করোনার প্রভাবে কাপ্তাইয়ে লেপ-তোষক কারিগরদের ব্যবসা ধ্বস

fec-image

অগ্রহায়ণ মাসের আগমনের পাশাপাশি শীতের আগমন দেখা দিয়েছে। দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে ভোরবেলা ঘন কুয়াশা ও শীতের আঘমন ঘটছে। একটু গরম ও শীত হতে রক্ষা পেতে আরাম আয়েশের জন্য দেশের বিভিন্ন জেলা ও উপজেলা গুলোতে বালিশ, লেপ, তোষক, মেট্রোস তৈরির ধুম দেখা দিলেও পার্বত্যঞ্চলগুলোতে দেখা যায় তার ভিন্ন চিত্র। রাঙ্গামাটি পার্বত্য জেলার বিভিন্ন উপজেলার মধ্যে কাপ্তাই উপজেলায় লেপ, তোষকের তৈরির প্রভাব তেমন দেখা যায়না।

পার্বত্যঞ্চলে শীতের আগমন ঘটলেও লেপ, তোষক তৈরির কারিগরদের মধ্যে তেমন ব্যস্থতা দেখা যায়না। কাপ্তাই নতুন বাজার ইলিয়াছ বেডিং স্টোর গিয়ে দেখা যায় কারিগররা অলস সময় পার করছে। কথা হয় কারিগর কাজী মোঃ আফছার উদ্দিনের সাথে তিনি প্রতিনিধিকে জানান, এখন আর আগের মত কেউ বালিশ, লেপ, তোষক, মেট্রোস তৈরি তেমন করছেনা। কেন প্রশ্ন করা হলে তিনি বলেন, গত বছর এ শীতে প্রতিদিন ২০/২৫টি বালিশ, লেপ, তোষোক, মেট্রোস তৈরি করা হত। আমরা দিন-রাত পর্যন্ত তৈরি কাজে ব্যস্থ থাকতাম। তৈরিকৃত সুতা, তুলা, গামের্ন্টস তুলাসহ সকল কিছুর দাম ঠিক আগের মত রয়েছে এ কাজের কোন জিনিসের দাম বাড়েনি।

কিন্ত বর্তমান করোনা ভাইরাসের ফলে মানুষের হাতে টাকা না থাকার কারণে কেউ আর এ সকল লেপ, তোষক তৈরি করতে আগ্রহ প্রকাশ করছেনা। অভাব আর অনটনে, করোনা ভাইরাসের ফলে অর্থ সমস্যা হল প্রধান কারন।

তিনি বলেন, বর্তমানে আমরা সরকারি কর্মরত লোকদের ২/১টি কাজ পাচ্ছি। বাকি সময় আমরা অলস সময় কাটাচ্ছি বলে উল্লেখ করেন। এদিকে এ কাজে অনেক দোকান ব্যবসায়ী একই অবস্থা বলে উল্লেখ করেন। মোঃ ইলিয়াছ বলেন, আমরা প্রতি বছরের মধ্যে শীতের দু’টি মাস ব্যবসার জন্য অপেক্ষা করি কিন্ত বর্তমানে করোনা ভাইরাসের জন্য সে ব্যবসা প্রায় ধবস নেমেছে। তবে সামনে কি হয় আল্লাহ ভালো জানে বলে উল্লেখ করেন।

Print Friendly, PDF & Email
ঘটনাপ্রবাহ: কাপ্তাই, পার্বত্যঞ্চলে
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

7 + 7 =

আরও পড়ুন