সততা, পেশাদারিত্ব ও মানবিকতা বজায় রাখার আহ্বান ডিআইজি’র

fec-image

বাংলাদেশ পুলিশ চট্টগ্রাম রেঞ্জের নবনিযুক্ত ডিআইজি মো. আনোয়ার হোসেন বলেছেন, ‘স্বাধীনতা যুদ্ধ থেকে এযাবৎকালে করোনা মহামারী পর্যন্ত জাতির প্রতিটি ক্রান্তিলগ্নে পুলিশের অনন্য ভূমিকা ছিল। তারপরও গুটি কয়েক পুলিশ সদস্যের অপেশাদারিত্ব ও অনিয়মের কারণে গোটা পুলিশ বাহিনীর ভাবমূর্তি বিনষ্ট হয়। প্রতিটি পেশার মত পুলিশ বিভাগের কর্মকাণ্ডও সাধারণ মানুষ দ্বারা মূল্যায়িত হয়। সাধারণ মানুষই পুলিশকে তার ভালো কাজের জন্য প্রশংসা করেন, আবার খারাপ কাজের জন্য নিন্দা করেন। তাই সিদ্ধান্ত আপনাদের ভাল কাজ দ্বারা মানুষের মনে স্থান করে নিবেন নাকি নিন্দিত হবেন।’

সোমবার (১৪সেপ্টেম্বর) সন্ধ্যায় রাঙামাটি জেলা পুলিশ লাইন্সে বিশেষ কল্যাণ সভায় জেলার সর্বস্তরের পুলিশ সদস্যের উদ্দেশ্যে তিনি এসব কথা বলেন।

ডিআইজি বলেন, পুলিশ দেশের প্রচলিত আইনের প্রতি শ্রদ্ধা রেখে সম্মান ও মর্যাদার দিকে খেয়াল রেখে জনগণের প্রতি সেবার মনোভাব নিয়ে আচরণও পেশাগত দায়িত্ব পালন করতে হবে। তিনি শৃঙ্খলার ক্ষেত্রে কঠোর ও পুলিশের কল্যাণের ক্ষেত্রে উদার মনোভাব দেখানোর বিষয়ে সকল পুলিশ কর্মকর্তাদের নির্দেশ দেন।

বিশেষ কল্যাণ সভায় সভাপতির বক্তব্যে পুলিশ সুপার মো. আলমগীর কবির জেলার আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির বর্ণনা দেন ও সকল পুলিশ সদস্যদের ডিআইজির বার্তা অনুধাবন করে পেশা দারিত্ব এবং মানবিক আচরণের প্রতি আরও যত্নশীল হওয়ার আহ্বান জানান। শেষে ডিআইজি আনোয়ার হোসেন পুলিশ লাইন্সের বিভিন্ন স্থাপনা ঘুরে দেখেন এবং পলওয়েল পার্ক ও আরশিনগর এগ্রো-ট্যুরিজমফার্ম পরিদর্শন করেন।

সভাপতির বক্তব্যে রাঙামাটি জেলার পুলিশ সুপার মো. আলমগীর কবীর পিপিএম-সেবা রাঙামাটি জেলার সুন্দর আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির বর্ণনা দেন ও সকল পুলিশ সদস্যদের ডিআইজি মহোদয়ের বার্তা অনুধাবন করে পেশাদারিত্ব এবং মানবিক আচরণের প্রতি আরো যত্নশীল হয়ে দায়িত্ব পালনের আহ্বান জানান। সভাশেষে, ডিআইজি জেলা পুলিশের পক্ষ থেকে সম্মাননা স্মারক প্রদান করেন পুলিশ সুপার।

এর আগে ডিআইজির উদ্দেশ্যে রাঙামাটি জেলার আইন-শৃঙ্খলা রক্ষায় জেলা পুলিশের জনবল, কর্মপ্রক্রিয়া, থানা, ফাঁঁড়ি, ক্যাম্প, চেকপোস্ট, আইন-শৃঙ্খলা রক্ষা ও পর্যটন শিল্পের বিকাশে জেলা পুলিশের ভূমিকা প্রভৃতি বিষয়ে উপস্থাপনা তুলে ধরেন, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন) মো. ছুফি উল্লাহ।

ডিআইজি কল্যাণ সভার শেষে পুলিশ লাইন্সের বিভিন্ন স্থাপনা ঘুরে দেখেন এবং পলওয়েল পার্ক ও আরশিনগর এগ্রো-ট্যুরিজম ফার্ম পরিদর্শন করে পুলিশ সুপারের নেতৃত্বে জেলার সকল পুলিশ সদস্যের টিমওয়ার্কের প্রশংসা করেন।

Print Friendly, PDF & Email
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

seventeen − eleven =

আরও পড়ুন