অনন্ত জলিলের বিরুদ্ধে মামলা করছেন ইরানি পরিচালক মুর্তজা

fec-image

প্রযোজক-অভিনেতা অনন্ত জলিলের বিরুদ্ধে আন্তর্জাতিকভাবে আইনি ব্যবস্থা নিতে যাচ্ছে ইরানি পরিচালক মুর্তজা অতাশ জমজম।

বৃহস্পতিবার (১৮ আগস্ট) ইনস্টাগ্রামে এক পোস্টের মাধ্যমে অনন্তর বিরুদ্ধে চুক্তিভঙ্গের নানা অভিযোগ করেছেন এই নির্মাতা। জানান, তেহরানে অভিযোগ নিবন্ধন এবং বাংলাদেশের আদালতে তিনি মামলা করতে যাচ্ছেন।

তার প্রোফাইল থেকে একটি ইনস্টাগ্রাম পোস্টে পরিচালক মুর্তজা লিখেছেন, ‘‘অনন্ত জলিল আমাদের সঙ্গে চুক্তি এবং প্রতিশ্রুতি ভঙ্গ করেছেন। ছবিটির অর্ধেক প্রযোজনা আমাদের। বাকিটা তার। তিনি আমাদের অর্ধেক প্রযোজিত ছবি নষ্ট করে দিয়েছেন। ‘ডে’ (রুজ) ছবিটি নিয়ে চুক্তিতে যেসব পরিকল্পনা করা হয়েছিল তার কিছুই ঘটেনি। তিনি আমাদের প্রযোজনা নষ্ট করে দিয়েছেন। তিনি তার মতো করে ছবিটি চালিয়েছেন। নিজের মতো করে। এটা সরাসরি আমাদের প্রধান চুক্তির লঙ্ঘন। অথচ আমি এই আয়োজনের প্রধান প্রযোজক।’’

বাংলাদেশের সঙ্গে কাজ করার বিষয়ে তিনি লেখেন, ‘আমি বাংলাদেশের সাথে একটি চলচ্চিত্র নির্মাণের সিদ্ধান্ত নেওয়ার একমাত্র কারণ ছিল, ইরানি ও বাঙালি জনগণের মধ্যে একটি শক্তিশালী বন্ধন তৈরি করা। বিভিন্ন দিক দিয়ে সমৃদ্ধ সংস্কৃতি বিনিময় করা এবং একে অপরকে আরও ভালোভাবে জানা। কারণ, আমি বিশ্বাস করি, শিল্পই একমাত্র সর্বজনীন ভাষা, যা সীমানা ভেঙে দেয়।’

বিষয়টি নিয়ে তিনি আরও লেখেন, ‘আমি বাঙালি সংস্কৃতিকে সম্মান করি, এ কারণে তার (অনন্ত জলিল) সঙ্গে সমাধান করতে চেয়েছিলাম। কিন্তু তিনি আমাকে কোনও সমাধান দেননি। অনন্ত তার বিরুদ্ধে তেহরানে অভিযোগ করা এবং আন্তর্জাতিক উকিলের মাধ্যমে মামলা করা ছাড়া কোনও পথ খোলা রাখেননি।’

গত কোরবানির ঈদে সারা দেশে মুক্তি পায় ‘দিন দ্য ডে’ ছবি। এতে অনন্তর সঙ্গে কেন্দ্রীয় ভূমিকায় আছেন বর্ষা। ছবিতে ইরান, আফগানিস্তান, তুরস্কসহ বিভিন্ন দেশের শিল্পীরা অভিনয় করেছেন। যৌথ প্রযোজনার হিসেবে ছবিটি ইরান ও বাংলাদেশে একই সময়ে মুক্তির কথা থাকলেও সেটি আর হয়নি।

এদিকে মুর্তজা অতাশ জমজমের এমন অভিযোগের বিপরীতে অনন্ত জলিলের কোনও প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়নি। এই প্রতিবেদন প্রকাশ প্রক্রিয়া পর্যন্ত তিনি মুঠোফোনে সাড়া দেননি।

ইরানের নামজাদা নির্মাতা মুর্তজা অতাশ জমজম সর্বশেষ গত এপ্রিলে ঢাকায় এসে তার নতুন ছবি ‘ফেরেশতে’র শুটিং করেছেন দুই বাংলার অন্যতম অভিনেত্রী জয়া আহসানকে নিয়ে।

Print Friendly, PDF & Email
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

eighteen − thirteen =

আরও পড়ুন