মহানবী (সা.) কে কটূক্তির প্রতিবাদে দীঘিনালায় মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ

fec-image

ভারতীয় জনতা পার্টির (বিজেপি) মুখপাত্র নূপুর শর্মা ও গণমাধ্যম শাখার দিল্লি মিডিয়া প্রধান নবীন কুমার জিন্দাল কর্তৃক মহানবী হযরত মুহাম্মদ (সা.) কে নিয়ে বিতর্কিত মন্তব্যের প্রতিবাদে দীঘিনালায় মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে।

সোমবার (১৩ জুন) সকাল ৯টায় দীঘিনালা ইমাম মুয়াযযিন ঐক্য পরিষদের উদ্যোগে এবং ইমাম ওলামা-মাশায়েখ ও সর্বস্তরের তৌহিদি জনতার ব্যানারে এ বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।

এর আগে সকাল সাড়ে ৮টার দিকে উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়ন হতে দলে দলে হাজারো মুসলিম জনতা বিক্ষোভ মিছিল নিয়ে বঙ্গবন্ধু চত্বরে জড়ো হয়।

পরে সেখানে ওলামা মাশায়েখ ও সর্বস্তরের তৌহিদি জনতার পক্ষ থেকে মহানবী হযরত মুহাম্মদ (সা.) কে নূপুর শর্মা ও নবীন কুমার জিন্দাল কর্তৃক অবমাননাকর বক্তব্যের প্রতিবাদে বিক্ষোভ সমাবেশে যোগ দেন সবাই।

দীঘিনালা কেন্দ্রীয় মসজিদের ইমাম মাওলানা জামালুল হাসানের সভাপতিত্বে ও দীঘিনালা ইমাম মুয়াজ্জিন ঐক্য পরিষদের সাংগঠনিক সম্পাদক মাওলানা মুহিউদ্দীন বিন সুরুজের সঞ্চালনায় সমাবেশে বক্তব্য রাখেন ইমাম মুয়াজ্জিন ঐক্য পরিষদের উপদেষ্টা মাওলানা নুরুল আবছার নদভী, উপদেষ্টা মাওলানা মো. ইলিয়াস, উপদেষ্টা মাওলানা শেখ বাহার উল্লাহ।

এ সময় গাউসুল আজম জামে মসজিদের খতিব মাওলানা আসলাম উদ্দীন, পূর্ব হাচিনসনপুর জামে মসজিদের ইমাম ও খতিব মাওলানা কাউসার আজীজী, কবাখালী জালালাবাদ জামে মসজিদের ইমাম ও খতিব মাওলানা আব্দুস সবুর আল কাদেরী, মাওলানা ফয়েজ আহমদ নোমান, মাওলানা শাহজাহান আল কাদেরী, মাওলানা মোহাম্মদ ইসহাক, মাওলানা হামিদ উল্লাহ নোমান বক্তব্য রাখেন।

বিক্ষোভ সমাবেশে বক্তারা বাংলাদেশের জাতীয় সংসদে নিন্দা প্রস্তাব পাশের দাবি জানান। পাশাপাশি সবধরনের ভারতীয় পণ্য বর্জন এবং নূপুর শর্মা ও নবীন কুমার জিন্দালকে গ্রেফতার করে আইনের আওতায় আনতে বাংলাদেশের পক্ষ থেকে ভারতের প্রতি জোর দাবি জানানোর জন্য সরকারের প্রতি আহ্বান জানান।

বক্তারা আরও বলেন,’কোন মুসলমান বিশ্বনবীর অপমান সহ্য করতে পারেনা। মুসলমানেরা প্রিয় নবীজীকে তাদের জীবনের চেয়ে বেশি ভালবাসে। সংখ্যাগরিষ্ঠ মুসলমানের দেশে রাষ্ট্রিয়ভাবে প্রতিবাদ হওয়া প্রয়োজন সব রাজনৈতিক দল এই প্রতিবাদে সোচ্চার হওয়া প্রয়োজন। রাসুল (সা.) কে অতীতে যারা অপমান করেছেন তারা ধ্বংস হয়েছে। নূপুর শর্মা ও নবীন কুমার জিন্দালের পরিণতিও হবে ভয়াবহ। তাদের বিচারের আওতায় এনে কঠোর শাস্তি দিতে হবে।’

বিক্ষোভ সমাবেশ শেষে দোয়া ও মুনাজাত পরিচালনা করেন দীঘিনালা কেন্দ্রীয় মসজিদের ইমাম ও খতিব মাওলানা জামালুল হাসান।

Print Friendly, PDF & Email
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

4 + eighteen =

আরও পড়ুন