‘কিশোরীদের ঋতুস্রাব নিয়মিত ঘটনা, ভয়ের কিছু নেই’

fec-image

“কিশোরী বয়সে ঋতুস্রাব একটি নিয়মিত ঘটনা, এতে ভয়ের কিছু নেই। এ সময় স্বাস্থ্যসম্মত শুকনো কাপড় ব্যবহার করতে হবে। কোন অবস্থাতে স্যাঁতসেঁতে বা ভেজা কাপড় ব্যবহার করা যাবে না। সম্ভব হলে স্যানিটারী প্যাড ব্যবহার করা যেতে পারে।

শনিবার (৭ ডিসেম্বর) দুপুরে দীঘিনালা উপজেলার তারাবুনিয়া এলাকায় পানছড়ি উপজেলা থেকে আগত কিশোরীদের সাথে অভিজ্ঞতা বিনিময়কালে এ সব কথা বলেন কিশোরী ক্লাবের সভাপিত প্রিয়াঙ্কা চাকমা।

Leadership to ensure adequate nutrition (পুষ্টির প্রাপ্যতা নিশ্চিত করা ) লীন প্রকল্পের আওতায় এক্সপোজার ভিজিটে তিনি আরো বলেন, ঋতুস্রাবকালীন সময়ে অনেক কিশোরী আতঙ্কগ্রস্থ হয়ে পড়েন, আতঙ্কগ্রস্থ না হয়ে পরিবারের সাথে পরামর্শ নিতে হবে।

শনিবার দুপুরে দীঘিনালা উপজেলার কিশোর কিশোরী ক্লাবের সদস্যদের সাথে পানছড়ি উপজেলার কিশোরদের এক্সপোজার ভিজিটে অংশ হিসেবে এ সব কথা বলেন।

পানছড়ি উপজেলার লোগাং ইউনিয়নের প্রভুমনি চাকমা জানান, একটি মেয়ে কিশোরী থেকে একদিন মা হবে। তাই কিশোরীদের যত্ন এখনই নিতে হবে। তাই এক্সপোজার ভিজিট আমাদের জন্যে খুবই গুরুত্বপূর্ণ।

লীন প্রকল্পের উপজেলা ফেসিলিটেটর স্বর্না চাকমা বলেন, “বয়ঃসন্ধিকালে কিশোর-কিশোরীরা প্রজনন ক্ষমতা অর্জন করে। তাই এই সময় থেকেই প্রজনন স্বাস্থ্য শিক্ষা প্রয়োজন। প্রজনন স্বাস্থ্য সম্পর্কে সঠিক তথ্য জানার জন্যে আমরা বিভিন্ন গল্পের বই দিয়ে থাকি। তারা সেগুলি পড়ে সচেতনতা লাভ করেন।

তিনি আরো বলেন, কিশোর বয়সের ছেলে-মেয়ে স্বাস্থ্য সেবা সম্পর্কে সচেতনতার ঘাটতি থাকে। প্রজনন স্বাস্থ্য, পুষ্টি, মানসিক ও সামাজিক বিষয়ে কাউন্সেলিংয়ের মাধ্যমে সচেতন করে তুলতে হবে।
এ সময় ৫০ জন কিশোরদের মাঝে স্যানিটারী প্যাড প্রদান করা হয়।

Print Friendly, PDF & Email
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

5 × 3 =

আরও পড়ুন