নেতাকর্মীদের এক হয়ে কাজ করতে হবে। নিজেদের বিভেদ ভুলে পরিচ্ছন্ন, মাদকমুক্ত ও সন্ত্রাসমুক্ত যুবলীগ গড়ে তোলার আহবান জানান কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা এমপি। তিনি বলেন, যুবলীগের প্রতিটি নেতাকর্মীকে আগামী দিনের নেতৃত্ব দেয়ার যোগ্য হিসেবে গড়ে তুলতে হবে।

বুধবার (১১ নভেম্বর) বিকালের দিকে যুবলীগের ৪৮তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে মাটিরাঙ্গার জলপাহাড় প্রাঙ্গণে মাটিরাঙ্গা উপজেলা যুবলীগ আয়োজিত কর্মী সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্য তিনি এসব কথা বলেন।

মাটিরাঙ্গা উপজেলা যুবলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মো. রাকিবুল হাসানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত কর্মী সমাবেশে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন খাগড়াছড়ি জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নির্মলেন্দু চৌধুরী, মাটিরাঙ্গা উপজেলা পৌরসভার মেয়র মো. শামছুল হক, মাটিরাঙ্গা উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এম হুমায়ুন মোর্শেদ খাঁন, মাটিরাঙ্গা উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সুবাস চাকমা, মাটিরাঙ্গা উপজেলা চেয়ারম্যান মো. রফিকুল ইসলাম, মাটিরাঙ্গা উপজেলা যুবলীগের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি মো. এরশাদুজ্জামান, খাগড়াছড়ি জেলা যুবলীগের সভাপতি যতন কুমার ত্রিপুরা ও খাগড়াছড়ি জেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক কে. এম ইসমাইল হোসেন প্রমুখ। কর্মী সমাবেশে মাটিরাঙ্গা উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক জহিরুল ইসলাম স্বাগত বক্তব্য রাখেন।

আওয়ামী লীগের প্রতি দেশবাসীর ভালোবাসা দেখে কুচক্রি বিএনপি-জামায়াত দেশবাসীকে বিভ্রান্ত করার চেষ্টা করছে উল্লেখ করে ভারত প্রত্যাগত শরণার্থী বিষয়ক টাস্কফোর্সের চেয়ারম্যান কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা এমপি বলেন, মিথ্যাচারের মধ্য দিয়ে বিএনপির জন্ম হয়েছে। জনগনের প্রতি তাদের কোন কমিটমেন্ট নেই। জনগনের প্রতি কমিটমেন্ট নেই বলেই ২০০১ সালে ক্ষমতায় এসে আওয়ামীলীগের নেতাকর্মীদের হত্যা করেছে। মিথ্যা মামলা দিয়ে এলাকাছাড়া করেছে।

খাগড়াছড়ি জেলা আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক (প্রস্তাবিত) চন্দন কুমার দে, মাটিরাঙ্গা সদর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান হিরনজয় ত্রিপুরা, খাগড়াছড়ি জেলা যুবলীগের সভাপতি যতন কুমার ত্রিপুরা, সহ-সভাপতি মেহেদী হাসান হেলাল, মাটিরাঙ্গা পৌর আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি এমএম জাহাঙ্গীর আলম, মাটিরাঙ্গা পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি মো. হারুনুর রশীদ ফরাজী ও মাটিরাঙ্গা পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আলাউদ্দিন লিটন প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

এর আগে যুবলীগের নেতাকর্মীদের সাথে নিয়ে প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর কেক কাটেন ভারত প্রত্যাগত শরণার্থী বিষয়ক টাস্কফোর্সের চেয়ারম্যান ও খাগড়াছড়ি জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা এমপি।

Print Friendly, PDF & Email
ঘটনাপ্রবাহ: কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা, প্রধানমন্ত্রী, বঙ্গবন্ধু
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

two × one =

আরও পড়ুন