মহেশখালীতে রুহুল হত্যায় আসামীদের গ্রেফতারের দাবিতে মানববন্ধন

fec-image

মহেশখালী উপজেলা কালারমারছড়া ইউনিয়ন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক আব্বাস উদ্দিনের ছোট ভাই রুহুল কাদের হত্যাকাণ্ডে জড়িতদের গ্রেফতার ও বিচারের দাবিতে মানববন্ধন করেছে নিহত রুহুলের পরিবার ও কালারমারছড়া এলাকাবাসী।

সোমবার (৮ নভেম্বর) সকাল ৯টা থেকে ১০টা পর্যন্ত জনতাবাজার গোরকঘাটা সংলগ্ন প্রধান সড়কের কালারমারছড়া বাজারে ঘন্টাব্যাপি এ মানববন্ধন করা হয়। মানববন্ধনে এলাকাবাসীর সাথে অংশগ্রহণ করেন কালারমারছড়া ইউপি চেয়ারম্যান তারেক বিন ওসমান শরীফ, স্থানীয় আওয়ামী লীগ, যুবলীগ ও ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা। এছাড়াও এলাকার শত শত নারী-পুরুষ মাদ্রাসা পড়ুয়া শিক্ষার্থী অংশ গ্রহণ করেন এ মানববন্ধনে।

মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশে যুবলীগ নেতার ছোট ভাই রুহুল হত্যাকাণ্ডের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে এ ন্যাক্কারজনক হত্যাকাণ্ডে জড়িতদের অনতিবিলম্বে গ্রেফতার পূর্বক দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানিয়ে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন কালারমারছড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান তারেক শরীফ এবং নিহতের ভাইপো ইমতিয়াজ মোহাম্মদ আকিব, আনিছ ফরহাদ শাওন, এনজিও কর্মকর্তা কুরবান আলী, মৌলবী আবু তাহের, নিহতের পিতা মোহাম্মদ আমিন, যুবলীগ নেতা আব্বাস সিকদার ও নিহতের স্ত্রী ফাতেমা বেগম প্রমুখ।

মানববন্ধনে উপস্থিত বক্তারা বলেন, প্রশাসন চাইলেই রুহুল কাদের হত্যাকারীদের খুঁজে বের করে বিচারের আওতায় আনতে পারে। তবে প্রশাসনের উদাসীনতার জন্য এখন পর্যন্ত কেউ গ্রেফতার হয়নি। অতিদ্রুত গ্রেফতার না হলে তারা কঠোর আন্দোলনে নামতে বাধ্য হবে।

এ সময় তারা মহেশখালী উপজেলা বঙ্গবন্ধু মানবকল্যাণ পরিষদের সভাপতি রুহুল হত্যাকারীদের দ্রুত গ্রেফতার ও বিচারের দাবি জানান। এসময় নিহতের পরিবার ও এলাকাবাসি রুহুল হত্যার আসামি সন্ত্রাসী কানা বাদশাহ, আব্দুল গফুর, নাজেম উদ্দিন, সরওয়ার, মোহাম্মদ হেলাল, মোহাম্মদ মানিক, মোহাম্মদ বাইতুল্লাহ, আরফতা, মোহাম্মদ শুক্রুর, মোহাম্মদ মামুন, মোহাম্মদ মনিয়াসহ আজিজকে গ্রেফতার পূর্বক আইনের আওতায় আনার দাবি জানান।

প্রসঙ্গতঃ গত ১৮ অক্টোবর উপজেলার কালারমারছড়া বাজার থেকে রাতে বাড়ী ফেরার পথে ফকিরজুম পাড়া গ্রামে পৌছঁলে আগে থেকে ওঁৎপেতে থাকা সন্ত্রাসীরা রুহুল কাদেরের গতিরোধ করে কুপিয়ে ও গুলি করে পালিয়ে যায়। পরে স্থানীয় লোকজন ঘটনাস্থল থেকে তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নেওয়ার পথে সে মারা যায়।

Print Friendly, PDF & Email
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

twelve + seven =

আরও পড়ুন