সেনাবাহিনীর সেরা সুন্দরী অফিসার

fec-image

ডেস্ক নিউজ:

ঢাকা: সেনাবাহিনীতে নারীদের অংশগ্রহণের ইতিহাস অনেক প্রাচীন। তবে আধুনিক সেনাবাহিনী বলতে যা বুঝায় অর্থাৎ নিয়মিত বাহিনীতে অস্ত্রধারী নারীর অংশগ্রহণের ইতিহাস কমপক্ষে ৪০০ বছর আগের। বিভিন্ন দেশে, সংস্কৃতিতে নারীর অস্ত্রধারণের ইতিহাস আছে। সুপ্রাচীন কাল থেকেই নারীরা যুদ্ধক্ষেত্রে নানাভাবে অংশ নিয়ে আসছে। তবে সম্মুখ যুদ্ধে অংশ নেয়ার নজির খুব পুরনো নয়। আধুনিক সেনাবাহিনীতে নারীদের অংশগ্রহণ ব্যাপকভাবে বেড়েছে। এরকমই কিছু নারী সেনাবাহিনীর পরিচিতি এটি। এরা শুধু দক্ষতার কারণে নয়, শারীরিক সৌন্দের্যের কারণেও আলোচিত। সুন্দর মুখটার জন্যই তারা মিডিয়ার কল্যাণে বিশ্ববাসীর নজরে এসেছে।

 

মার্কিন সেনাবাহিনী

8008809

সেনাবাহিনীর সেরা সুন্দরী ললনা US Female Soldier. সেই বৈপ্লবিক সংগ্রামের শুরু থেকেই মার্কিন সেনাবাহিনীতে নারীরা সংযুক্ত হয়েছে। তবে সেসময় তাদের পুরুষের পাশাপাশি দাঁড়াতে হলে ছদ্মবেশ নিতে হতো যাতে নারী হিসেবে চেনা না যায়। এখন তারা সরাসরি সহায়ক শক্তি হিসেবে কাজ করে। ২০১২ সালের পরিসংখ্যান অনুযায়ী মার্কিন সেনাবাহিনীর ১৪ শতাংশ নারী। ১ লাখ ৬৫ হাজার নারী সেনা সদস্য যেখানে আরো ৩৫ হাজার রয়েছেন যারা কর্মকর্তা পর্যায়ের।

 

চেক প্রজাতন্ত্র

Czesh-Republic-Female-Soldier

সেনাবাহিনীর সেরা সুন্দরী ললনা Czesh Republic Female Soldierচেকস্লোভাকিয়া সেনাবাহিনীতে নারীদের অংশগ্রহণের অনুমতি ছিল না। তবে দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পর এর অনুমতি দেয়া হয়। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধ চলাকালে নারীরা যুদ্ধক্ষেত্রে চিকিৎসা সেবা, ফোন অপারেটর এবং বিমানবিধ্বংসী সেনা হিসেবে অংশ নেয়। তারা সোভিয়েট ইউনিয়নের পক্ষে চেকস্লোভাকিয়া ইউনিট, যুক্তরাজ্যের ব্রিটিশ নারী সহকারী বিমান বাহিনী এবং মধ্যপ্রাচ্যে ব্রিটিশ বাহিনীতে কাজ করে। বর্তমানে এ বাহিনী চেক আর্মড ফোর্সেসে একীভূত হয়েছে। বিশেষ করে বিমান বাহিনীতে মেয়েরা যোগ্যতা প্রমাণ করতে পেরেছে।

 

পোল্যান্ড সেনাবাহিনী

Polish-Army

সেনাবাহিনীর সেরা সুন্দরী ললনা Polish Armyপোল্যান্ড সেনাবাহিনীতে নারীদের সংখ্যা আড়াই হাজার। এখানে নারী ও পুরুষ সদস্যদের সমান অধিকার নিশ্চিত করা হয়। নারীরা পদাতিক, নৌ, বিমান এবং বিশেষ বাহিনীতে অংশগ্রহণে সমান সুযোগ পায়।

 

ব্রিটিশ আর্মি

UK-Female-Soldier

সেনাবাহিনীর সেরা সুন্দরী ললনা UK Female Soldier১৯৯০ এর দশকে ব্রিটিশ নারীদের ব্রিটিশ আর্মড ফোর্সেসে সংযুক্ত করা হয়। তবে তারা এখনো সেনাবাহিনীর কমব্যাট ইউনিট, রয়্যাল মেরিন এবং রয়্যাল এয়ারফোর্স রেজিমেন্টে যোগ দিতে পারে না।

 

পাকিস্তান আর্মি

Ayesha Farooq, 26, Pakistan's only female war-ready fighter pilot, gives the thumb-up sign from the cockpit of a Chinese-made F-7PG fighter jet at Mushaf base in Sargodha

সেনাবাহিনীর সেরা সুন্দরী ললনা Ayesha Pakistans first female fighter pilotইসলামি বিশ্বের মধ্যে একমাত্র পাকিস্তান সেনাবাহিনীতেই মেয়েরা সম্মুখ সমরে অংশ নিতে পারে। ১৯৪৭ সালে স্বাধীন পাকিস্তান প্রতিষ্ঠার পর থেকেই মেয়েরা সেনাবাহিনীতে যোগ দেয়ার সুযোগ পায়। বর্তমানে উল্লেখযোগ্য সংখ্যক নারী এই সেনাবাহিনীতে কর্মরত। ২০০৬ সালে প্রথম কোনো পাকিস্তানি নারী আকাশপথে সম্মুখ সমরে অংশ নেন। তবে নৌবাহিনীতে তারা সম্মুখ সমরে অংশ নিতে পারে না।

 

ইসরায়েল আর্মি

Female-Soldiers-Unload-their-Weapons-e1411125343605

ইসরায়েলই একমাত্র দেশ যারা মেয়েদের সরাসরি যুদ্ধক্ষেত্রে পদাতিক বাহিনীতে সম্মুখ সমরে যুদ্ধ করতে পাঠায়। নিয়ম অনুযায়ী, ১৮ বছর বয়স পূর্ণ হলে সেনাবাহিনীতে যোগ দেয়া বাধ্যতামূলক। এ কারণে ইসরায়েল সেনাবাহিনীতে যথেষ্ট সংখ্যক মেয়ে আছে। সর্ব সাম্প্রতিক পরিসংখ্যান অনুযায়ী, ইসরায়েল ডিফেন্স ফোর্সে ৩১ শতাংশই নারী। এই সংখ্যা ব্রিটেনের তিন গুণ।

 

গ্রিক আর্মি

Greek-Woman-soldier

সম্প্রতি গ্রিস ১৮ বছরের বেশি বয়সী ‍পুরুষ নাগরিকদের সেনাবাহিনীতে ৯ মাস কাজ করা বাধ্যতামূলক করা হয়েছে। তবে মেয়েদের অংশগ্রহণ এখানে বাধ্যতামূলক নয়। ইচ্ছে করলে তারা যোগ দিতে পারে।

 

অস্ট্রেলিয়ান আর্মি

Austrailian-woman-on-the-frontline

১৮৯৯ সাল থেকে অস্টেলিয়া সেনাবাহিনীতে নারীরা অংশ নিচ্ছে। তবে দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের আগে পর্যন্ত তাদের কাজ সেনাদের চিকিৎসা সেবার মধ্যে সীমাবদ্ধ ছিল। ১৯৪১-৪২ সালে র‌য়্যাল অস্টেলিয়ান নেভি, অস্ট্রেলিয়ান আর্মি ও রয়্যাল অস্ট্রেলিয়ান এয়ার ফোর্স নারীদের জন্য আলাদা শাখা খোলে। তবে তারা সহায়ক বাহিনী হিসেবে মর্যাদা পেয়েছিল। ১৯৭০ এর দশকের শেষের দিকে এবং আশির দশকের প্রথম দিকে মেয়েদের মূল বাহিনীতে অন্তর্ভুক্ত করা হয় এবং সম্মুখ সমরেও তাদের পাঠানো হয়।

 

রাশিয়ান আর্মি

Russian-Army-Girl

একটা জনপ্রিয় মত হচ্ছে, রুশ মেয়েরা বিশ্বের সেরা সুন্দরী। তাদের নিয়ে বহু রোমান্টিক গল্পও আছে। সেনাবাহিনীতেও এই সুন্দরীদের যথেষ্ট অংশগ্রহণ আছে। রাশিয়ার ইতিহাসে বিশেষ করে গ্রেট প্যাট্রিয়টিক ওয়ারে তাদের অবদান উল্লেখযোগ্য

 

রোমানিয়ান আর্মি

Romanian-Female-Soldier

পূর্ব ইউরোপের দেশ রোমানিয়ার সেনাবাহিনীতেও উল্লেখযোগ্য সংখ্যক নারী আছে। তবে এ বাহিনীতে নাকি সবচেয়ে সুন্দরীদের নিয়োগ দেয়া হয়। আগ্নেয়াস্ত্রের যুদ্ধে এই দেশ অনেক দেশের চেয়ে পিছিয়ে। তবে তাদের সবচেয়ে বড় অস্ত্র বলে মনে করা হয় অ্যাপল বিটার- রোমানিয়ান আবেদনময়ী!

Print Friendly, PDF & Email
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

14 − 12 =

আরও পড়ুন