করোনা ভাইরাস পরিস্থিতি মোকাবেলায় বান্দরবানে মাঠে নেমেছে সেনাবাহিনী

fec-image

করোনা ভাইরাসের কারনে উদ্ভুত পরিস্থিতি মোকাবেলায় পার্বত্য জেলা বান্দরবানে কাজ শুরু করেছে বাংলাদেশ সেনাবাহিনী। মঙ্গলবার (২৪মার্চ) থেকে স্থানীয় প্রশাসনকে সহায়তা করছেন তারা। এই লক্ষ্যে মঙ্গলবার দুপুর থেকে জেলা শহরে টহলের পাশাপাশি লিফলেট বিতরণ ও মাইকিং করে মানুষের মাঝে সচেতনতা সৃষ্টি করা হয়।

এছাড়াও বিনা কারণে লোক সমাগম হওয়া এলাকা ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে আড্ডারত মানুষদের সরে যাওয়ার জন্য বলছেন তারা। সেনাবাহিনীর সচেতনতামূলক এই কার্যক্রম শুরু হওয়ার পর থেকে জেলা শহর বান্দরবানে ফাঁকা হতে শুরু হয়েছে। সড়কগুলোতে সীমিত আকারে যানবাহন চলাচল করছে।

এই প্রসঙ্গে বান্দরবান ৬৯ সেনা রিজিয়নের কর্মকর্তা মেজর ইফতেখার বলেন, জেলা সদর এলাকায় ৫টি সেনা পেট্রোল টিম সার্বক্ষণিক টহলে রয়েছে। এছাড়া বিভিন্ন এলাকার সেনা ক্যাম্পের সদস্যরাও জনসমাগম না করতে মাইকিং এবং পোস্টার লাগিয়ে স্থানীয়দের মাঝে সচেতনতামূলক প্রচারণা চালাচ্ছে।
এদিকে বান্দরবান জেলা পরিষদের ৩শ স্বেচ্ছাসেবকদের প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়েছে। তাদের মাঝে বিতরণ করা হযয়েছ স্প্রে, গ্লাভস, জ্যাকেট সহ অন্যান্য সরঞ্জাম। বান্দরবান জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ক্যশৈহ্লা জেলা পরিষদ মিলনায়তনে সেচ্ছাসেবকদের এসব সরঞ্জাম বিতরণ করেন। এরআগে স্বাস্থ্য বিভাগের চিকিৎসকরা স্বেচ্ছাসেবকদের প্রশিক্ষণ দেন।

এদিকে সিভিল সার্জন ডা. অংসুইংপ্রু মারমা জানান, মহামারী করোনাভাইরাস ঠেকাতে চিকিৎসক ও নার্সদের পিপিই (ব্যক্তিগত সুরক্ষা সরঞ্জাম) পর্যাপ্ত রাখা হয়েছে। তবে করোনাভাইরাস রোগ শনাক্তে যে কীটের প্রয়োজন সেগুলো এখনও হাসপাতালে নেই। বিষয়টি উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়েছে। সিভিল সার্জন জানান, জেলার মোট ৫০ জনকে কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছে। এর মধ্যে সদর হাসপাতালে ৬ জন, থানচি স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ২ জন এবং আলীকদম স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ১ জন। বাকী ৪১ জন হোম কোয়ারেন্টানে।

Print Friendly, PDF & Email
ঘটনাপ্রবাহ: করোনা ভাইরাস, সেনাবাহিনী
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

4 + twenty =

আরও পড়ুন