প্রধানমন্ত্রী নারীদের প্রাধান্য দিয়ে নানা উদ্যোগ গ্রহণ করছেন: তথ্য ও প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী

fec-image

তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহ্‌মেদ পলক এমপি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা প্রতিটি ক্ষেত্রে নারীদের প্রাধান্য দিয়ে উদ্যোগ গ্রহণ করছেন। দেশে বিচারপতি হতে শুরু করে সকল পর্যায়ে নারীর উপস্থিতি রয়েছে।

“উদ্যোক্তা সংস্কৃতি ও উদ্ভাবনী পরিবেশ তৈরিতে নারীর ভূমিকা” প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে মঙ্গলবার (১৯ নভেম্বর) রাজধানীর আগারগাঁও আইসিটি টাওয়ারে অনুষ্ঠিত “নারী উদ্যোক্তা দিবস- ২০১৯” উপলক্ষে একটি বিশেষ সেমিনারে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ সব কথা বলেন।

সেমিনারটি আয়োজন করে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের আওতায় বাংলাদেশ কম্পিউটার কাউন্সিল এর অধীনে “উদ্ভাবন ও উদ্যোক্তা উন্নয়ন একাডেমী প্রতিষ্ঠাকরণ প্রকল্প (iDEA)।

ওয়ার্ল্ড ইকোনমিক ফোরামের ‘বৈশ্বিক লিঙ্গবৈষম্য ২০১৮’ প্রতিবেদনের উদ্ধৃতি দিয়ে তিনি বলেন নারী-পুরুষের সমতার দিক দিয়ে দক্ষিণ এশিয়ায় সবার শীর্ষে রয়েছে বাংলাদেশ। বাংলাদেশ তার সার্বিক লিঙ্গবৈষম্য ৭২ শতাংশ কমিয়ে আনতে পেরেছে। বাংলাদেশে প্রাথমিক এবং মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে ছেলেদের তুলনায় মেয়েদের এনরোলমেন্টের সংখ্যা বেশি।

তিনি বলেন, প্রায় ১ কোটি ৩০ লক্ষ মায়েদের কাছে মোবাইল ফাইন্যান্সিয়াল সিস্টেমের মাধ্যমে শিক্ষাবৃত্তির টাকা “মায়ের হাসিঁ” প্রকল্পের মাধ্যমে পৌছে দেওয়া হচ্ছে; বছরের প্রথম দিন ৩৮ কোটি বই সাড়ে ৪ কোটি ছাত্র-ছাত্রীদের কাছে বিনামূল্যে পৌছে দেওয়া হচ্ছে। এর ফলে বই কেনার পয়সা লাগছে না, নারী শিক্ষার্থীদের পড়াশুনার জন্যে বেতন দিতে হচ্ছে না, এমনকি স্কুলে টিফিনের ব্যবস্থাও করে দিয়েছে জননেত্রী শেখ হাসিনা। ফলে এখন প্রাথমিক ও মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে ছেলেদের তুলনায় মেয়েদের সংখ্যাও বেড়ে গেছে।

প্রতিমন্ত্রী পলক আরও বলেন, প্রধানমন্ত্রী সব সময় একটি কথা বলেন আর সেটা হল নারীর ক্ষমতায়নের মূলভিত্তি হল নারীর আর্থিক স্বাধীনতা। অর্থাৎ যদি একজন মেয়ে আর্থিকভাবে স্বচ্ছল হয় তখনই কেবল সম্ভব তার ক্ষমতায়নটাকে নিশ্চিত করা। এছাড়া তিনি আরো বলেন যে সরকার নারীদের জন্য মাতৃত্বকালীন ভাতা প্রচলন করেছে।

প্রতিমন্ত্রী সবশেষে দেশে একটি স্টার্টআপ কালচার তৈরির জন্য নারীপুরুষ সকলকে সমানভাবে কাজ করার আহ্বান জানান ও একই সাথে তরুণ নারী উদ্যোক্তাদের তিনি স্টার্টআপ বাংলাদেশ- iDEA প্রকল্পে তাদের উদ্ভাবনী আইডিয়া দাখিলের জন্য অনুপ্রাণিত করেন এবং এই ক্ষেত্রে স্টার্টআপ বাংলাদেশ থেকে প্রয়োজনীয় সকল সহযোগিতার আশ্বাস প্রদান করেন।

প্রতিবছর ১৯ নভেম্বর পালিত হয় “নারী উদ্যোক্তা দিবস”। নারীদের উদ্যোক্তা হিসেবে আত্নপ্রকাশ ও তাদের উদ্ভাবনী মেধা শক্তিকে কাজে লাগিয়ে উদ্যোক্তা হিসেবে সমাজের উন্নয়নে এগিয়ে আসার আহ্বানে এবং অনুপ্রেরণাদানের লক্ষ্যে এই দিবস সারা বিশ্বে উদযাপন করা হয়। এই দিবসে বিভিন্ন আয়োজনের মাধ্যমে নারীদের তাদের সৃজনশীল চিন্তা ও উদ্ভাবনী মেধা বিকাশের পথকে পরিচয় করায় এবং একই সাথে ভবিষ্যতে কর্মের মাধ্যমে তারা সারা বিশ্বের বুকে যাতে অবদান রাখতে পারে সেই সাহস যোগায়। পুরুষের পাশাপাশি নারীরাও সমাজের ও জাতির উন্নয়নের পথযাত্রী।

এই দিবস কর্মক্ষেত্রে তথা বিভিন্ন উদ্যোগ গ্রহণে নারী-পুরুষ এর দূরত্ব কমিয়ে আনার পাশাপাশি সমাজে সমতা ফিরিয়ে আনা ও নারী উদ্যোক্তা তৈরিতে ভূমিকা রাখছে। এই বিষয়গুলোকে সামনে রেখে “উদ্ভাবন ও উদ্যোক্তা উন্নয়ন একাডেমী প্রতিষ্ঠাকরণ প্রকল্প (iDEA) তার স্টার্টআপ বাংলাদেশ ব্যানারে আয়োজন করে এই সেমিনার।

অনুষ্ঠানে পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রণালয়ের উপ-মন্ত্রী হাবিবুন নাহার এমপি, বাংলাদেশ হাইটেক পার্ক অথরিটির ব্যবস্থাপনা পরিচালক হোসনে আরা বেগম, বাংলাদেশ কম্পিউটার কাউন্সিল (বিসিসি) এর নির্বাহী পরিচালক পার্থপ্রতিম দেব, বাংলাদেশ পোশাক প্রস্তুতকারক ও রপ্তানিকারক সমিতি (বিজিএমইএ) এর সভাপতি ড. রুবানা হক এবং ই-কমার্স এ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (ই-ক্যাব) এর সভাপতি শমী কায়সার উপস্থিত ছিলেন।

অনুষ্ঠানটিতে সভাপতিত্ব করেন “উদ্ভাবন ও উদ্যোক্তা উন্নয়ন একাডেমী প্রতিষ্ঠাকরণ প্রকল্প” (iDEA) এর পরিচালক (অতিরিক্ত সচিব) সৈয়দ মজিবুল হক।

Print Friendly, PDF & Email
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

5 × 3 =

আরও পড়ুন