অপরিকল্পিত বাজার স্থাপন ও অনির্মিত অগ্নি নির্বাপণ স্টেশনের জন্য থানচিতে অগ্নিকাণ্ড

fec-image

বান্দরবানে থানচি উপজেলা প্রাণ কেন্দ্রের অপরিকল্পিত থানচি বাজার স্থাপন ও অনির্মিত অগ্নি নির্বাপণ স্টেশনের জন্য থানচি বাজারের দুই শত দোকান ও মালিকের খেসারত দিতে হয়েছে। সম্প্রতি ভয়াবহ ও অনিয়ন্ত্রিত আগুনে মাত্র আড়াই ঘণ্টায় মরুভূমিতে পরিনত হয়েছে।

স্বাধীনতা পরবর্তীতে থানচি বাজারে একইভাবে অসচেতনতা কারনে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ড ঘটনায় এই পর্যন্ত ৫বার হয়েছে ।

বাজারে ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র তিন শতাধিক দোকান ব্যবসায়ীরা ছাড়াও উপজেলা সদরের হাজার হাজার বসবাসরত ৪ ইউনিয়নের প্রায় ৩৫ হাজার অধিবাসীরা ক্ষতিগ্রস্তের স্বীকার হয়েছেন বলে মনে করছেন থানচি উপজেলা বসবাসরত সকলে ।

অগ্নিকাণ্ড পরবর্তী স্বাভাবিক না হওয়ার পর্যন্ত নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্য চাল, ডাল, তৈল, তরকারী, মাছ, মাংস, মরিচ, পেঁয়াজ, সাবান ইত্যাদি ক্রয়ের ক্ষমতা থাকলেও বাজারটি আজ চাহিদা মিঠাতে স্বক্ষম নয় ।

জানা যায়, ২০১৫ সালে থানচি উপজেলা বিভিন্ন পাড়া মহল্লা ও বাজারে অগ্নিকাণ্ড হলে থানচিবাসীদের দাবী পূরণের লক্ষ্যে পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী বীর বাহাদুর (উশৈসিং) এমপির নির্দেশে প্রায় এক কোটি টাকা ব্যয়ের গনপূর্ত বিভাগের অর্থায়নের বান্দরবানে বাসিন্দা বিএনপি নেতা ঠিকাদার ফারুক আহম্মদকে নির্মানে বাস্তবায়ন কাজের নিয়োগ করেন। দুই বছর মেয়াদে নির্মাণ কাজ শেষ করার চুক্তি থাকলেও ৬ বছরেও শেষ করতে পারেনি ঠিকাদার সংস্থা ।

থানচি বাজারটি হাট বাজার হিসেবে ১৯৬৬ সালে স্থাপিত হয় তৎকালীণ গ্রামীণ বাজার হিসেবে । ১৯৭১,১৯৭৪ সালে অগ্নিকান্ড পরবর্তীতে ১৯৮১-৮২ সালে বান্দরবান পার্বত্য জেলা পরিষদের আওতাধীণ বাজার ফান্ড প্রশাসকে আওতায় তালিকাভূক্ত হন । ১৯৮৬ সালে উপজেলা পরিষদ গঠন করার পর ও বাজারটি তৃতীয় শ্রেনির হাট বাজার হিসেবে থেকে যায়। ১৯৯৮.২০০৬ সালে ভায়াবহ অগ্নিকান্ড হওয়ার পরও বাজারটি সংশ্লিষ্টরা তৃতীয় শ্রেনির বাজার থেকে ২য় শ্রেনিতে উন্নিত করা সম্ভব হয়নি।

বাজার পরিচালনা কমিটি সাবেক সাধারণ সম্পাদক মোঃ জসিম উদ্দিন বলেন,বিগত বাজারটি অপরিকল্পিত বাজার ছিল কারন সেখানে বাজারে অভ্যন্তরীণ রাস্তা প্রসস্থ ও পাক্কা আধা পাক্কা দোকান ঘর ছিলনা । এবারে অগ্নিকান্ড পর বাজার ফান্ড প্রশাসক রাস্তা প্রসস্থ করা হয়েছে এবং অনেকে পাক্কা ভবন ও আধা পাক্কা দোকন ঘর তৈরীর জন্য প্রস্তুত নিয়েছে । তাই আমরা পরিকল্পিতভাবে দোকান ঘর নির্মানে এখনি সময়।

থানচি বাজার পরিচালনা কমিটি সভাপতি স্বপন কুমার বিশ্বাস বলেন, আমরা পূর্বে যে ভূল করে অপরিকল্পিত বাজার বিনির্মাণে এই ভূল আর করবোনা । বান্দরবান জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ক্যশৈহ্লা এর নির্দেশক্রমে আমরা বাজারে প্রসস্থ অভ্যন্তরীণ রাস্তা ফাইয়ার স্টেশনের গাড়ি যাতায়াতে ব্যবস্থা করে ফেলেছি ।

চৌধুরী খামলাই ম্রো বলেন, পার্বত্য বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী বীর বাহাদুর (উশৈসিং) এমপি অগ্নিকাণ্ড সময়কালীন পরিদর্শনের সময় বাজারের যত্রতত্রভাবে গ্যাস সেলেন্ডার, ডিজেল, অকটেন তৈল বিক্রয়ের আলাদা আলাদা দোকান রাখার নির্দেশ দিয়েছেন।

Print Friendly, PDF & Email
ঘটনাপ্রবাহ: অগ্নিকাণ্ড, থানচি
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

2 × five =

আরও পড়ুন