বিনম্র শ্রদ্ধা ভালোবাসায় মানিকছড়িতে মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস পালিত

fec-image

২৬ মার্চ মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস-২১ স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উদযাপনে উপজেলা প্রশাসন, মুক্তিযোদ্ধা সংসদ, আওয়ামী লীগ, জাতীয়পার্টি, বিএনপিসহ বিভিন্ন সামাজিক ও ক্রীড়া সংগঠনের উদ্যোগে বিনম্র শ্রদ্ধা ও ভালোবাসায় শহীদ বীর মুক্তিযোদ্ধাদের স্মরণ এবং বীর মুক্তিযোদ্ধাদের বরণের মধ্য দিয়ে মানিকছড়িতে স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উদযাপন করা হয়েছে।

২৬ মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস এবং স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উদযাপনে সকালে সূর্যোদয়ের সাথে সাথে সকল অফিস আদালত, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান, ক্লাব, ব্যবসায়ী প্রতিষ্ঠানে জাতীয় দলীয় পতাকা উত্তোলন শেষে সকাল ৮টায় স্কুল মাঠে অনুষ্ঠিত হয় জাতীয় পতাকা উত্তোলন, কুচকাওয়াজ, সালাম গ্রহণ ও সূর্যসন্তান বীর মুক্তিযুদ্ধাদের সংবর্ধনা।

উক্ত অনুষ্ঠানাদিতে সভাপতিত্ব করেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার তামান্না মাহমুদ। প্রধান অতিথি ছিলেন, উপজেলা চেয়ারম্যান ও আওয়ামী লীগ সভাপতি মো. জয়নাল আবেদীন।
অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ও সার্কেল মো. সাইফুল ইসলাম, পার্বত্য খাগড়াছড়ি জেলা পরিষদ সদস্য ও আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক মো. মাঈন উদ্দীন, সহকারী কমিশনার (ভূমি),রিফাত আসমাসহ সকল দপ্তর প্রধান, শিক্ষক, সাংবাদিক ও বিভিন্ন সামাজিক ও স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ।

সকাল সাড়ে ৭ টায় শহীদ মিনারে পুস্পমাল্য অর্পণ শেষে জাতীয় পতাকা উত্তোলনে সালাম গ্রহণ করেন উপজেলা চেয়ারম্যান মো. জয়নাল আবেদীন, ইউএনও তামান্না মাহমুদ ও অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. সাইফুল ইসলাম।

এরপর সকলের উদ্দ্যেশে বক্তব্যে উপজেলা চেয়ারম্যান মোঃ জয়নাল আবেদীন ও ইউএনও তামান্না মাহমুদ বলেন, আজ মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস। বীর মুক্তিযোদ্ধাদের আত্মার বিনিময়ে অর্জিত স্বাধীনতার আজ সুবর্ণজয়ন্তী।

আজকের এই দিনে দেশের সকল অর্জন, সফলতার দাবীদার মুক্তিযুদ্ধারা। শহীদ, যুদ্ধাহত সকল মুক্তিযুদ্ধাদের প্রতি আমাদের বিনম্র শ্রদ্ধা। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান জন্মশতবর্ষ ও স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীতে আমরা আজ দেশকে স্বল্পোন্নত থেকে উন্নয়নশীল শেষে অন্তর্ভুক্ত করতে পেরেছি একমাত্র মুক্তিযুদ্ধের স্বপক্ষের শক্তি ক্ষমতায় থাকার কারণে।

পরে উপজেলার অর্ধশত বীর মুক্তিযোদ্ধাকে ফুলেল শুভেচ্ছায় বরণ করে নেন অতিথিরা। এ সময় মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস, ঐতিহ্য তুলে ধরে স্মৃতিচারণ করেন বীর মুক্তিযুদ্ধা মো. আলী হোসেন।

পরে বক্তব্য রাখেন, অতিথি দীলিপ কুমার দে, যুবলীগ সভাপতি মো. সামায়উন ফরাজী, জেলা পরিষদ সদস্য মো. মাঈন উদ্দীন, অফিসার ইনচার্জ আমির হোসেন, সহকারী কমিশনার ভূমি রিফাত আসমা, সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান এম.এ. রাজ্জাক, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোঃ সাইফুল ইসলাম, প্রধান অতিথি মোঃ জয়নাল আবেদীন ও ইউএনও তামান্না মাহমুদ।

বক্তারা বলেন, মুক্তিযুদ্ধ ও দেশের পতাকা অর্জনে বীর মুক্তিযোদ্ধাদের অবদান জাতি আজ বিনম্র চিত্তে স্মরণ করছে। বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনা দেশকে স্বল্পোন্নত থেকে উন্নয়নশীল দেশে পরিণত করেছেন। আর এ সবই হয়েছে মুক্তিযুদ্ধের ধারক বাহক আওয়ামী লীগ নেত্রী বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনার দেশপ্রেমের কারণে। বাংলাদেশ এখন বিশ্ব মডেল, আসুন আমরা দেশকে উন্নয়নশীল দেশে রুপান্তর করতে দেশপ্রেমে আরোও আন্তরিক হই।

Print Friendly, PDF & Email
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

fourteen + 11 =

আরও পড়ুন