অপহরণের ৪৮ ঘণ্টায়ও উদ্ধার হয়নি সেই কৃষক, ৪ লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবি

fec-image

নাইক্ষ্যংছড়ির দুর্গম বাঁকখালী গ্রামের লংগদু থেকে অপহৃত সেই কৃষককে ৪৮ ঘণ্টাতেও উদ্ধার করা যায়নি। অপহরণকারীরা কৃষকের পরিবারের কাছ থেকে ৪ লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবি করেছে। তবে উদ্ধার অভিযানে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা তৎপর।

বাইশারীর ইউপি চেয়ারম্যান মো. আলম কোম্পানী বলেন, তাকে ২ দিনেও উদ্ধার করা যায় নি। তিনি শুনেছেন অপরহরণকারীরা পরিবারের কাছ থেকে মুক্তিপণ দাবি করেছে। অপহৃতের পরিবারের সাথে যোগাযোগ করলে তারা মুখ না খুললেও অপর একটি বিশ্বস্ত সূত্র নিশ্চিত করে বলেছেন, কৃষক নূর আহমদের মুক্তিপণে ৪ লাখ টাকা দাবি করছেন অপহরণকারীরা। নয়তো তার বড় ধরনের ক্ষতি করবে অপহরণকারীরা।

তারা আরো বলেন, অপহরণকারীরা বলেছে তাদের বিষয়ে কোন তথ্য পুলিশ ও সাংবাদিকদের যেন না দেওয়া হয়। এ কারণে কোন তথ্য দিচ্ছে না ওই কৃষকের পরিবার।

উদ্ধার অভিযান সম্পর্কে শুক্রবার (২৯ জুলাই) নাইক্ষ্য্যছড়ি থানার অফিসার ইনচার্জ টানটু সাহা বলেন, তারা কৃষককে উদ্ধারে রাত-দিন চেষ্টা চালাচ্ছেন। তারা কোন ধরনের অবহেলা করছেন না। তবে বিস্তৃর্ণ দুর্গম পাহাড়ি জনপদে এ অপহরণকারীদের আস্তানা থেকে কৃষককে মুক্ত করে আনতে সকলের সহায়তা চান তিনি।

উল্লেখ্য, গত ৬ বছর আগে তথা ২০১৬ সালে অপহৃত এ নূর আহমদের বড়ভাই ফরিদুল ইসলামকেও এ বাড়ি থেকে অপহরণ করেছিল স্বশস্ত্র পাহাড়ি সন্ত্রাসীরা। যাকে অনেক কষ্টে ৭৫ হাজার টাকা মুক্তিপণ দিয়ে মুক্ত করা হয়েছিল।

বৃহস্পতিবার (২৮ জুলাই) ভোর ৪ টায় নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার দোছড়ি ইউনিয়নের অতি দুর্গম বাঁকখালী মৌজার লংগদুমুখের কালাচাঁদ বাপের চর থেকে কৃষক নূর আহমদকে অপহরণ নিয়ে যায়। এ সময় ৮ থেকে ১০ জন মুখোশ ও হাফপ্যান্ট পরা স্বশস্ত্র সন্ত্রাসী ঘরের ৬ সদস্য থেকে নূর আহমদকে ঘুম থেকে তুলে নিয়ে যায়।

স্থানীয়রা অনেকে বলেছেন, অপহরণকারীদের মধ্যে কেউ নূর আহমদের পূর্ব পরিচিত।

Print Friendly, PDF & Email
ঘটনাপ্রবাহ: অপহরণ, মুক্তিপণ দাবি
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

two + 19 =

আরও পড়ুন