কী দেখে কিনবেন ওয়াশিং মেশিন?

fec-image

অল্প সময়ে অনেক কাপড় একসাথে পরিষ্কার করা যায় বলে বর্তমান কর্মব্যস্ত জীবনে বেড়েছে ওয়াশিং মেশিনের চাহিদা। একসময় সৌখিন পণ্যের তালিকায় থাকলেও, বর্তমানে ওয়াশিং মেশিনকে প্রয়োজনীয় পণ্য বলে গণ্য করা হয়। মানুষের চাহিদা ও বাজেটের কথা বিবেচনা করে, বিভিন্ন প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠান মানুষের জীবনকে স্বাচ্ছন্দ্যময় করে তুলতে প্রতি বছরই বাজারে আনছে আধুনিক প্রযুক্তির ওয়াশিং মেশিন। এই নানা মাপের, দামের ও ব্র্যান্ডের ওয়াশিং মেশিনের ভিড়ে কোন ওয়াশিং মেশনটি নিজের জন্য উপযুক্ত তা নিয়ে অনেকেই দ্বিধায় পড়েন। বিশেষ করে, কোন ফিচার ও সুবিধা দেখে ওয়াশিং মেশিন কেনা উচিৎ, তা নিয়ে বেশিরভাগ নতুন ক্রেতার ধারণা কম থাকায় বাজার ঘুরে সঠিক ওয়াশিং মেশিন বাছাই করা নিয়ে তারা সমস্যায় পড়েন।

ওয়াশিং মেশিন এমন একটি ইলেকট্রনিকস পণ্য যা আপনি বার বার কিনবেন না। তাই, কেনার সময় ওয়াশিং মেশিনটি সর্বাধুনিক প্রযুক্তিযুক্ত ও দীর্ঘস্থায়ী হবে কিনা এ ব্যাপারে লক্ষ্য রাখা বাঞ্চনীয়। এছাড়া, মাস শেষে ইলেকট্রিক বিল নিয়ে যাতে চিন্তায় পড়তে না হয়, সেজন্য ওয়াশিং মেশিনটি বিদ্যুৎ সাশ্রয়ী কিনা সে ব্যাপারেও লক্ষ্য রাখতে হবে।

প্রযুক্তি, ফিচার ও দামের বিবেচনায় বাজারে এগিয়ে রয়েছে দক্ষিণ কোরীয় প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠান স্যামসাংয়ের ওয়াশিং মেশিনগুলো। এছাড়া, স্যামসাং ওয়াশিং মেশিনের উন্নত মান ও আকর্ষণীয় ডিজাইন অন্যান্য ব্র্যান্ডের তুলনায় একে করে তুলেছে অনন্য। বাজারে ৭ কেজি থেকে শুরু করে ১৮ কেজি পর্যন্ত বিভিন্ন ধারণক্ষমতাসম্পন্ন স্যামসাং ওয়াশিং মেশিন পাওয়া যায়। তাই, ক্রেতারা প্রয়োজন মোতাবেক যথাযথ ধারণক্ষমতার ওয়াশিং মেশিন কেনার সুযোগ পাবেন। বাজারের অন্যান্য ওয়াশিং মেশিনের তুলনায় স্যামসাং ওয়াশিং মেশিনের বেশ কিছু সুবিধা রয়েছে।

অ্যাড ওয়াশ: অনেক সময় এমন হতে পারে যে, ওয়াশিং মেশিনে কাপড় পরিষ্কার করতে দেয়ার কিছুক্ষণ পর হঠাৎ খেয়াল হলো আরও কিছু কাপড় দেয়ার দরকার ছিল। এমতাবস্থায়, কাজে লাগবে স্যামসাং ওয়াশিং মেশিনের অ্যাড ওয়াশ সুবিধা। অ্যাড ওয়াশের মাধ্যমে আপনি কাপড় ধোয়ার সময় নতুন কাপড় যেমন যুক্ত পারবেন, সাথে যোগ করতে পারবেন ডিটারজেন্টও। বাজারের গতানুগতিক ধারার ওয়াশিং মেশিনে সাধারণত এই সুবিধা থাকে না।

ডিজিটাল ইনভার্টার মোটর: ডিজিটাল ইনভার্টার প্রযুক্তিতে শক্তিশালী ম্যাগনেট ব্যবহার করা হয়, যা মোটরের ঘর্ষণ হ্রাস করে। কম ঘর্ষণের ফলে ওয়াশিং মেশিন মসৃণভাবে চলে এবং তেমন শব্দ হয় না। এটি ওয়াশিং মেশিনকে দীর্ঘস্থায়ীও করে। স্যামসাং ওয়াশিং মেশিনগুলো ইনভার্টার মোটরযুক্ত।

ইকো বাবল প্রযুক্তি: স্যামসাং ওয়াশিং মেশিনে ব্যবহার করা হয়েছে ইকো বাবল প্রযুক্তি। ইকো বাবল প্রযুক্তি বাবল জেনারেটরের মাধ্যমে আপনার পছন্দের ডিটারজেন্টকে পানির সাথে মিশিয়ে ফেনা তৈরি করে। এটি কাপড়ের গুণগত মান অক্ষুণ্ণ রেখে কাপড় থেকে কঠিন ময়লা দূর করতে সক্ষম। ফলে কাপড় যেমন নষ্ট হয়না, তেমনি বিদ্যুৎ সাশ্রয় সুবিধাও পাওয়া যায়।

ডায়মন্ড ড্রাম: ওয়াশিং মেশিনে কাপড় পরিষ্কারের ব্যাপারে প্রচলিত একটি ধারণা হচ্ছে, ওয়াশিং মেশিন কাপড় নষ্ট করে ফেলে। প্রিয় পোশাকটি পরিষ্কার করতে গিয়ে নষ্ট হয়ে যাওয়া একদমই অবাঞ্চিত। স্যামসাং ওয়াশিং মেশিনের ডায়মন্ড ড্রাম প্রযুক্তি কাপড় আলতোভাবে পরিষ্কার করে বিধায় কাপড় ছেঁড়াফাটা বা নষ্ট হওয়ার কোন শঙ্কা থাকে না।

সিরামিক হিটার: ওয়াশিং মেশিনের হিটার সাধারণত ধোয়ার জন্য পানির তাপমাত্রা বৃদ্ধিতে ব্যবহার করা হয়। প্রচলিত ওয়াশিং মেশিনের হিটারে ক্যালসিয়ামের আস্তর জমার সমস্যা দেখা দিতে পারে। তবে, স্যামসাং ওয়াশিন মেশিনের কুইক হিটিং ক্ষমতা মেশিনের কার্যকারিতা বৃদ্ধি করে এবং এটি সাধারণ হিটারের চেয়ে তিন গুণ বেশি দীর্ঘস্থায়ী। ফলে, মেশিন ঠিক করার অর্থও সাশ্রয় হয়।

২৯,৯০০ টাকা থেকে শুরু করে ধারণক্ষমতার উপর ভিত্তি করে বিভিন্ন মূল্য পরিসরে স্যামসাং ওয়াশিং মেশিন বাজারে পাওয়া যাচ্ছে। সাথে থাকছে ৬ মাস পর্যন্ত ০% ইন্টারেস্টে ইএমআই সুবিধা, বিনামূল্যে ডেলিভারি ও ইন্সটলেশন সুবিধা। আসন্ন ঈদ উপলক্ষে স্যামসাং নিয়ে এসেছে ‘বিগ অফার ঈদ জমবে এবার’ ক্যাম্পেইন, যা চলবে চলতি মাসের ৩১ তারিখ পর্যন্ত। এই ক্যাম্পেইন চলাকালে ক্রেতারা ওয়াশিং মেশিনে ১৪,০০০ টাকা পর্যন্ত ক্যাশব্যাক পেতে পারেন আর এক্সচেঞ্জ অফারে থাকছে ৫,৫০০ টাকা পর্যন্ত ছাড়।

Print Friendly, PDF & Email
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

four + one =

আরও পড়ুন