উখিয়ায় ইয়াবা ব্যবসায়ীর গুলিবিদ্ধ লাশ উদ্ধার

fec-image

কক্সবাজার-টেকনাফ মেরিন ড্রাইভ সড়কের উখিয়ার ইনানী এলাকা থেকে এক গুলিবিদ্ধ ইয়াবা ব্যবসায়ীর লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। তার নাম নজরুল।

মঙ্গলবার (২৩ জুলাই) সকাল ৯টার দিকে ইনানী পুলিশ প্রত্যক্ষদর্শীর খবরের ভিত্তিতে লাশটি উদ্ধার করে। পুলিশ জানিয়েছেন, এলাকাবাসির খবরের ভিত্তিতে এক ব্যক্তিকে গুলিবিদ্ধ অবস্থা উদ্ধার করে হাসপাতালে নেয়া হলে সকাল ১০টার দিকে দায়িত্বরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

ইনানী পুলিশ ফাঁড়ির আইসি (উপপরিদর্শক) সিদ্ধার্থ জানান, স্থানীয় প্রত্যক্ষদর্শীর ইনানী মেরিন ড্রাইভের পাশে একটি গুলিবিদ্ধ দেহ পড়ে থাকতে দেখে পুলিশকে খবর দেয়। পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে এক ব্যক্তিকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় উদ্ধার করে। এসময় তার কাছ থেকে ১টি দেশীয় তৈরী বন্দুক, ১রাউন্ড কার্তুজ, ৫শ পিস ইয়াবা পাওয়া যায়। গুলিবিদ্ধ ব্যক্তিকে তাকে হাসপাতালে নেয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত বলে ঘোষণা দেন। এরপর লাশ ময়না তদন্তের জন্য কক্সবাজার মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে।

তিনি জানান, প্রত্যক্ষদর্শী মতে প্রাথমিক ভাবে লাশটি পরিচয় সনাক্ত করা গেছে, সে উখিয়া উপজেলার রাজাপালং ইউনিয়নের ৭ নং ওয়ার্ডের শামশুল আলম সিকদারের ছেলে নজরুল সিকদার (৩৫)। তাদের মধ্যে ইয়াবা সংক্রান্ত অভ্যান্তরিন দ্বন্ধের কারনে প্রতিপক্ষের গুলিতে হয়তো সে মারা গেছে।

উখিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ আবুল মনসুর জানান, ইনানী মেরিন ড্রাইভ এলাকা থেকে সকাল ৯টার দিকে এলাকাবাসির খবরের ভিত্তিতে এক ব্যক্তিকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নেয়া হলে ডাক্তার তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

উল্লেখ্য, গত ৫ মে বিকেল ৫টার দিকে কক্সবাজার ব্যাটালিয়ন (৩৪ বিজিবি) আওতাধীন রেজুআমতলী বিওপি’র সদস্যরা গোপন সংবাদের ভিত্তিতে উখিয়া উপজেলার ৪নং রাজাপালং ইউপি’র জলিলেরগোদা নামক স্থান চোরাচালান বিরোধী অভিযান চালিয়ে মোঃ মামুনুর রশিদ (২৪) নামের এক যুবককে ৯৪০০পিস ইয়াবাসহ আটক করে। সে রাজাপালং ৭নং ওয়ার্ডের টাইপালং গ্রামের মোহাম্মদ শফি ছেলে।উক্ত মামলায় নিহত নজরুল সিকদারকে পলাতক আসামী দেখানো হয়। এই মামলায় আরো ২ জনকে পলাতক আসামী করে বিজিবি। এরা হলেন- টাইপালং গ্রামের মোঃ মিরু’র ছেলে মোঃ রকি (২২) এবং রেজু আমতলী এলাকার মৃত আলী আহম্মেদের ছেলে মোঃ নুর আলম (৩৩)।

Print Friendly, PDF & Email

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

nine + thirteen =

আরও পড়ুন