পানছড়ির গোল্ডেন বয় মেরাজ

fec-image

শারীরিক গঠন লিকলিকে হলেও ইতোমধ্যে পানছড়ির গোল্ডেন বয় হিসেবে সর্বত্র নাম ছড়িয়ে পড়েছে মেরাজ হাসানের। এবারের এসএসসিতে পানছড়ি বাজার উচ্চ বিদ্যালয় থেকে গোল্ডের জিপিএ অর্জন করা এই মেধাবী সাঁওতাল পাড়ার আবদুল মান্নান ও শাহেনা বেগমের সন্তান। তার বাবা পেশায় একজন রাজমিস্ত্রী ও মা গৃহিনী।

জানা যায়, প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী পিইসি’তে গোল্ডেন জিপিএ আর টেলেন্টপুল বৃত্তির মধ্যে দিয়েই ফুটতে থাকে তার জ্ঞানের প্রতিভা। মাধ্যমিকে ৬ষ্ঠ থেকে ৮ম পর্যন্ত বরাবরই রোল ছিল এক। জেএসসসি’তেও অব্যাহত থাকে গোল্ডেন জিপিএ আর টেলেন্টপুল বৃত্তি।

বিজ্ঞান বিভাগ নিয়ে পড়ুয়া এই মেধাবীর এসএসসিতে গোল্ডেনের আশা ছাড়েনি বাবা-মা ও বিদ্যালয়ের শিক্ষাগুরুরা।

শেষ পর্যন্ত সবার মুখে হাসি ফুটিয়ে ৩১ মে’র ফলাফলে অর্জন করে গোল্ডের জিপিএ। যা পানছড়ির মাধ্যমিকের ফলাফলে বিরল। মিরাজের ছোট ভাই দিদারুল হাসান শাওন’ও গেল বারের প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী পিইসি’তে গোল্ডেন জিপিএ আর টেলেন্টপুল বৃত্তির লাভ করেছে।

মিরাজের মা শাহেনা জানায়, কখনো ছেলেকে পড়ার জন্য তাগিদ দেয়া লাগেনি। নিয়মিত লেখাপড়ার পাশাপাশি মা-বাবা, শিক্ষাগুরু ও মুরুব্বীদের সম্মান করাটা যেন তার নিত্য রুটিন। ছেলের শখ নটরডেমে পড়বে। কিন্তু অর্থাভাবে তার স্বপ্ন পূরণ হবে কিনা সে চিন্তায় আছি।

বাজার উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক অলি আহম্মেদ জানান, এক কথায় ছেলেটি অসাধারণ। আমরাসহ সবাই মিলে তাকে সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিলে সে অনেকদুর এগিয়ে যাবে। মিরাজের চিন্তা ভাবনা ঢাকা নটরডেম কলেজে ভর্তি হবে। ভবিষ্যতে সে গনিত নিয়ে উচ্চতর শিক্ষা অর্জন করার ব্যাপারে আশাবাদী।

Print Friendly, PDF & Email
ঘটনাপ্রবাহ: এসএসসি, জিপিএ, পানছড়ি
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

sixteen + four =

আরও পড়ুন