“মাননীয় জেলা প্রশাসকের পক্ষে দুই দফা তারিখ নির্ধারনের পর ঘূূর্নিঝড়ের কারণে স্থানীয়দের জন্য চাকরির মেলা পেছানো হয়।”

এনজিও’র চাকরি মেলা নিয়ে প্রশাসনের ধোঁয়াশায় হতাশ স্থানীয়রা

fec-image

রোহিঙ্গা ক্যাম্পের এনজিওতে স্থানীয়দের চাকরির মেলার আয়োজন নিয়ে প্রশাসনের ধোঁয়াশার কারণে হতাশা ব্যক্ত করেছে চাকরির আন্দোলনকারীরা। প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী স্থানীয়দের চাকরির জন্য মেলা দ্রুত আয়োজন করার আহ্বান জানান, উখিয়ায় এনজিওর চাকরির দাবিতে আন্দোলনরত স্থানীয়রা।

কক্সবাজারের উখিয়ায় রোহিঙ্গা ক্যাম্পে কর্মরত এনজিওর চাকরিতে স্থানীয়দের অগ্রাধিকার ও রোহিঙ্গাদের প্রত্যাবাসনের দাবিতে অধিকার বাস্তবায়ন কমিটি উখিয়া’র সভাপতি শরীফ আজাদের সভাপতিত্বে ও সমাধাণ সম্পাদক তৌচিফ চৌধুরী সঞ্চালনায় বিশেষ আলোচনায় সভা বিকাল ৫টায় কোটবাজারস্থ অস্থায়ী কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত হয়।

এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন আন্দোলনকারীদের নেতৃত্বদানকারী যুবনেতা ও যমুনা টেলিভিশনের কক্সবাজার জেলা প্রতিনিধি সাংবাদিক ইমরুল কায়েস চৌধুরী।

এ সময় বক্তারা বলেন, রোহিঙ্গা ক্যাম্পে কর্মরত এনজিও’র চাকরিতে স্থানীয়দের অগ্রাধিকারের দাবীতে আমরা দীর্ঘদিন ধরে আন্দোলন করে আসছি। এ আন্দোলনের প্রেক্ষিতে কক্সবাজার জেলা প্রশাসক চাকরির মেলা আয়োজন করার কথা বলে আমাদেরকে একাধিবার আশস্থ করেছেন। কিন্তু আজ পর্যন্ত চাকরির মেলার আয়োজন না করায় আমরা হতাশ। মাননীয় জেলা প্রশাসকের পক্ষে দুই দফা তারিখ নির্ধারনের পর ঘূূর্নিঝড়ের কারণে স্থানীয়দের জন্য চাকরির মেলা পেছানো হয়। মে মাসের ৪ তারিখ স্থগিত হওয়া চাকরির মেলা নিয়ে প্রশাসন এখন নিরব রয়েছে। চাকরির মেলা নিয়ে প্রশাসনের এই আচরণে মেলার আয়োজন নিয়ে ধোঁয়াশা দেখা দিয়েছে। এতে হতাশ হয়ে পড়েছে স্থানীয় শত শত চাকরির প্রত্যাশীরা।

আন্দোলনকারী নেতারা বলেন, সরকারের সর্বোচ্চ পর্যায় থেকে রোহিঙ্গা এনজিওতে স্থানীয়দের চাকরির অগ্রাধিকার দেয়ার নির্দেশনার পরও স্থানীয়রা তাদের অধিকার পাচ্ছেনা। এমন পরিস্থিতিতে আবারও স্থানীয়দের মাঝে অসন্তোষ দেখা দিচ্ছে। সভায় স্থানীয়দের চাকরির অগ্রাধিকার নিশ্চিত করতে দ্রুত চাকরির মেলা আয়োজনের দাবি জানান তারা।

এ সময় অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, সহ সভাপতি মনজুর আলম শাহীন, তারেক হাসান, মুফিদুল আলম, হেলাল উদ্দিন, যোবায়েত হোসেন, রফিক আজাদ, আশিকুর রহমান, রফিক উদ্দিন, মোঃ আরমান, সোহেল রানা, আরমান জাহেদ, খোরশেদ আলম, রাসেল মাহমুদ, রিয়াদ, জাহাঙ্গীর আলম, সাহাব উদ্দিন, দিদার প্রমুখ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

3 × one =

আরও পড়ুন