উচ্চ পর্যায়ের সিদ্ধান্ত ছাড়া সাব্রুম সীমান্তে কাঁটাতারের বেড়ার কাজ বন্ধ রাখবে ভারত

fec-image

কাঁটাতারের বেড়ার নকশার ব্যাপারে দুই দেশের উচ্চ পর্যায়ের যৌথ সিদ্ধান্ত না হওয়া পর্যন্ত ত্রিপুরার সাব্রুম সীমান্তে বেড়া নির্মাণের কাজ বন্ধ রাখতে সন্মত হয়েছে ভারতের সীমান্তরক্ষীবাহিনী বিএসএফ।

মঙ্গলবার(২২অক্টোবর) সাব্রুম সীমান্তে অনুষ্ঠিত বিজিবি-বিএসএফের এক পতাকা বৈঠকে এ সিদ্ধান্ত হয়। এদিকে, দু পক্ষের এ ফলপ্রসূ বৈঠকের পর সীমান্তের উত্তেজনাকর পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়েছে। প্রত্যাহার করা হয়েছে অতিরিক্ত সৈন্য।

সীমান্ত সূত্রে জানাযায়, ২২১৭/৪ আর বি সীমানা পিলার সংলগ্ন রামগড়ের কাশিবাড়ি সীমান্তের ওপারে সাব্রুমের কাঁঠালছড়ির আইল্যামারা নামক এলাকায় ভারত সোমবার সকালে কাঁটাতারের বেড়া নির্মাণের কাজ শুরু করে। সীমান্তের শূণ্য রেখা হতে মাত্র প্রায় ৫০ গজের মধ্যে এ কাজ শুরু করলে বিজিবি এতে বাধা দেয়। কিন্তু বিএসএফ বাধা উপেক্ষা করে কাজ অব্যাহত রাখে।

এনিয়ে দুপক্ষের মধ্যে উত্তেজনা দেখা দেয়। ঐ এলাকায় ফেনী নদীর তীরবর্তী বাসিন্দা মো. আলী হোসেন বলেন, বিজিবি বাধা দেয়ার সাথে সাথে ওপারে কয়েকশ বিএসএফ মোতায়েন করা হয়। তাদের প্রহরায় বুলডুজার দিয়ে কাজ অব্যাহত রাখা হয়। সোমবার বিকাল ৪টা পর্যন্ত কাজ চলে। বিএসএফের এমন আচরণের প্রেক্ষিতে বিজিবিও সৈন্য বৃদ্ধি করে। তিনি বলেন, দুপক্ষের উত্তেজনাকর পরিস্থিতির কারণে নদীর তীরবর্তী বাসিন্দারা রাতে অন্যত্র সরে যায়।

এদিকে, মঙ্গলবার সকাল ৯টার দিকে বিএসএফের প্রহরায় পুনরায় কাজ শুরু করলে বিজিবি আবারও বাধা দেয়। এ অবস্থায় বিএসএফের পক্ষ থেকে বিষয়টি নিয়ে আলোচনার জন্য পতাকা বৈঠকের অনুরোধ জানালে বিজিবি রাজী হয়। বেলা দেড়টার দিকে রামগড় ৪৩ বিজিবির অধিনায়ক লে. কর্নেল মো. তারিকুল হাকিমের নেতৃত্বে ১৩ সদস্যের বিজিবির একটি দল সাব্রুমের লুধুয়াছড়া সংলগ্ন আইল্যমারা নামক স্থানে অনুষ্ঠিত পতাকা বৈঠকে যোগ দেন। ওই বৈঠকে বিএসএফের সাব্রুমস্থ ৬৬ ব্যাটালিয়নের সেকেন্ড কমান্ড্যান্টের নেতৃত্বে ২০ সদস্য অংশ নেয়। বেলা সাড়ে ৩টা পর্যন্ত বৈঠকটি চলে।

বৈঠক শেষে দেশে ফেরার পর ৪৩ বিজিবির সহ অধিনায়ক মেজর মো. জাকির হোসেন পার্বত্যনিউজকে বলেন, বৈঠক ফলপ্রসূ হয়েছে। ওই স্থানে শূণ্য রেখা থেকে দেড়শত গজের মধ্যে কাঁটাতারের বেড়া নির্মাণের ব্যাপারে উভয় দেশের সন্মতি রয়েছে। কিন্তু বেড়ার নকশার ব্যাপারে আমাদের আপত্তি আছে।

তিনি বলেন, বিজিবি সদর দপ্তর থেকে যে নকশা দেয়া হয়েছে তা অনুসরণ করা হচ্ছে কি না এ বিষয়ে বিএসএফের কাছে জানতে চেয়ে চিঠি পাঠানো হয়। কিন্তু তারা এর কোন উত্তর না দিয়েই কাজ শুরু করে। তাই বিজিবি এতে বাধা দেয়।

মেজর জাকির আরও বলেন, বৈঠকে নকশার ব্যাপারে দুই দেশের উচ্চ পর্যায়ের যৌথ সিদ্ধান্ত না হওয়া পর্যন্ত বেড়া নির্মাণের কাজ বন্ধ রাখতে বিএসএফ সন্মত হয়েছে।

এদিকে, বৈঠক ফলপ্রসূ হওয়ার পর উভয় পক্ষ ওই সীমান্ত এলাকায় মোতায়েন করা অতিরিক্ত সৈন্য প্রত্যাহার করেছে। স্থানীয় বাসিন্দারা জানান, সীমান্তের পরিবেশ এখন শান্ত ও স্বাভাবিক রয়েছে।

Print Friendly, PDF & Email
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

twelve − six =

আরও পড়ুন