“ রোহিঙ্গাদের অভিযোগ ও দূর্ভোগের কথা মুক্তিযোদ্ধা মন্ত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে অবহিত করবেন বলেও জানান।”
রোহিঙ্গাদের পুর্ণ

নাগরিকত্ব না দেওয়া পর্যন্ত জোর করে ফেরৎ পাঠানো হবেনা

fec-image

 

মিয়ানমারে রোহিঙ্গাদের পুর্ণ নাগরিকত্ব না পাওয়া পর্যন্ত জোর করে কোন রোহিঙ্গাকে মিয়ানমারে ফেরৎ পাঠানো হবেনা বলে জানিয়েছেন মুক্তিযোদ্ধা মন্ত্রী আখম মোজাম্মেল হক।

রোববার (৯ জুন) দুপুর ১টায় উখিয়ার কুতুপালং ক্যাম্প ২ এর সিআইসি কার্যালয়ে সরকারি কর্মকর্তা ও রোহিঙ্গা নেতাদের সাথে আধ ঘন্টাব্যাপী মতবিনিময়কালে একথা জানান।

এসময় মন্ত্রী রোহিঙ্গা নেতাদের নিকট থেকে জানতে চান, ক্যাম্পে কি সমস্যা রয়েছে। এর জবাবে রোহিঙ্গা নেতারা বলেন, চিকিৎসা, শিক্ষা ব্যবস্থা, রাত্রিকালীন নিরাপত্তা ও এনজিওরা রোহিঙ্গাদের সাথে সমন্বয় না করে দায়সারা ভাবে কাজ করছে।

এসব অভিযোগের কথা মন্ত্রী গভীর মনোযোগ সহকারে শোনেন এবং উক্ত সমস্যা সমাধান এর আশ্বাস দেন। রোহিঙ্গাদের অভিযোগ ও দূর্ভোগের কথা মুক্তিযোদ্ধা মন্ত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে অবহিত করবেন বলেও জানান।

আরাকান সোসাইটি ফর ইফস হিউম্যান রাইটসের সভাপতি মাস্টার মহিবুল্লাহ মন্ত্রীকে বলেন, আশিয়ান ২ বছরে ৫ লক্ষ রোহিঙ্গা মিয়ানমারে ফেরৎ নেওয়ার যে কথা বলছেন তা উদ্দেশ্য প্রণোদিত। রোহিঙ্গাদের অবাধ চলাফেরার স্বাধীনতা না দিলে এবং জমি জমা, শিক্ষা ব্যবস্থা না করলে কখনো রোহিঙ্গারা ফেরৎ যাবেনা।

এ সময় বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন, শরণার্থী ত্রাণ ও প্রত্যাবাসন কমিশনার আবুল কালাম, উখিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. নিকারুজ্জামান চৌধুরী, সহকারী পুলিশ সুপার (উখিয়া সার্কেল) নাহিয়ান আদনান তাহিয়ান, ক্যাম্প ইনচার্জ রেজাউল করিম, পাবেল প্রমুখ।

এছাড়াও রোহিঙ্গা নেতাদের পক্ষে মাস্টার রহিম, মাষ্টার মহিবুল্লাহ, মাষ্টার কামাল, মাস্টার ইলিয়াছ, মাস্টার শফিক, হাজী ওলি উল্লাহ, মাষ্টার নকিব, মাস্টার সলিম, মাষ্টার ছৈয়দ, মাষ্টার সাদেক, মহিলা নেত্রীদের মধ্যে সিরাজুন নেসা, রশিদা বেগম উপস্থিত ছিলেন। মন্ত্রী ক্যাম্প পরিদর্শন শেষে দুপুর আড়াইটার দিকে কক্সবাজারের উদ্দেশ্যে ক্যাম্প ত্যাগ করেন।

ঘটনাপ্রবাহ: পুর্ণ নাগরিকত্ব, মুক্তিযোদ্ধা মন্ত্রী, রোহিঙ্গাদের

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

9 + 11 =

আরও পড়ুন