শিশুদের জন্য আলাদা খাবারের ব্যবস্থা করা হবে

করোনা মোকাবিলায় খাবারের কোন ঘাটতি নেই: জেলা প্রশাসক

fec-image

রাঙ্গামাটি জেলা প্রশাসক একেএম মামুনুর রশিদ বলেছেন, করোনা ভাইরাস মোকাবিলায় খাবারের কোন ঘাটতি নেই। যদি খাবারের ঘাটতি পড়ে আরও খাদ্যশস্য ব্যবস্থা করা হবে।

শনিবার (২৮মার্চ) বিকেলে শহরের কাঠালতলী এলাকায় ১০ পরিবারের মাঝে খাদ্যশস্য বিতরণের শেষে সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন।

রাঙ্গামাটি জেলা প্রশাসক একেএম মামুনুর রশিদ বলেন , করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে জেলা প্রশাসন, সেনাবাহিনী ও পুলিশসহ একযোগে কাজ করে যাচ্ছে। গণপরিবহনসহ গণজাময়াতে নিষিদ্ধ করা হযেছে এবং লোকজন যার যার ঘরে অবস্থান করেছে এ ব্যবস্থাও নিশ্চিত করা হয়েছে। এর কারণে দিনমজুর ও খেটে খাওয়া মানুষের আয় বন্ধ হয়ে গেছে। তাদের জন্য ত্রাণ ও দুর্যোগ মন্ত্রণালয় থেকে ১০০ মেট্র্রিক টন খাদ্যশস্য ও নগদ ১০ লক্ষ টাকা আর্থিক সহায়তা এসেছে। ইতিমধ্যে জেলার ১০ উপজেলাসহ পৌরসভা গুলোতে এই সহায়তা বিভাজন করা হয়েছে।

তিনি আর বলেন, সকল উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও জনপ্রতিনিধিগণ মিলে দিনমজুর ও খেটে খাওয়া প্রত্যেক পরিবারের মাঝে ১০ কেজি করে চাউল, আলু, ডাল ও তৈল বিতরণ করছেন। এছাড়া যাদের ঘরে শিশু আছে তাদের জন্য আলাদা খাবারের ব্যবস্থা করা হবে।

রাস্তায় চলাচলা নিষেধাজ্ঞা নিয়ে সাংবাদিকেরা প্রশ্ন করলে তিনি বলেন, রাস্তায় চলাচলে কোন বিধি নিষেধ নাই। রাস্তা খোলা থাকবে। অবশ্যই যার যার অতি প্রয়োজনে যাতায়াত করবে। কাঁচাবাজারসহ নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্য ও ওষুধদের দোকান খোলা রয়েছে। যার যা প্রয়োজন তা ক্রয় করতে পারবে, কোন বাধা নেই। তবে বিনা কারণে চলাচল এবং বিনা কারণে জড়ো না হওয়ার জন্য নিষেধাজ্ঞা রয়েছে । তাই সকলের সহযোগিতায় করোনা ভাইরাস প্রতিরোধ সবাই একসাথে কাজ করার আহ্বানও জানান তিনি।

এসময় উপস্থিত ছিলেন, রাঙ্গামাটি জেলা প্রশাসনের নেজারত ডেপুটি কালেক্টর উত্তম কুমার দাশ, নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. ইসলাম উদ্দিন ও রাঙ্গামাটি পৌরসভার প্যানেল মেয়র মো. জামাল উদ্দিন প্রমুখ।

Print Friendly, PDF & Email
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

seventeen − 17 =

আরও পড়ুন