পেকুয়ায় বৃদ্ধ পিতামাতাকে লাঞ্চিত করা সেই সন্তান পুলিশের হাতে আটক

fec-image

কক্সবাজারের পেকুয়ায় বৃদ্ধ পিতামাতাকে জুতা পেটা করে ঘর থেকে বের করে দেওয়ায় সেই সন্তানকে আটক করছে পুলিশ। বৃহস্পতিবার (২৭ মে) সকালে উপজেলার সদর ইউনিয়নের নন্দীর পাড়া এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, ওই এলাকার মৃত নজির আহমদ এর ছেলে বৃদ্ধ আবদুল হামিদ ও তার স্ত্রী বৃদ্ধা মনোয়ারা বেগমকে মারধর করার পর জুতা পেটা করে ঘর থেকে বের করে দেয় দুই সন্তান জিয়াজ উদ্দিন ও আনচার উদ্দিন। স্থানীয়রা আরও জানায়, বিগত এক বছর আগে ছেলেদের নির্যাতন সইতে না পেরে জমিও লিখে দেন ছেলেদের নামে। তারপরও নির্যাতন রুলার থামেনি। অব্যাহত রেখেছে নির্যাতন।

এদিকে ছেলেরা বৃদ্ধ আবদুল হামিদ ও তার স্ত্রী বৃদ্ধা মনোয়ারা বেগমকে মারধর করে জুতা পেটা দিয়ে ঘর থেকে বের করে দেওয়ার প্রতিকার চেয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোতাছেম বিল্যাহ’র দারস্থ হলে ইউএনও বিকালে পেকুয়া থানার পুলিশ নিয়ে ওই বৃদ্ধ আবদুল হামিদের বাড়িতে যায়। ইউএনও স্থানীয়দের সাথে কথা বলে ছেলেরা বৃদ্ধ বাবা মাকে নির্যাতনের সত্যতা পেলে নির্যাতনকারী পুত্র জিয়াজ উদ্দিনকে আটক করে থানায় নিয়ে আসে।

এসময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোতাছেম বিল্যাহ, এএসআই রুপন, স্থানীয় ইউপি মেম্বার আবু ছালেকসহ স্থানীয়রা।

বৃদ্ধ আবদুল হামিদ বলেন, আমি ও আমার স্ত্রী তাদের নির্যাতন সহ্য করতে পারছি না। এখন বাড়ি হারা হয়ে বিচারের আশায় আছি।

বৃদ্ধ পিতা ও মাতা চোখের পানি ফেলে কান্না জড়িত কন্ঠে এ প্রতিবেদককে বলেন, আমরা অসহায় এ বিচার এখানে না পেলেও আল্লাহর কাছে পাবো। ছেলেরা কেন নির্যাতন করে জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমার যা জমি ছিল তাও তারা নির্যাতন করে লিখে নিয়েছে, তারপরও নির্যাতন করে। বৃদ্ধ আবদুল হামিদ শেষ পর্যন্ত তাদের নির্যাতন সহ্য করতে না পেরে আল্লাহর কাছে মৃত্যু কামনা করে নিজের।

এ ব্যাপারে ইউপি সদস্য আবু ছালেক ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন তাদের শাস্তি হোক।

এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোতাছেম বিল্যাহ বলেন, ছেলেরা বৃদ্ধ বাবা ও মাকে মারধর করে ঘর থেকে বের করে দেওয়ায় নির্যাতনকারী ছেলেকে আটক করা হয়েছে তার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Print Friendly, PDF & Email
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

eighteen − five =

আরও পড়ুন