রামগড়ে ইউপি মেম্বারের ভাতিজার দা’র কোপে গৃহবধু আহত

fec-image

খাগড়াছড়ির রামগড়ে এক ইউপি মেম্বারের ভাতিজাদের দা”র কোপে আহত হয়েছেন আয়েশা বেগম(২৮) নামে এক গৃহবধূ। উপজেলার পাতাছড়া ইউনিয়নের ৩নং ওয়ার্ডের সদস্য আবদুল লতিফের ভাতিজা ইয়াসিনের দা”র কোপ থেকে স্বামী খোরশেদ আলমকে বাঁচাতে গিয়ে তিনি জখমপ্রাপ্ত হন। এ সময় ইয়াছিন ও তার অপর দুই ভাই মিলে খোরশেদকে বেদম মারধর করে। আহত আয়েশাকে রামগড় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

পাতাছড়া ইউনিয়নের প্রত্যন্ত রসুলপুর এলাকায় বৃহস্পতিবার (২২এপ্রিল) সন্ধ্যার প্রাককালে এ ঘটনা ঘটে।

আহত গৃহবধূর স্বামী খোরশেদ আলম অভিযোগ করেন, স্থানীয় ইউপি মেম্বার আব্দুল লতিফের ভাই ফজর আলীর ছেলে আকাশ বৃহস্পতিবার সন্ধ্যার প্রাককালে ছাগলে গাছ খাওয়ার মিথ্যা কথা বলে খোরশেদকে অশ্লীল ভাষায় গালমন্দ ও হুমকি ধমকি দেয়। এতে প্রতিবাদ করলে দুজনের মধ্যে বাকবিতণ্ডা শুরু হয়। এক পর্যায়ে আকাশের ভাই ইয়াছিন দৌড়ে এসে খোরশেদকে ধারালো দা দিয়ে কোপ দিলে তিনি সরে গিয়ে প্রাণ বাঁচান।

এ সময় আকাশ তার অপর ভাই নাজমুলকে ফোন করে এনে তিন মিলে খোরশেদের উপর আক্রমণ চালায়। এ অবস্থায় স্বামীর আর্তচিৎকার শুনে তাকে রক্ষা করতে ছুটে আসেন স্ত্রী আয়েশা বেগম(২৮)। মারপিটের এক পর্যায়ে ইয়াছিন পুনরায় খোরশেদকে দা দিয়ে কোপ দেয়ার সময় আয়েশা স্বামীকে বাঁচাতে এলে তিনি নিজে ওই দা’র কোপে আহত হন। পরে স্থানীয় লোকজন এসে আহত স্বামী স্ত্রীকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসার জন্য পাঠায়।

আহত গৃহবধুর মা হালিমা খাতুন বলেন, নিকটস্থ নাকাপা পুলিশ ফাঁড়িতে ঘটনাটি জানালে দায়িত্ব প্রাপ্ত আইসি থানায় গিয়ে মামলা করার পরামর্শ দেন।

খোরশেদ জানান, রামগড় থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করলেও পুলিশ দুদিনেও কোন ব্যবস্থা নেয়নি।

এদিকে ঘটনার বিষয়ে ইউপি সদস্য আবদুল লতিফ বলেন, “আমাকে ঘটনাটি জানালে আমিও দুই পক্ষকে নিয়ে ২ সপ্তাহ পর সালিশ বিচারের ব্যবস্থা নেয়ার কথা বললে তারা (আহত পরিবার) প্রত্যাখান করে চলে যায়।

রামগড় থানার এস আই অজয় চক্রবর্তী বলেন ,অভিযোগ পেয়েছি। তদন্ত করে পরবর্তীতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

Print Friendly, PDF & Email
ঘটনাপ্রবাহ: আহত, গৃহবধু, রামগড়ে
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

4 × 3 =

আরও পড়ুন