ভাষা ও সংস্কৃতি মেলা স্ব-স্ব ভাষা-সংস্কৃতির উন্মেষ ঘটাবে: কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা এমপি

fec-image

ভারত প্রত্যাগত শরনার্থী বিষয়ক টাস্কফোর্সের চেয়ারম্যান (প্রতিমন্ত্রীর পদমর্যাদা) কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা এমপি বলেছেন, ভাষা আন্দোলন, মহান স্বাধীনতা সংগ্রামসহ প্রতিটি গণআন্দোলনের ছিল বাংলা, বাঙালি ও বাংলাদেশের অস্তিত্বের প্রশ্নে। বাঙালির রক্তস্নাত আত্মত্যাগের পথ পাড়ি দিয়ে জাতীয় জীবনে অর্জিত মাতৃভাষা ও স্বাধীনতা সংগ্রামী শহীদদের ঋণশোধ করতে হবে।

শুক্রবার (২২ ফেব্রুয়ারি) বিকালের দিকে মহান শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে মাটিরাঙ্গা উপজেলা প্রশাসন আয়োজিত তিন দিনব্যাপী ‘ভাষা সংস্কৃতি ও বই মেলা’র সমাপনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

বিএনপি বারবার ইতিহাস বিকৃত করে মন্তব্য করে কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা এমপি বলেছেন, স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থীদের পাঠ্য বইয়ের পাশাপাশি ইতহাস জানাতে হবে। ইতিহাস ভুলে গেলে চলবেনা। ইতিহাস আমাদের আগামী প্রজন্মকে প্রেরণা জোগাবে।

ভাষা সংস্কৃতি ও বই মেলা সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির মেলবন্ধনকে সুদৃঢ় করবে। স্ব-স্ব ভাষা-সংস্কৃতির উন্মেষ ঘটাবে। এ আয়োজনের মধ্য দিয়েই শহীদ দিবসের চেতনাকে বাস্তবায়ন করা সম্ভব বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

মাটিরাঙ্গা উপজেলা নির্বাহী অফিসার বিভীষণ কান্তি দাশ’র সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে মাটিরাঙ্গা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মো. রফিকুল ইসলাম, মাটিরাঙ্গা থানার অফিসার ইনচার্জ মো. শামসুদ্দিন ভুইয়া, মাটিরাঙ্গা পৌরসভার মেয়র মো. শামছুল হক, মাটিরাঙ্গা উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এম. হুমায়ুন মোরশেদ খান প্রমুখ বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন।

পরে মহান শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে মাটিরাঙ্গা উপজেলা প্রশাসন আয়োজিত বিভিন্ন প্রতিযোগিতা ও মেলায় অংশগ্রহনকারী বিজয়ীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করেন ভারত প্রত্যাগত শরনার্থী বিষয়ক বিষয়ক টাস্কফোর্সের চেয়ারম্যান (প্রতিমন্ত্রীর পদমর্যাদা) কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা এমপি।

এসময় মাটিরাঙ্গা উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান মিসেস হাসিনা বেগম, মাটিরাঙ্গা উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার মীর মো: মোহতাসিম বিল্লাহ, যুব উন্নয়ন কর্মকর্তা শেখ মো: আশরাফ উদ্দিন, মাটিরাঙ্গা উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার মো: মনিরুজ্জামান, মাটিরাঙ্গা উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা রাজকুমার শীল, রিসোর্স ইনস্ট্রাক্টর মো. আসগর হোসেন প্রমুখ অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন।

Print Friendly, PDF & Email
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

fifteen − two =

আরও পড়ুন