বদরখালী ইউপি’র সাবেক চেয়ারম্যান প্রবীণ রাজনীতিক হান্নান মিয়া আর নেই

fec-image

কক্সবাজারের চকরিয়ার প্রবীণ আওয়ামী লীগ নেতা, উপজেলার উপকূলীয় জনপদ বদরখালী ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক সফল চেয়ারম্যান এবং দক্ষিণ এশিয়ার দ্বিতীয় বৃহত্তম বদরখালী সমবায় কৃষি ও উপনিবেশ সমিতির সাবেক সভাপতি ও সম্পাদক আলহাজ্ব আব্দুল হান্নান বিএ (৭৮) আর নেই।

মঙ্গলবার (১৭ সেপ্টেম্বর) ভোর ৫টার দিকে ঢাকার একটি প্রাইভেট ক্লিনিকে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মৃত্যুবরণ করেন। দীর্ঘদিন ধরে তিনি বার্ধ্যক্যজনিত জনিত রোগে ভুগছিলেন। প্রবীণ নেতা আবদুল হান্নান বিএ বদরখালী ইউনিয়নের ২নম্বর ব্লকের ভারুয়াখালী পাড়া এলাকার মরহুম হাজি সোলতান আহমদের পুত্র। মৃত্যুকালে তিনি স্ত্রী, তিন ছেলে, কন্যা, নাতি-নাতনিসহ অসংখ্য গুনাগ্রাহী রেখে যান।

তিনি ১৯৬০ সালে ঢাকা বোর্ড থেকে ২য় বিভাগে উত্তীর্ণ হয়ে মেট্রিকুলেশন, একই বোর্ডের অধীনে ১৯৬৩ সালে ৩য় বিভাগ নিয়ে এইচ এস সি ও ১৯৬৫ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বি,এ পাস করেন। তিনি মৃত্যুর আগমুহুর্ত পর্যন্ত সামাজিক, রাজনৈতিক, বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, ইউনিয়ন পরিষদ ও বদরখালী সমবায় কৃষি ও উপনিবেশ সমিতির একাধারে দায়িত্ব পালন করেছেন।

বদরখালী কলেজ প্রতিষ্ঠাকালে কলেজ কমিটির সদস্য হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন তিনি।১৯৯৯ ইং থেকে ২০০১ ইং পর্যন্ত কলেজ কমিটির সদস্য হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন।২০০৫ ইং থেকে ২০০৭ ইং পর্যন্ত কলেজ কমিটির সদস্য হিসাবে দায়িত্ব পালন করেন। পূর্ব পাকিস্তান ইউনাইটেড ব্যাংক ১৯৬৬ ইং সালে অফিসার পদে যোগদান করে ১৯৬৯ ইং ম্যানেজার পদে উন্নীত হয়ে ১৯৭১ সালে চাকুরী থেকে অব্যাহতি নেন। স্বাধীনতা যুদ্ধ পরবর্তীতে ১৯৭২ সাল থেকে সরকার মনোনীত ইউনিয়ন পরিষদ রুনির চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। ১৯৭২ ইং সাল থেকে ১৯৮০ পর্যন্ত ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতির দায়িত্ব পালন করেন।

তিনি বদরখালী সমবায় কৃষি ও উপনিবেশ সমিতির নির্বাচিত সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করেন। এছাড়া তিনি বদরখালী ইউনিয়ন পরিষদ এর নির্বাচিত চেয়ারম্যান, নির্বাচিত বদরখালী সমবায় কৃষি ও উপনিবেশ সমিতির সভাপতি হিসাবে দায়িত্ব পালন ও বদরখালী সমবায় কৃষি ও উপনিবেশ সমিতির সভাপতি হিসাবে দায়িত্ব পালন করেন।

২০০৯ সালে গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নিকট থেকে জাতীয় সমবায় পুরস্কার লাভ করেন এবং ২০১৮ ইং সাল থেকে বর্তমান কলেজ কমিটির সদস্য হিসাবে দাযিত্ব পালন করেছিলেন।

Print Friendly, PDF & Email
ঘটনাপ্রবাহ: আওয়ামী লীগ, ইউনিয়ন পরিষদ, প্রধানমন্ত্রী
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

13 − two =

আরও পড়ুন