টানা বর্ষণে নাইক্ষ্যংছড়িতে ফসলের ব্যাপক ক্ষতি

fec-image

গত তিনদিন যাবৎ টানা বর্ষনের ফলে উপজেলার পাঁচ ইউনিয়ন ঘুমধুম, সোনাইছড়ি, দৌছড়ি, নাইক্ষ্যংছড়ি সদর, বাইশারীতে ফসলের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। নুইয়ে পড়ছে ধান ক্ষেত। কৃষকেরা হয়ে পড়েছে হতাশ।

এবছর আবহাওয়া অনুকূল ও কৃষি অফিসারদের সঠিক তদারকিতে ধানের বাম্পার ফলনের আশা করছিল কৃষকেরা। কিন্ত এ বৃষ্টিতে ধান পড়ে যাওয়ায় ব্যাপক ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে বলে জানালেন ঘুমধুম ইউনিয়নের বাসিন্দা কৃষক মো. হোছন, আবদুল জব্বার সহ অনেকে। এভাবে লাগাতার বৃষ্টি হলে ক্ষতি কাটিয়ে উঠা সম্ভব হবেনা বলেও তারা জানান।

পাশাপাশি লাগাতার বর্ষণে শীতকালীন আগাম সবজি বেগুন, মুলা, ফুল কপি সহ নানা জাতের সবজি ও সবজির বীজ তলার অপুরনীয় ক্ষতি হয়েছে। আবহাওয়া অফিস সূত্রে জানা যায় এই বৃষ্টি আরও ২ /৩দিন হতে পারে।

বাইশারী ইউনিয়নের বাসিন্দা কৃষক আবুল শামা জানান, এবছর পোকা দমনে কৃষি অফিসারদের পরামর্শ মতে কিট নাশক ছিটিয়ে আমরা লাভবান। তবে প্রাকৃতিক আবহাওয়ায় লাগাতার বৃষ্টিতে এখন দিশেহারা। তিনি এক একর জমি বর্গা নিয়ে চাষাবাদ করেছেন। অর্ধেকটার বেশি জমির ধান মাটিতে পড়ে যাওয়ায় লাভ ক্ষতি সমানে সমান হতে পারে।

কৃষক নুরুল আজিম মেম্বার তার অনেক জমির ধান পানিতে এখও ডুবে আছে। তিনি আল্লাহর উপর ভরসা করে আছেন।

কৃষি অফিস সূত্রে জানান, লাগাতার বৃষ্টিতে ধানের কিছুটা ক্ষতি হবে। তবে বৃষ্টির পরপরই ধানের জমি থেকে পানি সরিয়ে দিলে তেমন সমস্যা হবেনা।

বাইশারী ইউনিয়নে দায়িত্বে থাকা উপসহকারী কৃষি অফিসার রফিকুল আলম বলেন, এবছর ধানের বাম্পার ফলন হয়েছে। তবে বৃষ্টির কারণে কিছু ক্ষতির সম্ভবনা রয়েছে। তিনি আরও বলেন কৃষকদের সঠিক পরামর্শ পানচিং পদ্ধতি, সারি পদ্বতি, সময়মত সার ও কিটনাশক প্রয়োগ করায় ফলন ভাল হয়েছ। বৃষ্টি চলে গেলে ক্ষতির পরিমান কাটিয়ে উঠা সম্ভব বলে তিনি আশা করছেন।

Print Friendly, PDF & Email
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

15 + 11 =

আরও পড়ুন