সিরিজে যেকোনো চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করতে প্রস্তুত-মাহমুদুল্লাহ

fec-image

ডোমিনিকার উইন্ডসর পার্কে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে আজ শনিবার রাতে তিন ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজ শুরু করছে বাংলাদেশ। সিরিজ জয়ের জন্য মাঠে নামবে দল- এমনটাই বললেন বাংলাদেশ অধিনায়ক মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ। সিরিজে যেকোনো চ্যালেঞ্জ নিতে তার দল প্রস্তুত বলে জানান তিনি।

টি-টোয়েন্টিতেও সময়টা ভালো যাচ্ছে না বাংলাদেশের। সর্বশেষ ১০ ম্যাচের মধ্যে একটিতে জয় টাইগারদের। গত মার্চে ঘরের মাঠে আফগানিস্তানের বিপক্ষে দুই ম্যাচের সিরিজ ১-১ সমতায় শেষ করেছিলো বাংলাদেশ। ওই সিরিজের জয়টিই, সর্বশেষ ১০ ম্যাচের মধ্যে একমাত্র। তবে ওয়েস্ট ইন্ডিজের মাটিতে সিরিজ জয়ের স্বপ্ন দেখছে বাংলাদেশ দল। সিরিজে ভালো করতে যেকোনো চ্যালেঞ্জ মোকাবেলাতেও প্রস্তুত তারা।

বিশ্বকাপের প্রস্তুতি এখান থেকেই শুরুর কথা বললেন তিনি, ‘এখান থেকেই আমাদের প্রস্তুতি শুরু হবে। টি-টোয়েন্টি খুব অল্প সময়ের। আপনাকে কন্ডিশনের সাথে দ্রুত মানিতে নিতে হবে। সেই সাথে নিজেদের দক্ষতা প্রমাণ করতে হবে। আমরা ইতিবাচক মানসিকতা নিয়েই এগোচ্ছি। আমরা নির্ভিক ক্রিকেট খেলতে চাই। যে চ্যালেঞ্জই আসুক আমরা মোকাবেলা করতে চাই। দল হিসেবেই আমাদের জন্য এটা সিরিজ জয়ের সুযোগ, বাংলাদেশের জন্য জেতার সুযোগ।’

ঘরের মাঠে ফেভারিট হলেও, বিদেশের মাটিতে নিজেদের শক্তভাবে মেলে ধরতে পারে না বাংলাদেশ। তাই বিদেশের মাটিতে ভালো করতে চান মাহমুদুল্লাহ। তিনি বলেন, ‘হোম কন্ডিশনে আমরা অনেক বেশি ধারাবাহিক। অ্যাওয়ে ম্যাচে উন্নতির ঘাটতি এখনো আছে। এখানে আরো ভালো হতে হবে, এটা আমি স্বীকার করি। বেশ কয়েকজন খেলোয়াড় আছে যারা এখনো তরুণ-অনভিজ্ঞ। তাদের সময় দিতে হবে। বিশ্বকাপের আগে আমরা আরো ১০-১২টি ম্যাচ খেলবো। নতুনরা সুযোগ কাজে লাগাতে পারলে, তাদের জন্যই ভালো হবে, দলের জন্যও ভালো হবে।’

পবিত্র হজের কারণে ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরে নেই দলের সেরা মিডল-অর্ডার ব্যাটার মুশফিকুর রহিম। মুশফিকের বিকল্প হিসেবে খেলোয়াড়ের জন্য বড় সুযোগ দেখছেন মাহমুদুল্লাহ। তিনি বলেন, ‘মুশফিক আমাদের অভিজ্ঞ ক্যাম্পেইনার। তবে এটা ঠিক, তার জায়গা পূরণ করার ভালো একটা সুযোগ। তার জায়গায় যে সুযোগ পাবে, তার জন্য এটা অনেক ভালো সুযোগ।’

তিনি আরো বলেন, ‘সাকিব, লিটন, আফিফ, সোহান, মোসাদ্দেক ও আমি আছি। শেখ মাহেদি আছে। আমি মনে করি, আমাদের ব্যাটিংয়ের গভীরতা ভালো। আমাদের বোলিং আক্রমণও খুব ভালো, বৈচিত্র্য আছে। আশা করি অনেক চ্যালেঞ্জিং সিরিজ হবে।’

ওপেনিং হিসেবে দেখা যেতে পারে দুই তরুণ মুনিম শাহরিয়ার ও এনামুল হক বিজয়কে।

আফগানিস্তানের বিপক্ষে সর্বশেষ সিরিজে মোহাম্মদ নাইমের সাথে ওপেনার ছিলেন মুনিম। এবার দলে নাইম নেই। সর্বশেষ ডিপিএলে ওপেনার হিসেবে রানের ফুলঝুড়ি ফুটিয়েছেন বিজয়। ওপেনার হিসেবে প্রথম টি-টেয়েন্টিতে দেখা যেতে পারে তাকে।

মাহমুদুল্লাহ বলেন, ‘মুনিম এখনো দলে নতুন। বিজয় অনেকদিন পর মাত্র এলো। তাদের ভালো সময় দিতে হবে। তারা যেন নিশ্চিন্তে খেলতে পারে এই নিশ্চয়তা দেয়া টিম ম্যানেজমেন্ট ও আমার দায়িত্ব। সঠিকভাবে যেন সুযোগ পায়। এটা নিশ্চিত করা জরুরি। আমার তরফ থেকে আমি এটা চেষ্টা করবো। ঠিকভাবে সুযোগ পেয়ে যেন নিজেদের খেলাটা খেলতে পারে। আশা করি তারা সুযোগ পাবে ও ভালো করবে।’

সেন্ট লুসিয়া থেকে ডোমিনিকায় এসে ঠিক-ঠাক নিজেদের অনুশীলন করতে পারেনি বাংলাদেশ। বৃষ্টির কারণে অনুশীলনে ঘাম ঝড়াতে পারেনি তারা। অনুশীলন না হওয়ায় দলকে মানসিকভাবে প্রস্তুত থাকতে বলেছেন মাহমুদুল্লাহ, ‘আজ বৃষ্টি হয়েছে, তাই অনুশীলনের সুযোগ হয়নি। সেন্ট লুসিয়ায় অনুশীলনে ফুটবল খেলা ও ৪০ মিনিটের ফিল্ডিং সেশন করেছি। আমি ছেলেদের বলেছি- খেলোয়াড়রা মানসিকভাবে প্রস্তুত থাকলে, ভালো করার সুযোগ থাকবে।’

Print Friendly, PDF & Email
ঘটনাপ্রবাহ: চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা, মাহমুদুল্লাহ, সিরিজ
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

two × four =

আরও পড়ুন