আগুনে দগ্ধ মহেশখালীর বনাঞ্চল!

fec-image

আগুনে পুড়ে গিয়েছে চট্টগ্রাম উপকূলীয় বন বিভাগের আওতাধীন মহেশখালী রেঞ্জের দিনেশপুর বনবিটের সংরক্ষিত বনাঞ্চলের বেশ কিছু অংশ।

গত ১৫ মার্চ (মঙ্গলবার) বিকালের দিকে সরেজমিন পরিদর্শন করে দেখা যায়, দিনেশপুরের জামবাগান এলাকার রশিদ মিয়ার খামারের সামনে সংরক্ষিত বনাঞ্চলের একটি বৃহৎ অংশ জুড়ে দাউ দাউ করে জ্বলছে আগুন। আগুনের লেলিহান শীখার উত্তাপ এবং কালো ধূয়ায় ধূসরিত গোটা আশপাশ।

সেখানেই দেখা মিলে বেশ কিছু স্থানীয় বাসিন্দার। তারা জানান, ওই দিন সকাল দশটা থেকেই এখানে আগুন জ্বলছে। আগুনে পুড়ছে বন। অথচ এই বিষয়ে বন বিট কর্মকর্তা জোবায়েরকে একাধিকবার জানানো হলেও তিনি তা কর্ণপাতই করেননি। নাম প্রকাশ না করার শর্তে সেখানকার এক বাসিন্দা বলেন, দিনেশপুরের বন বিট কর্মকর্তা জোবায়েরই বনে এই আগুন ধরিয়ে দিয়েছে, যাতে সেখানে নার্সারি করতে পারেন। ইতিপূর্বেও বেশ কয়েকবার এভাবে বনে আগুন ধরিয়ে দিয়ে সেখানে তারা নার্সারি করেছে।

তবে কেউই জুবায়েরের ভয়ে কথা বলতে রাজি হয়নি। এই ভয়ের কারণও খুলে বলেন তারা। তারা বলেন, আমাদের অনেকেরই বনভূমিতে বাড়িঘর রয়েছে, তাই প্রকাশ্য কোনো কিছু বললে বন বিট কর্মকর্তা জোবায়ের আমাদের হয়রানি করবে।

নার্সারি করার জন‍্য বেআইনিভাবে বনাঞ্চলে আগুন ধরিয়ে দেওয়ায় ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া ব‍্যাক্ত করেছেন পরিবেশবাদী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ। বাংলাদেশ পরিবেশ আন্দোলন (বাপা) এর মহেশখালী উপজেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক আবু বক্কর ছিদ্দিক বলেন, নার্সারি করার জন‍্য এভাবে বনাঞ্চলে আগুন দেওয়াটা খুবই উদ্বেগজনক। এতে করে গোটা বনাঞ্চলে আগুন ছড়িয়ে বড় ধরনের দুর্ঘটনার সম্ভাবনা থাকে। এটি আমাদের পরিবেশের জন‍্য মারাত্মক ক্ষতির কারণ।

এদিকে দিনেশপুরের বন বিট কর্মকর্তা জোবায়ের আগুন লাগানোর বিষয়টি অস্বীকার করে বলেন, আমরা রক্ষক হয়ে ভক্ষকের ভূমিকায় কখনোই যেতে পারিনা। বিকেল ৫টার দিকে আগুন লাগার বিষয়টি খবর পেয়ে আমরা ঘটনাস্থলে গিয়ে আগুন নিভিয়ে দিই। আগুন লাগানোর সাথে কারা জড়িত, এটি তদন্ত পূর্বক আইনগত ব‍্যবস্থা নেওয়া হবে।

এ বিষয়ে মহেশখালী রেঞ্জ কর্মকর্তা জুলফিকার জয়ের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, নার্সারি করার জন‍্য বনে আগুন লাগানোর বিষয়টি সঠিক নয়। কোনো পথচারীর সিগারেটের আগুন হতেই এই আগুনের সূত্রপাত হয়েছে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে। তবে এই ধরনের দুর্ঘটনা এড়াতে আমরা সবসময়ই সতর্ক অবস্থানে রয়েছি।

সকাল ১০টা হতে বিকেল ৫টা পর্যন্ত তথা আগুন নেভাতে দীর্ঘ ৭ ঘন্টা বিলম্বিত হওয়ার কারণ হিসেবে ইদানীংকালে নার্সারির কাজে ব‍্যস্ততা এবং স্টাফ সংকটকেই দেখান তিনি।

Print Friendly, PDF & Email
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

3 × five =

আরও পড়ুন