চেয়ারম্যান পদে ভোটযুদ্ধে নামছেন ১০ প্রার্থী

চকরিয়ায় সাহারবিল ইউপিতে শুরু হয়েছে নির্বাচনী আমেজ

fec-image

কক্সবাজারের চকরিয়া পৌর নির্বাচনী আমেজ কাটতে না কাটতেই শুরু হয়েছে আসন্ন ইউপি নির্বাচনকে ঘিরে নানা আলোচনা। উপজেলার সদর থেকে শুরু করে প্রত্যন্ত গ্রামীণ অঞ্চল পর্যন্ত সর্বত্রই বয়ে চলছে নির্বাচনী হাওয়া।

গ্রামীণ জনপদের চায়ের দোকান, হাট-বাজার, রাস্তা-ঘাট, এখন সর্বত্রই চলছে নির্বাচনী গুঞ্জন। বলতে গেলে কোন স্থানে ৩ জন থেকে ৫ জন ভোটার একত্রিত হলেই শুরু হয়ে যায় নির্বাচনী আলোচনার ঝড়। বর্তমানে ইউপি নির্বাচন নিয়ে চকরিয়া উপজেলার সাহারবিল ইউনিয়নে লেগেছে জোরেশোরে নির্বাচনী হাওয়া।

সরকারের অগ্রাধিকার প্রকল্প দোহাজারী থেকে কক্সবাজার পর্যন্ত চালু হতে যাওয়া স্বপ্নের রেল লাইনের একটি জংশন পড়েছে সাহারবিল ইউনিয়নে। ইতোমধ্যে ইউনিয়ন পরিষদের সামনের মোহনা ঘিরে রেললাইনের নতুন জংশনটি স্থাপিত হতে যাচ্ছে।এই রেল জংশন ঘিরে গুরুত্বপুর্ণ জনপদে পরিণত হয়ে উঠে সাহারবিল ইউনিয়ন।

গুরুত্বপূর্ণ এই ইউনিয়নে এবার চেয়ারম্যান পদে ভোটযুদ্ধে নামতে জোরেশোরে প্রস্তুতি নিচ্ছেন বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের পাশাপাশি স্বতন্ত্রসহ অন্তত ১০ প্রার্থী। আসন্ন ইউপি নির্বাচনকে ঘিরে সাহারবিল ইউনিয়ন পরিষদের বর্তমান চেয়ারম্যান ও মাতামুহুরী সাংগঠনিক উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মহসিন বাবুল তাঁর দায়িত্বপালন কালীন সময়ের উন্নয়ন কর্মকাণ্ড প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছেন। একইসঙ্গে এবারও দলীয় মনোনয়ন পেতে জোর লবিং চালাচ্ছেন হাইকমান্ডে এমন আভাস মিলেছে তাঁর ঘনিষ্টজন সুত্রে।

বর্তমান চেয়ারম্যান মহসিন বাবুলের মতো এবার চেয়ারম্যান পদে সাহারবিল ইউনিয়নে দলীয় মনোনয়ন তথা নৌকার টিকেট পেতে আরও অনেক আওয়ামী লীগ নেতা নীরবে দৌড়ঝাঁপ করছেন। নৌকার মনোনয়ন প্রত্যাশীদের তালিকাটাও বেশ লম্বা।

২০১৬ সালের ইউপি নির্বাচনে নৌকার মনোনয়ন পেয়েছিল বর্তমান চেয়ারম্যান মহসিন বাবুল। এছাড়াও আসন্ন ইউপি নির্বাচনে তিনি নৌকার মনোনয়ন প্রত্যাশী হিসেবে আছেন। একইসঙ্গে দলীয় মনোনয়ন প্রত্যাশী হিসেবে রয়েছেন সাহারবিল ইউনিয়নের বাসিন্দা চকরিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি সরওয়ার আলম, কক্সবাজার জেলা পরিষদের সদস্য ও ব্যবসায়ী আলহাজ আবু তৈয়ব, চকরিয়া উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক সাজিদ হোসেন সাকিব। ইতোমধ্যে সরওয়ার আলম ছাড়া অন্য সবাই পোস্টার ব্যানার ছাপিয়ে ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে মনোনয়ন প্রত্যাশী হিসেবে প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছেন।

আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশীদের মধ্যে নৌকার টিকেট নিশ্চিত করা নিয়ে নীরবে লড়াই চললেও সাহারবিল ইউনিয়নের ৯টি ওয়ার্ডের প্রতিটি জনপদে মাঠ সাজাচ্ছেন নাগরিক কমিটির ব্যানারে স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী তরুণ ব্যবসায়ী নবী হোছাইন চৌধুরী।

প্রায় দুই বছর আগে থেকে তিনি এলাকায় জোরেশোরে নির্বাচনী কর্মকান্ড শুরু করেছেন। প্রচারণা কার্যক্রম চালানোর পাশাপাশি তিনি এলাকার মসজিদ, মাদরাসা, ধর্মীয় শিক্ষা প্রতিষ্ঠানসহ বিভিন্ন সামাজিক উন্নয়ন কর্মকান্ডে ব্যক্তিগত তহবিল থেকে অনুদান দিচ্ছেন। বাদ যাচ্ছেনা এলাকার গরীব মানুষকে সাহায্য দেয়ার কাজটিও। তাঁর প্রচারণায় প্রতিদিন বিপুল মানুষ সাড়াও দিচ্ছেন।

বর্তমান চেয়ারম্যান মহসিন বাবুল ইউনিয়ন পরিষদের কার্যক্রম পরিচালনার পাশাপাশি প্রতিদিন নির্বাচনী এলাকায় সময় দিচ্ছেন।এলাকার মানুষের সঙ্গে কুশল বিনিময় অব্যাহত রেখেছেন।অন্যদিকে আওয়ামী লীগ নেতা ব্যবসায়ী আবু তৈয়বও ইউনিয়নের বিভিন্ন এলাকায় নির্বাচনী প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছেন।বিভিন্ন ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানের উন্নয়নে সহযোগিতাও দিচ্ছেন।জনগনের সঙ্গে কুশল বিনিময় চালিয়ে যাচ্ছেন তরুন প্রার্থী সাবেক ছাত্রনেতা সাজিদ হোসেন সাকিবও।

আসন্ন ইউপি নির্বাচনে বিএনপি অংশ নিচ্ছেনা এটি আগে থেকে কেন্দ্রীয় নির্দেশনা আছে। সেই কারণে ধানের শীষ প্রতীকের বদলে অন্য প্রতীকে সাহারবিল ইউনিয়নে স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী হবেন এমন ঘোষণা দিয়েছেন বিএনপি নেতা নুরুল আমিন চৌধুরী। অন্যদিকে স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী হিসেবে এলাকায় ব্যানার পেস্টুন ছাপিয়ে প্রচারণায় আছেন সাবেক চেয়ারম্যান আলহাজ আবদুল হাকিমের ছেলে এইচএম মাহমুদুল করিম হোছাইন, বর্তমান প্যানেল চেয়ারম্যান এনামুল হকের ছোটভাই আরমান চৌধুরী, চিকিৎসক নুরুল কামাল ও সমাজ সেবক জুনাইদুল হক।

সাহারবিল ইউনিয়নের জনসাধারণের সাথে কথা বলে জানা যায়, ইউনিয়নের সম্ভাব্য প্রার্থীরা ইতোমধ্যে যার যার অবস্থান থেকে অনেকটাই দৃশ্যমান। প্রার্থীরা এখন মৃত ব্যক্তির জানাজা, বিয়ের আসর, সামাজিক বিভিন্ন আচার অনুষ্ঠান, এলাকার খেলাধুলার অনুষ্ঠানসহ বিভিন্ন অনুষ্ঠানে রাজনৈতিক কর্মতৎপরতার মাধ্যমে জনগণের কাছাকাছি থাকার চেষ্টা করছেন। সর্বোপরি ঊর্ধ্বতন নেতাদের দৃষ্টি আকর্ষণের মাধ্যমে নিজের পক্ষে এবং দলীয় মনোনয়ন প্রত্যাশীরা নেতাকর্মীকে কাছে রাখার চেষ্টা করে যাচ্ছেন। নির্বাচন ঘিরে ইতোমধ্যে প্রচার প্রচারণা শুরু করেছেন তাঁরা।

স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীরা জানান, আসন্ন সাহারবিল ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে দলীয় মনোনয়ন প্রত্যাশী নবীন, প্রবীণ সবাই আমরা আওয়ামী পরিবারের। সুতারাং দলীয় মনোনয়ন চাওয়ার অধিকার সবার আছে। তবে দল যাকে মনোনয়ন দেয়, আমরা সবাই তার হয়ে নৌকার বিজয় সুনিশ্চিত করতে প্রস্তুতি নিয়েছি।

Print Friendly, PDF & Email
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

4 − three =

আরও পড়ুন