থ্রিজি-ফোরজি নেটওয়ার্ক বন্ধে ওয়াইফাই সংযোগ নিচ্ছে রোহিঙ্গারা

fec-image

সরকারের কড়াকড়ির পর বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশনের (বিটিআরসি) নির্দেশে রোহিঙ্গা ক্যাম্পে থ্রিজি-ফোরজি মোবাইল নেটওয়ার্ক বন্ধ করে দেয়া হয়। কিন্তু নিজেদের মোবাইলে থ্রিজি-ফোরজি সচল রাখতে বিকল্প ব্যবস্থা হিসেবে ওয়াইফাই সংযোগ নিচ্ছে বলে অভিযোগ উঠেছে। রোহিঙ্গাদের ওয়াইফাই সংযোগ সরবরাহে বড় ধরনের একটি সিন্ডিকেট কাজ করছে।

সুত্রে জানা গেছে, রোহিঙ্গা ক্যাম্পে নিরাপত্তার স্বার্থে মোবাইল নেটওয়ার্ক কোম্পানী থ্রিজি-ফোরজি নেট বন্ধ রাখে। সেই সুযোগে তৎপর হয়ে উঠে ওয়াইফাই কোম্পানী গুলো। বিশেষ করে ব্রাক নেট লিঃ ওয়াইফাই বিক্রয়কারী প্রতিষ্ঠান ক্যাম্পের অভ্যন্তরে সংযোগ প্রদান করে যাচ্ছে বলে অভিযোগ উঠেছে। এছাড়াও ক্যাম্প এলাকায় সক্রিয় রয়েছে আরো ৭ টি ওয়াইফাই কোম্পানী। এগুলো হল-অগ্নি সিস্টেম লিঃ, জেএএস নেটওয়ার্ক, প্লান নেট স্যাটেলাইট, এশিয়া প্যাসিফিক লিঃ, এনজেল ড্রপ লিঃ, চট্টগ্রাম অনলাইন এবং ব্লু নেট।

এ নিয়ে আরিফ নামের ব্রাক নেট লিঃ এক কর্মকর্তার সাথে এনজিওকর্মী পরিচয় দিয়ে কথা বললে তিনি জানান, আমাদের ওয়াইফাই সংযোগ সবখানে আছে। আপনার যদি প্রয়োজন হয় তাহলে আমাদের লোকাল সার্ভিস সেন্টারে যোগাযোগ করতে পারেন। তারা লোকেশন দেখে সিদ্ধান্ত দেবেন।

উখিয়া প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি মোঃ রফিকুল ইসলাম বলেন, সম্প্রতি রোহিঙ্গা ক্যাম্পে থ্রিজি-ফোরজি নেটওয়ার্ক বন্ধ থাকায় ওয়াইফাই সংযোগ নিচ্ছে। রোহিঙ্গারা কয়েক ঘর মিলে মাসিক ১ হাজার টাকার বিনিময়ে ওয়াইফাই নেটওয়ার্ক নিচ্ছে এবং ইতোমধ্যে অনেকে ব্যবহারও শুরু করেছে। মাসিক ১ হাজার টাকায় একটি বাড়িতে ওয়াইফাই কানেকশন নিয়ে পাশ্ববর্তী বাড়িতে কোড নাম্বার দিয়ে ওয়াইফাই সুবিধা ভোগ করছে।

রোহিঙ্গা অধ্যূষিত পালংখালী ইউপি চেয়ারম্যান এম গফুর উদ্দিন চৌধুরী বলেন, রোহিঙ্গাদের কারণে আমাদের সমস্যার শেষ নেই। এখন ক্যাম্পে নেটওয়ার্ক বন্ধ করতে গিয়ে স্থানীয়দের মোবাইল নেটওয়ার্ক সমস্যা করেছে। আমরা কয়েকদিন ধরে নেটওয়ার্ক নিয়ে খুবই সমস্যায় আছি। এ বিষয়ে একটি কার্যকরী পদক্ষেপ নিতে হবে। যাতে স্থানীয়দের সমস্যা না হয়। আর রোহিঙ্গা ক্যাম্পে থ্রিজি-ফোরজি বন্ধ করতে হলে যে কোম্পানী গুলো ওয়াইফাই সংযোগ দিচ্ছে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে হবে। না হয়, কখনো তা বন্ধ হবেনা।

উখিয়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ নিকারুজ্জামান বলেন, রোহিঙ্গা ক্যাম্পে মোবাইল নেটওয়ার্কসহ সব কিছু বন্ধ করতে সরকারের নির্দেশনা অনুযায়ী কাজ চলছে। এই জন্য বিআরটিএসর পক্ষ থেকে উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উখিয়া-টেকনাফ রোহিঙ্গা ক্যাম্প এলাকা পরির্দশন করেছেন । ক্যাম্পে ওয়াইফাই সংযোগে বিষয়টি আমি এখনো জানিনা। সে ব্যাপারে খোঁজ নেওয়া হবে।

Print Friendly, PDF & Email
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

two × one =

আরও পড়ুন