বাঘাইছড়িতে এলজিইডির কাজে সাড়ে তিন কোটি টাকার দুর্নীতির অভিযোগ

fec-image

রাঙ্গামাটি জেলার বাঘাইছড়ি উপজেলার ১.৬৬ কিলোমিটার থেকে ৫.৪ কিলোমিটার সড়কে কাজের ব্যপক অনিয়ম ও দুর্নীতির অভিযোগ পাওয়া গেছে। বাঘাইছড়ি উপজেলার তালুকদার পাড়া হতে রাবার বাগান পর্যন্ত এলাকায়  স্থানীয় সরকার ও প্রকৌশল অধিদপ্তরের উদ্যোগে এ কাজ বাস্তবায়নে কার্যাদেশ প্রদান করা হয়েছে ইউটি মং নামে ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানকে।

প্রায় তিন কোটি ৫৭ লক্ষ টাকার কাজ ইউটি মং লাইসেন্স এর স্বত্তকারী কাজ করছেন ঠিকাদার মো জসিম ও তার ভাই মো গিয়াস উদ্দিন রাঙামাটি। এই কাজে প্রকৌশলীদের কোন প্রকার তদারকি ছাড়াই ঠিকাদারের মনগড়া মত কাজ হচ্ছে বলে অভিযোগ করছেন স্থানীয়রা।

নিম্নমানের পাথর ও নিম্নমানের বিটুমিন ব্যবহারের অভিযোগও রয়েছে । সরকারী সিডিউল মোতাবেক বাংলাদেশি বিটুমিন ১০০/৮০ ব্যবহারের কথা রয়েছে। সেখানে ব্যাবহার করাে হচ্ছে নিন্ম মানের বিটুমিন ৬০/৭০ যাহা এই বিটুমিন টি ব্যবহারের অনুপযোগী। পড়ানো হচ্ছে অবৈধ কাঠ। ঠিকমতো মিক্সার না করেই কার্পেটিং এর কাজ করা হচ্ছে। এতে করে সারোয়াতলী ইউনিয়ন ও আমতলী ইউনিয়নের যোগাযোগের একমাত্র সড়ক পথটির কার্পেটিং উঠে গেলে সড়ক পথটি অনুপোযোগী হয়ে পড়বে। বাড়বে জনদূর্ভোগ- এমন আশঙ্কা সচেতন নাগরিকদের।

স্থানীয়দের অভিযোগের ভিত্তিতে কাজের স্থানে গেলে ঘটনার সত্যতা পাওয়া যায় এবং নিম্নমানের বিটুমিন গুলো পার্শ্ববর্তী জঙ্গলে রক্ষিত অবস্থা পাওয়া যায়। নিম্নমানের কাজ ও ভিটামিন ব্যবহারের বিষয়ে ঠিকাদার গিয়াস উদ্দিনের কাছে জানতে চাইলে তিনি উত্তেজিত হয়ে পড়েন। নিন্ম মানের বিটুমিন ব্যাবহার বিষয় জানতে চাইলে তিনি বলেন এগুলি ইঞ্জিনিয়ার দেখেছে এই বিটুমিনগুলো কাজের ষ্টিমিটে ধরা রয়েছে তাই আমরা এগুলো দিয়ে কাজ করছি। কাজের স্টিমিট দেখতে চাইলে তিনি প্রতিবেদককে উল্টো প্রশ্ন করে বলেন আপনি স্টিমিট দিয়ে ঠিকাদারি করবেন না কি?

স্থানীয় ওয়ার্ড কাউন্সিলর নুরুল হক তালুকদার বলেন, কাজের শুরু থেকেই এই অনিয়মের কথা তাদের বললেও তারা কোন কর্ণপাত করছে না। তাই তিনি এই কাজের যথাযথ কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করেন।

বাঘাইছড়ি উপজেলা প্রকৌশলী মো মনিরুজ্জামানের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন লোকবলের অভাব তাই ঠিকাদাররা দুর্নীতি করার সুযোগ পাচ্ছে বলে। আমি ঠিকাদারকে ডেকে নিম্ন মানের বিটুমিন গুলো সরিয়ে ফেলার নির্দেশ দিয়েছি। অবৈধ কাঠ বাতিল করে জুট পুড়ানোর নির্দেশ দিয়েছি।

Print Friendly, PDF & Email
ঘটনাপ্রবাহ: বাঘাইছড়ি, রাঙ্গামাটি
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

17 − 2 =

আরও পড়ুন