উখিয়া স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে দু’জন ডাক্তার কাগজে কলমে থাকলেও বাস্তবে নেই!

fec-image

ডাক্তার শাহ কামাল উদ্দিন আবাসিক মেডিকেল অফিসার ও ডাক্তার ইফফাত সাদিয়া জুনিয়র গাইনি কনসালটেন্ট হিসাবে উখিয়া স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে কর্মরত বেতন ভাতা উত্তোলন করেন এ হাসপাতালে। কিন্তু দীর্ঘ ৫ মাসের অধিক হাসপাতলে দায়িত্বরত নেই এ দুজন ডাক্তার।

এ বিষয়টির সত্যতা স্বীকার করেন খোদ উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা।

জানা যায় উখিয়া স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে বর্তমানে কর্মরত হিসেবে কাগজে-কলমে লিপিবদ্ধ আছে ডাক্তার শাহ কামাল উদ্দিন। তিনি একই সাথে এ হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার পদে গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্বরত। অথচ তিনি নেই অনেক মাস ধরে একইভাবে জুনিয়র গাইনি কনসালটেন্ট ডাক্তার ইফফাত সাদিয়া একমাত্র মহিলা ডাক্তার হিসেবে কাগজে-কলমে কর্মরত উখিয়া স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে। শুধু তাই নয় বেতন-ভাতা থেকে শুরু করে সরকারি যাবতীয় সুযোগ সুবিধা গ্রহণ করে থাকেন হাসপাতালেই।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, কক্সবাজার সদর হাসপাতালে কর্মরত আছেন এ দুজন ডাক্তার তারা ওখানে নিয়মিত হাসপাতলে দায়িত্ব পালনের পাশাপাশি বিকেলে প্রাইভেট ক্লিনিকে পুরোদমে চেম্বারে রোগী দেখছেন। অনেকের মতে উক্ত দুইজন মূলত উখিয়া হাসপাতালে কর্মরত থাকার পরও প্রাইভেট বাণিজ্য করার জন্য সুকৌশলে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে অবস্থান করছেন।

খোঁজখবর নিয়ে জানা গেছে, উখিয়া হাসপাতালে আবাসিক মেডিকেল অফিসার পদটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ। আর এ পদে ডাক্তার শাহ কামাল উদ্দিন কাগজে-কলমে থাকার পরও কিভাবে অন্যতরে চলে গেল বিষয়টি খতিয়ে দেখতে বলছে সুশীল সমাজ।

এছাড়াও একমাত্র মহিলা ডাক্তার তাও জুনিয়র গাইনি কনসালটেন্ট ডাক্তার ইফতার সাদিয়া কক্সবাজার সদর হাসপাতালে দায়িত্ব পালন করায় উখিয়া স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা নিতে আসা মহিলা রোগীগণ সুচিকিৎসা পাচ্ছে না বলে অভিযোগ উঠেছে। এমনকি আবাসিক মেডিকেল অফিসার পদে না থাকায় হাসপাতালে দাপ্তরিক কর্মকাণ্ড নানাভাবে ব্যাহত হচ্ছে।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাক্তার মোহাম্মদ আব্দুল মান্নান বলেন, ডাক্তার শাহ কামাল উদ্দিন আবাসিক মেডিকেল অফিসার ও ডাক্তার ইফফাত সাদিয়া জুনিয়র গাইনি কনসালটেন্ট হিসাবে হাসপাতালে কর্মরত আছেন। কিন্তু গত ৫ মাস ধরে প্লেষনে তারা দুজন কক্সবাজার সদর হাসপাতাল চলে যায়।

অথচ এ হাসপাতালে কর্মরত হিসেবে তাদেরকে দেখাতে হচ্ছে বেতন ভাতাও হাসপাতাল থেকে উত্তোলন করে এ দুজন ডাক্তার।

এদিকে অভিযোগ উঠেছে উপরের মহল বা উর্ধ্বতন কতৃপক্ষকে ম্যানেজ করে কৌশলে এ ডাক্তার দুজন জেলা সদরে অবস্থান করলেও কাগজ কলম ঠিক থাকায় উখিয়া স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে তাদেরকে শূন্য পদে দেখাতে পারছেনা। এ নিয়ে দেখা দিয়েছে নানা জটিলতা।

স্থানীয় মানুষজন উখিয়া স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের নির্ধারিত ডাক্তার স্বপদে প্রেরণ করার জন্য জেলা সিভিল সার্জনের নিকট দাবি জানিয়েছেন।

Print Friendly, PDF & Email
ঘটনাপ্রবাহ: উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা, স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

10 − 10 =

আরও পড়ুন