তথ্য গোপন করার অভিযোগ

উপজেলা পরিষদ নির্বাচন : দীঘিনালায় তিন প্রার্থীর মনোনয়নপত্র বাতিল

fec-image

আসন্ন উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে (দ্বিতীয় ধাপ) দীঘিনালা উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে দুইজন প্রার্থীর মধ্যে বাছাইপর্বে একজনের মনোনয়ন বাতিল হয়েছে। আপিল বিভাগেও বাতিলের সিদ্ধান্ত বহাল থাকলে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় আবারো নির্বাচিত হতে যাচ্ছেন বর্তমান উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি মোহাম্মদ কাশেম।

সংশ্লিষ্ট সূত্রমতে, হলফনামায় মামলা সংক্রান্ত তথ্য গোপন করার অভিযোগে প্রাথমিকভাবে মনোনয়ন বাতিল করা হয়। এছাড়া একই অভিযোগে দুইজন ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থীরও মনোনয়ন বাতিল করা হয়েছে।

জানা যায়, দীঘিনালা উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে মনোনয়নপত্র দাখিল করেন মোহাম্মদ কাশেম এবং ধর্মজ্যোতি চাকমা। ভাইস চেয়ারম্যান পদে বর্তমান মো. মোস্তফা কামাল মিন্টু, মো. মজিবর ফরাজী, মো. সোলাইমান এবং সুসময় চাকমা। নারী ভাইস চেয়ারম্যান পদে সীমা দেওয়ান এবং বিলকিছ বেগম।

গত মঙ্গলবার রিটার্নিং অফিসার কর্তৃক মনোনয়নপত্র বাছাইয়ের সময় হলফনামায় মামলা সংক্রান্ত তথ্য গোপন করার অভিযোগে প্রাথমিকভাবে তিন প্রার্থীর মনোনয়নপত্র বাতিল করা হয়। এরমধ্যে চেয়ারম্যান প্রার্থী ধর্মজ্যোতি চাকমা এবং ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী মো. মজিবর ফরাজী ও সুসময় চাকমা।

তবে প্রাথমিকভাবে বাতিল হওয়া প্রার্থীরা আপিল করবেন বলে জানিয়েছেন। চেয়ারম্যান পদে প্রাথমিকভাবে মনোনয়নপত্র বাতিল হওয়া প্রার্থী ধর্মজ্যোতি চাকমা জানান, তাঁর পাঁচটি মামলার মধ্যে দুইটি থেকে অব্যাহতি পেয়েছেন। অস্ত্র -মামলাটি বর্তমানে চার্জ শুনানির অপেক্ষায়।

এই তিনটি মামলার বিষয় হলফনামায় উল্লেখ করা হয়েছে। যে দুটি মামলার তথ্য-গোপনের অভিযোগ আনা হয়েছে- সেই মামলা দুটিতেই চার্জশিট থেকে তাঁর নাম বাদ দেওয়া হয়েছিল। তাই সেই মামলা দুইটির – বিষয়ে তিনি হলফনামায় উল্লেখ করেন নাই; এটা ইচ্ছে করে তথ্য গোপন করা হয়নি বলেও দাবি করে – ধর্মজ্যোতি জানান, বিষয়টি নিয়ে – আপিল করার প্রস্তুতি চলছে।

Print Friendly, PDF & Email
ঘটনাপ্রবাহ: উপজেলা পরিষদ নির্বাচন
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও পড়ুন