জেনোসাইড কার্ড: রোহিঙ্গাদের পরিচয় মুছে ফেলতে মিয়ানমারের আরেক কৌশল

fec-image

রোহিঙ্গা মুসলমানদের জাতিগত পরিচিতি মুছে ফেলতে নিয়মন্ত্রাতিক কৌশলের অংশ হিসেবে ন্যাশনাল ভেরিফিকেশন কার্ড (এসনভিসি) প্রকল্প চালু করেছে মিয়ানমার কর্তৃপক্ষ। মঙ্গলবার প্রকাশিত মানবাধিকার গ্রুপ ‘ফর্টিফাই রাইটস’-এর এক নতুন প্রতিবেদনে এ কথা বলা হয়েছে।

মানবাধিকার সংগঠনটি জানায়, চলতি বছরের শুরু থেকে আন্তর্জাতিক ফৌজদারি আদালতের (আইসিসি) আদালত সংখ্যালঘু গ্রুপটির বিরুদ্ধে অপরাধের যে তদন্ত করছে তারই আওতায় পড়েছে এনভিসি প্রক্রিয়া এবং নাগরিকত্ব প্রত্যাখ্যানের বিষয়টি।

এক বিবৃতিতে ফর্টিফাই রাইটসের সিইও ম্যাথু স্মিথ বলেন, এমন এক প্রশাসনিক প্রক্রিয়ার মধ্য দিয়ে মিয়ানমার সরকার রোহিঙ্গা জনগণকে ধ্বংস করতে চাচ্ছে যার মাধ্যমে এই জাতিগোষ্ঠীর মৌলিক অধিকারগুলো কার্যকরভাবে কেড়ে নেয়া যাবে।

তিনি বলেন, রোহিঙ্গা সংকটের মধ্যে এই প্রক্রিয়া এবং এর প্রভাব নিহিত। এই সমস্যার দিকে দৃষ্টি দেয়া না হলে সঙ্কট অব্যাহত থাকবে।

‘টুলস অব জেনোসাইড: ন্যাশনাল ভেরিফিকেশন কার্ড এন্ড দ্য ডিনাইয়াল অব সিটিজেনশিপ অব রোহিঙ্গা মুসলিমস ইন মিয়ানমার’ শীর্ষক ওই প্রতিবেদন তৈরির জন্য গত কয়েক দশক ধরে মিয়ানমারে রোহিঙ্গাদের যেসব পরিচিতিসূচক কাগজপত্র দেয়া হয়েছে সেগুলো পরীক্ষা করা হয়।

এতে বলা হয়, ‘নাগরিকত্ব যাচাই’ প্রক্রিয়ার নামে ক্রমাগত রোহিঙ্গাদের মৌলিক অধিকারগুলো সংকুচিত করে আনা হয়েছে। তাদের চলাচলের স্বাধীনতা সীমিত করা হয়েছে। তাদেরকে শিক্ষার সুযোগ, জীবিকা ও বাক স্বাধীনতা থেকে বঞ্চিত করা হয়েছে।

সূত্র: এশিয়ানমনিটরডটকম

Print Friendly, PDF & Email
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

10 − nine =

আরও পড়ুন