‘স্বাস্থ্য বিভাগের বিচক্ষণতায় করোনাকালীন মৃত্যুহার ও ক্ষতি কম হয়েছে’

fec-image

রাঙামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান অংসুই প্রু চৌধুরী বলেছেন, স্বাস্থ্য বিভাগের বিচক্ষতায় করোনাকালীন সময়ে জেলায় মৃত্যুহার ও ক্ষয়ক্ষতি কম হয়েছে। বুধবার (১৮ মে) সকালে জেলা পরিষদের সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত মাসিক সভায় সভাপতির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

এ সময় তিনি আরো বলেন, কাজের প্রতি সদিচ্ছা এবং নিষ্ঠা থাকলে যেকোন কাজে সফল হওয়া যায় তার উদাহরণ স্বাস্থ্য বিভাগ। একইভাবে এলাকার উন্নয়নকাজে সকলের সদিচ্ছা ও সহযোগিতা থাকলে সকল বিভাগের কর্মসূচি সফলভাবে বাস্তবায়ন করা সম্ভব হবে। পরিষদ এবং হস্তান্তরিত বিভাগের মধ্যে বিভিন্ন বিষয়ে প্রশাসনিক সংক্রান্ত যেসমস্ত সমস্যা আছে তা সমঝোতার মাধ্যমে কাটিয়ে উঠে সরকারের প্রত্যাশিত উন্নয়ন প্রকল্প বাস্তবায়নে এগিয়ে আসার আহ্বান জানান তিনি।

জেলা পরিষদের মুখ্য নির্বাহী কর্মকর্তা মো. আশরাফুল ইসলাম এর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত সভায় জেলা পরিষদের সদস্য ঝর্ণা খীসা, দিপ্তীময় তালুকদার, অংসুই ছাইন চৌধুরী, সবির কুমার চাকমা, রেমলিয়ানা পাংখোয়া, নিউচিং মারমা, ইলিপন চাকমা, প্রিয় নন্দ চাকমা, বিপুল ত্রিপুরা, মো. আব্দুর রহিম, মোসাম্মৎ আছমা বেগম, প্রবর্তক চাকমা, সিভিল সার্জন ডা. বিপাশ খীসা, জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার মো. সাজ্জাদ হোসেন, জনস্বাস্থ্য অধিদপ্তরের নির্বাহী প্রকৌশলী অনুপম দে, স্বাস্থ্য প্রকৌশলের সহকারী প্রকৌশলী মো. অলিউর রহমান, জেলা মৎস্য কর্মকর্তা শ্রীবাস চন্দ্র চন্দ, সমাজসেবা বিভাগের উপ-পরিচালক মোহাম্মদ ওমর ফারুক, যুব উন্নয়ন অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক মো. শাহজাহান, জেলা সমবায় উপসহকারী নিবন্ধক কেফায়েত উল্লাহ খানসহ সংশ্লিষ্ট বিভাগের অন্যান্য কর্মকর্তারা অংশ নেন। সভায় হস্তান্তরিত বিভাগের কর্মকর্তাগণ স্ব-স্ব প্রতিষ্ঠানের কাজের অগ্রগতি তুলে ধরেন।

Print Friendly, PDF & Email
ঘটনাপ্রবাহ: রাঙামাটি, স্বাস্থ্য
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

4 × 5 =

আরও পড়ুন